২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যুবলীগ নেতা আলমগীর হত্যা মামলায় ৪০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ যশোর সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন হত্যা মামলায় ৪০ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দিয়েছে ডিবি পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মঙ্গলবার আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন।

অভিযুক্তরা হলো, যশোর সদর উপজেলার রামনগর গ্রামের শুকুর মোল্লার ছেলে শাহীন ওরফে পাগলা শাহীন, মৃত মকিম খানের ছেলে মহব্বত আলী, মৃত আসমত আলীর ছেলে রফিকুল ইসলাম বিসমিল্লাহ, মান্নান সরদারের ছেলে রেজাউল হাসান, হাকিম বক্সের ছেলে টিএম ওমর ফারুক, রামনগর পুকুরকুল গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে সুমন হোসেন ওরফে পাটালি সুমন, কানা মোশারফের ছেলে রাকিব, মোতাহারের ছেলে মানিক, রামনগর ধোপাপাড়ার জাফর খার ছেলে আকাশ, রামনগর খাঁ পাড়ার আব্দুল জলিলের ছেলে নাজমুল, রামনগর সরদার পাড়ার সাকার ছেলে আহাদ, আনারের ছেলে মুরাদ, মৃত জোহর আলীর ছেলে ওমর আলী, রফিকুলের ছেলে আফজাল, কাজীপুর গ্রামের মৃত মোহাম্মাদ আলী গাছির ছেলে শফিক ওরফে শফিকুল, তরিকুল ইসলাম, তফিকুল ইসলাম, মৃত হাতেম আলীর ছেলে ফসিয়ার গাজী, শাহাদৎ হোসেনের ছেলে সিদ্দিক, মহব্বত আলীর ছেলে মুরাদ হোসেন, ফরহাদ হোসেন, আব্দুল জলিল ও তার ছেলে আলম, আলিম, আবু বক্কারের ছেলে মহিদুল ইসলাম, মৃত আরশাদ আলীর ছেলে জব্বার খান, শুকুর মোল্লার ছেলে মফিজ, জিয়াউর রহমান, মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে সুজন হাসান, শেখ আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে শেখ রাসেল ইসলাম, আদাড় সরদারের ছেলে ইয়াছিন আরাফাত ও শরাফত হোসেন, মৃত আব্বাস আলীর ছেলে আব্দুল গফুর, আতিয়ার সরদারের ছেলে আকরামুল ইসলাম, মৃত আনু সরদারের ছেলে শওকত হোসেন, আকমল সরদারের ছেলে শরিফুল ইসলাম মিন্টু, শওকত হোসেন বেচার ছেলে মিলন হোসেন, মুড়োলি খাঁ পাড়ার ফারুক চাঁনের ছেলে মোশাররফ ও আনছার, আনছার আলীর ছেলে বিল্লাল হোসেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, আলমগীর হোসেন ২০১৪ সালের ২৫ মে বিকেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে রাজারহাট বাজারে যান। সন্ধ্যার দিকে তিনি রোস্তম আলীর চামড়ার দোকানে বসে দলীয় লোকজনের সঙ্গে কথাবার্তা বলছিলেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্থানীয় সন্ত্রাসী শাহিন, মহব্বত, বিসমিল্লাহ ও তার সহযোগীরা জোটবদ্ধ হয়ে আলমগীরকে ঘিরে ফেলে। এরপর তাকে লক্ষ্য করে গ্রথমে গুলি ও পরে বোমা হামলা করে পালিয়ে যায়।