১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিএনপি সঙ্কটে তাই বার বার অবস্থান পরিবর্তন ॥ সুরঞ্জিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এমপি বলেছেন, বিএনপির মধ্যে সঙ্কট থাকার কারণে বার বার তাদের অবস্থান পরিবর্তন হচ্ছে। তাদের দোদুল্যমানতাই প্রমাণ করছে তাদের রাজনীতি নানা দোষে দুষ্ট।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে নৌকা সমর্থক গোষ্ঠী আয়োজিত চলমান রাজনীতি বিষয়ক এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বিএনপির মধ্যে বর্তমানে দুটি গ্রুপ সক্রিয়। একটি শক্তিশালী গ্রুপ চেষ্টা করছে বিকৃত রাজনীতির পথ পরিহার করে দলকে জনকল্যাণমুখী করতে। আরেকটি গ্রুপ চাচ্ছে জঙ্গীবাদী, মুক্তিযুদ্ধবিরোধী চক্রের সঙ্গে রাজনীতি করতে।

প্রবীণ এই পার্লামেন্টারিয়ান আরও বলেন, বিএনপির কে যে মুখপাত্র তা বোঝা মুশকিল। কয়েকদিন আগে জমির উদ্দিন সরকার সাহেব এমনকি খালেদা জিয়াও বললেন, এখন কোন কিছু লাগবে না। কোন রকম একটা নির্বাচন হলেই হবে। শেখ হাসিনার অধীনেও যেতে তাঁরা রাজি ছিলেন। তবে রবিবার সেই খালেদা জিয়াই আবার বললেন, মধ্যবর্তী না আমরা নতুন নির্বাচন চাই। তবে এটি নতুন কথা। এটাই যদি সিদ্ধান্ত হয় তাহলে তাদের অবস্থান পরিষ্কার হলো।

সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, নতুন নির্বাচন কখন কিভাবে হয় তা সংবিধানে স্পষ্ট লেখা আছে। সেই অনুযায়ী নির্বাচন হবে। তাহলে তো রাজনৈতিক সঙ্কট সমাধান হয়ে গেল। আমার আশা এ বিষয়ে বিএনপি তার সিদ্ধান্তে অটল থাকবে। আমরা তাদের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও নির্বাচিত সরকারের অধীনে সাংবিধানিক পন্থায় জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন। তিনি বলেন, দেশের রাজনীতি আর অস্থিতিশীল হয়ে উঠবে না। যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচন নিরপেক্ষ ও সকল দলের অংশগ্রহণ করতে সবাইকেই কাজ করতে হবে।

পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) নিয়োগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ২৬ হাজার পরীক্ষার্থী প্রাথমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেবে, সেটা ভাল সংবাদ। তবে তারা যদি দ্বিতীয় শ্রেণীর কর্মকর্তা হয় তাদের নিয়োগটা কে দেবে? পাবলিক সার্ভিস কমিশন না স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয়? এটা সংবিধানে বলা আছে। সেটা দেখে ঠিক করে নেন। নইলে এ নিয়োগ প্রক্রিয়াটাই থমকে যাবে। মহাসড়কে তিনচাকার গাড়ি চলাচল বন্ধ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যোগাযোগ মন্ত্রালয় যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা ভাল উদ্যোগ। এটা নিয়ে সঙ্কট তৈরি হওয়ার আগে তাদের কাগজপত্র পরীক্ষা করে বৈধদের জন্য একটি বিকল্প ব্যবস্থা করা দরকার। কেননা এর সঙ্গে সাধারণ জনগণের যাতায়াত ও শ্রমিকদের বেকারত্বের বিষয়টি জড়িত। সংগঠনের উপদেষ্টা চিত্তরঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন সাম্যবাদী দলের নেতা হারুন চৌধুরী প্রমুখ।