২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে কর বিষয়ক টাস্কফোর্স গঠনের আহ্বান

ডিজিটাল বাংলাদেশের ওপর এক সাম্প্রতিক গবেষণায় অর্থ মন্ত্রণালয়, আইসিটি মন্ত্রণালয় এবং এনবিআর এর সমন্বয়ে একটি করবিষয়ক টাস্কফোর্স গঠনের আহ্বান জানানো হয়েছে যা দেশে দ্রুত ব্রডব্যান্ড সেবা চালু করার জন্য একটি কার্যকরী কর ব্যবস্থা স্থাপন করবে।

এই টাস্কফোর্স কর ব্যবস্থাকে যুক্তিসংগত করার চেষ্টা করবে, যা সরকারের যথাযথ এবং স্থিতিশীল রাজস্ব আয়ের অধিকারের সঙ্গে অপারেটরদের করের অভিঘাত সম্পর্ক স্পষ্ট ধারণা থাকা এবং বাংলাদেশের মানুষের সুলভ টেলিযোগাযোগ সেবা পাওয়ার প্রয়োজনের মধ্যে সমন্বয় সাধন করবে। নিম্ন ব্যয় ক্ষমতা, ডিভাইসের মূল্য এবং ব্যবহারের খরচের মিলিত অভিঘাতের ফলে অনেক বাংলাদেশীর পক্ষে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার কঠিন হয়ে পড়ে।

সরকারের আরোপিত কর এবং ফি মোবাইল ফোন ক্রয় ও ব্যবহারের খরচের শতকরা ১৭ ভাগ হওয়ায় তা অতিরিক্ত বাধা হিসেবে কাজ করে। ‘সম্ভাবনার ডিজিটাল বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই গবেষণাটি পরিচালনা করে টেলিকম থিংকট্যাংক লার্ন এশিয়া এবং এতে সহযোগিতা করে টেলিনর গ্রুপ ও গ্রামীণফোন। রবিবার রাজধানীর একটি হোটেলে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, এমপি, এই গবেষণা পত্রটির মোড়াক উম্মোচন করেন। ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, গ্রামীণফোনের সিইও রাজীব শেঠি, এটুআই এর পলিসি এ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী এবং লার্ন এশিয়ার সিইও রোহান সামারাজিভা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এই গবেষণাটি ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে এ পর্যন্ত অর্জিত সাফল্য চিহ্নিতকরণ, যে সব ক্ষেত্রে জরুরী পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন তা চিহ্নিতকরণ এবং সাফল্যের মানদ- নির্ধারণ করেছে। রোহান সামারাজিভা উপস্থিত অতিথিদের গবেষণা সম্পর্ক বিস্তারিত ধারণা দেন। অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী বলেন “এই প্রতিবেদন আমাদের বাস্তবসম্মতভাবে ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সাহায্য করবে।”

ডাক টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, “ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সরকারী এবং বেসরকারী খাতকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।”

গ্রামীণফোনের সিইও বলেন, “সবার জন্য সুলভ ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ সৃষ্টি করাই ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের মৌলিক পদক্ষেপ। গ্রামীণফোনের লক্ষ্য হচ্ছে ‘সবার জন্য ইন্টানেট’ পৌঁছে দেয়া। -বিজ্ঞপ্তি