২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাঙ্গাবালী থানার ওসিকে আদালতের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার, গলাচিপা ॥ পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত নারী পাচার সংক্রান্ত একটি মামলায় এক মাস আগে রাঙ্গাবালী থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আদেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু রাঙ্গাবালী থানার অফিসার ইনচার্জ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় আগামী সাত দিনের মধ্যে ওই মামলার অগ্রগতি সম্পর্কে জানাতে আদালতের বিচারক মোঃ শিহাবুল ইসলাম নির্দেশ দিয়েছেন। মামলার বাদির আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারক সোমবার এ নির্দেশ দেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, রাঙ্গাবালী সদর ইউনিয়নের গন্ডাদুলা গ্রামের ইব্রাহিম দফাদারের ১৯ বছরের বিবাহিত মেয়েকে একই গ্রামের মোঃ সোহরাব দফাদারের স্ত্রী সাজেদা বেগমসহ চার আসামি গত ১৫ মে প্রলোভন দেখিয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ঢাকার একটি নারী পাচারকারী চক্রের কাছে বিক্রি করে দেয়। এ ঘটনায় ইব্রাহিম দফাদার গত ২৫ জুন গলাচিপা উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সাজেদা বেগমসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। আদালত ওই দিনই মামলাটি আমলে নিয়ে রাঙ্গাবালী থানার অফিসার ইনচার্জকে অভিযোগটি এজাহার হিসাবে গ্রহণ করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু আদালতের এ আদেশের এক মাসেরও বেশি সময় পার হলেও পুলিশ অভিযোগটি এজাহার হিসাবে গ্রহণ করেনি। এ কারণে ক্ষুব্ধ হয়ে বাদি মামলাটির প্রকৃত অবস্থা জানার জন্য আদালতে আবেদন করেন। এদিকে, মামলার বাদি মোবাইল ফোনে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ২৫ জুলাই স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কলমা গ্রাম থেকে তার অপহৃত মেয়েকে উদ্ধার করেন। মেয়েকেও তিনি আদালতে হাজির করেন। এরই প্রেক্ষিতে বিচারক রাঙ্গাবালীর অফিসার ইনচার্জকে ওই নির্দেশ দেন। এ বিষয়ে রাঙ্গাবালী থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই কমল চন্দ্র দে জানান, অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনির হোসেন ছুটিতে রয়েছেন। তিনি যোগ দেয়ার পরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া