১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফতুল্লায় ব্যবসায়ী হত্যা ॥ কেউ গ্রেফতার হয়নি

নিজস্ব সংবাদদাতা, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ৪ আগস্ট ॥ ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিঙ্ক রোডের নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার মামুদপুরে মোবাইল ব্যবসায়ী নুরুল ইসলামকে (৪২) গুলি করে হত্যার ঘটনায় এ রুটের যাত্রীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, খুন ও অপহরণসহ নানা অপরাধ সংঘটিত হওয়ায় এ সড়কটি এখন আতঙ্কের সড়কে পরিণত হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পুলিশ হত্যার ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ছিনিয়ে নেয়া ব্যাগটিও উদ্ধার করা যায়নি। সোমবার রাত পৌনে ১০টায় মোবাইল ব্যবসাযী নুরুল ইসলামকে যাত্রীবাহী বাসের গতিরোধ করে বোমা ফাটিয়ে এবং আতঙ্ক সৃষ্টি করে দুর্বৃত্তরা তার বুকে গুলি করে হত্যা করে। নুরুল ইসলাম নিহতের পর থেকে পরিবারে চলছে শোকের মাতম। নিহত ব্যবসায়ীর লাশের ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার বিকেলে লাশ দাফন করা হয়েছে।

ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম হত্যার প্রতিবাদে ও শোক প্রকাশ করে নারায়ণগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে চাষাঢ়ায় প্যানোরামা পাজা বন্ধ রাখা হয়েছে। মার্কেটের ব্যবসায়ীরা হত্যাকা-ের তীব্র নিন্দা জানিয়ে দ্রুত খুনীদের গ্রেফতার করে বিচারের দাবি জানান। এই মার্কেটে নিহত নুরুল ইসলামের দুইটি দোকান রয়েছে। এছাড়া ঢাকার হাতিরপুলে মোতালেব প্লাজায় একটি মোবাইলের দোকান ও বায়তুল মোকাররম মার্কেটে একটি জুয়েলারি দোকান রয়েছে বলে তার পরিবার জানান। ঢাকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে নারায়ণগঞ্জের বাসায় ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের গুলিতে তিনি নিহত হন।

নুরুল ইসলাম হত্যার খুনীদের গ্রেফতার না হওয়ায় নিহতের পবিবারের আত্মীয়স্বজন, নিহতের ছেলে শুভ ও ভাই আল ইসলাম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। নিহত ব্যবসায়ীর কোন শত্রু ছিল না বলে তার আত্মীয়স্বজনরা জানায়। বিকেলে মোবাইল ফোনে স্বামীর সঙ্গে কথা শেষ হয় স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিনের। স্বামী হারানোর শোকে স্ত্রী পাথর হয়ে গেছে।

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিঙ্ক রোডের ফতুল্লার মামুদপুরে নুরুল ইসলাম নিহত হওয়ার পর ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। গত বছর ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম ও সিনিয়র আইনজীবী চন্দন সরকারসহ ৭ জনকে একই সড়কের ফতুল্লার লামাপাড়া থেকে অপহরণ করা হয়। ফতুল্লার মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, নুরুল ইসলাম হত্যাকা-ের বিষয়ে জোর তদন্ত চলছে।