২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কাল চট্টগ্রামে শুরু হচ্ছে ৩ দিনের আন্তর্জাতিক এ্যাপারেল এক্সপো

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ সেফটি ও কমপ্লায়েন্স ইস্যুগুলো যথাযথভাবে মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশের পোশাক শিল্প খাত। শুধু তাই নয়, অনেক ক্ষেত্রে প্রত্যাশার চেয়েও ভাল অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। জাতীয় অর্থনীতির মেরুদ- পোশাক শিল্প এখন জাতীয় সম্পদ। এ শিল্পকে এগিয়ে নিতে প্রয়োজন ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস। ২০২১ সালের মধ্যে ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের রফতানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশের পোশাককে প্রিমিয়াম ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার কাজ এগিয়ে চলেছে।

মঙ্গলবার পোশাক শিল্প প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান নেতৃবৃন্দ। চট্টগ্রামের রেডিসন ব্লু হোটেলে আগামীকাল ৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে ‘ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ’ সেøাগানে বাংলাদেশ এ্যাপারেল এ্যান্ড সেফটি এক্সপো, চট্টগ্রাম-২০১৫। সকাল ১০টায় উদ্বোধনী দিনে প্রধান অতিথি থাকবেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি। আগামী ৮ আগস্ট সকালে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন পরিকল্পনামন্ত্রী এএইচএম মোস্তফা কামাল এমপি। বিশেষ অতিথি থাকবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান। প্রদর্শনীতে থাকছে মোট ৭৩টি স্টল। এর মধ্যে তৈরি পোশাকের ১৭টি, ফেব্রিকস ৩টি, গার্মেন্টস এক্সেসরিজের ২টি, স্থানীয় এক্সেসরিজের ১টি, মেশিনারিজের ১৮টি, ফায়ার ইকুইপমেন্টসের ২৫টি, সার্ভিস প্রোভাইডার্স ৭টি এবং বিজিএমইএ’র নিজস্ব ২টি স্টল রয়েছে। রেডিসন ব্লু’র মেজবান হলে আয়োজিত হতে যাচ্ছে চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো এই প্রদর্শনী।

কাতারের সঙ্গে ৪ লাখ মেঃ টন ইউরিয়া সার আমদানি চুক্তি স্বাক্ষর

সম্প্রতি শিল্প সচিব এবং কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনারের উপস্থিতিতে মুনতাজাত, কাতারের সঙ্গে ২ লাখ মেঃ টন গ্রানুলার ইউরিয়া এবং ২ লাখ টন প্রিল্ড ইউরিয়াসহ মোট ৪ লাখ মেঃ টন ইউরিয়া সার আমদানির জন্য একটি চুক্তি (জি টু জি) স্বাক্ষরিত হয়। এ চুক্তিতে বিসিআইসি’র পক্ষে চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইকবাল এবং মুনতাজাত, কাতারের পক্ষে নির্বাহী প্রধান আবদুল রহমান আলী আল-আব্দুল্লাহ স্বাক্ষর করেন। এ চুক্তির ফলে দেশে ইউরিয়া সারের মজুদ বৃদ্ধিসহ ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে সুষ্ঠু সার সরবরাহে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। প্রতিনিধিদল মুনতাজাত, কাতারের সার উৎপাদন কারখানা ও বন্দরে সার লোডিং সুবিধাদিও পরিদর্শন করেন। -বিজ্ঞপ্তি।