২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চ্যালেঞ্জ দেখছেন জয়সুরিয়া

  • শ্রীলঙ্কা-ভারত সিরিজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শ্রীলঙ্কা ঘরের মাটিতে ভারতের কাছে সর্বশেষ টেস্ট সিরিজে হেরেছিল সেই ১৯৯৩ সালে। ১৯৮৫-২০০৮ দুই যুগে স্বভূমে পাঁচ সিরিজে হার ওই একটিই। নিজ উঠোনে ভারত যেন লঙ্কানদের প্রিয় প্রতিপক্ষ, যাদের জন্য অধীর হয়ে থাকার কথা এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসদের। অথচ বিরাট কোহলির নেতৃত্বে ভারত যখন শ্রীলঙ্কায় পা রেখেছে, তখন কিছুটা শঙ্কিত দেশটির সাবেক তারকা সনাথ জয়সুরিয়া! ১৯৯৬-এর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য বলেছেন, এবার সিরিজটা তাদের জন্য কঠিন এক চ্যালেঞ্জই হতে যাচ্ছে। সদ্য পাকিস্তানের কাছে নাস্তানাবুদ উত্তরসূরিদের ওপর ঠিক ভরসা করে উঠতে পারছেন না তিনি। ‘সম্প্রতি আমরা একদমই ভাল খেলছি না। ঘরের মাটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি২০ তিন ভার্সনেই বাজেভাবে হেরেছি। এটা সত্যি শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট খুব খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়াবর্ধনে ও তিলকারতেœ দিরশানদের বিকল্প তৈরি হয়ে ওঠেনি। ভারতের সঙ্গে আসন্ন সিরিজটা তাই কঠিন চ্যালেঞ্জই হতে যাচ্ছে। তবে আশা করছি সর্বশক্তি দিয়ে বিরাট কোহলিদের বিপক্ষেই ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করবে ম্যাথুসরা।’ ঘরের মাটিতে পাকিস্তানের কাছে ২-১এ টেস্ট, ৩-২এ ওয়ানডে হারের পর টি২০তে ২-০তে ‘হোয়াইটওয়াশ’ হয় টি২০’র বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ব্যাটিং-বোলিং কোন বিভাগেই আশা দেখাতে পারেনি স্বাগতিকরা। সবচেয়ে বেশি করে চোখে পড়ছে তাদের ব্যাটিং দৈনতা। বিশেষ করে টেস্টে, মাহেলা-সাঙ্গার অনুপস্থিতি হারে হারে টের পাচ্ছে ম্যাথুসবাহিনী।

গত বছর বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টি২০ বিশ্বকাপ খেলে টি২০ থেকে, অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে খেলে ওয়ানডেকে বিদায় জানান দু’জনইে। তার আগেই টেস্ট ছাড়েন মাহেলা। সাঙ্গা টেস্টের মধ্য দিয়ে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসর নেবেন এই সিরিজে। অভিজ্ঞদের মধ্যে আছেন কেবল দিলশান। তরুণরা ঠিক প্রত্যাশা পূরণ করতে পারছেন না। দেশটির ক্রিকেট লিজেন্ড ও সাবেক প্রধান নির্বাচক সে দিকেই ইঙ্গিত করেন। জয়সুরিয়া আরও বলেন, ‘একজন সিনিয়র ক্রিকেটার গড়ে উঠতে ১৪-১৫ বছর সময় লাগে। হুট করেই তাদের পরিবর্তক পাওয়া কঠিন। তবে এটা মেনে নিতেই হয়। সাঙ্গা-মাহেলার পর যারা মোটামুটি কয়েক বছর ধরে আছে, যেমন লাহিরু থিরিমান্নে, উপুল থারাঙ্গা ও ম্যাথুসদের দায়িত্ব নিয়ে হাল ধরতে হবে। দিমুথ করুনারতেœ-কুশল সিলভারা প্রতিভাবান। আশা করছি খুব শীঘ্রই দল হিসেবে আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পারব।’ টেস্টের সিরিজ খেলতে বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারত এখন লঙ্কায়। কলম্বোয় প্রথম টেস্ট ১২ আগস্ট থেকে। পাকিস্তানের কাছে এমন ভরাডুবির পর স্বাগতিকদের ঘুরে দাঁড়ানোটা সহজ হবে না। এই সিরিজেই জীবনের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবেন সাঙ্গাকারা। কলম্বোর পি সারা ওভালে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট খেলেই ব্যাট-প্যাড তুলে রাখবেন আধুনিক ক্রিকেটের অন্যতমসেরা এই ব্যাটসম্যান। তরুণরা যে ঠিকমতো বিকল্প হয়ে উঠতে পারছেন না, পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ নির্ধারণী শেষ টেস্টে ৩৪ বছর বয়সী জিহান মুবারককে দলে ফিরিয়ে আনাই তার প্রমাণ। চ্যালেঞ্জটা প্রতিপক্ষের জন্য কম নয়। এই সফর করছে পূর্ণশক্তির ভারত।