১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টঙ্গীবাড়ীর কলেজ ছাত্র হত্যা মামলার ফাইনাল রিপোর্ট ॥ বাদী হতাশ

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ টঙ্গীবাড়ী উপজেলার রানা শফিউল্লাহ কলেজের ২য় বর্ষের মেধাবী ছাত্র ছাত্তার খুনের মামলার ফাইনাল রিপোর্ট দিয়েছে টঙ্গীবাড়ী থানা পুলিশ। এতে চরম হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছে নিহতের পিতা মামলার বাদী আ. মান্নান দেওয়ান। বুধবার দুপুরে সে টঙ্গীবাড়ী প্রেসক্লাবের কর্মরত সাংবাদিকদের কাছে চরম হতাশা প্রকাশ করে জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমার এলাকার একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট আমার ছেলেকে খুন করলেও আমি পুলিশের কাছে বার বার অভিযোগ করেও কোন আইনগত সহায়তা পাচ্ছি না। টঙ্গীবাড়ী থানা পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়ায় আমি গত ১২ জুলাই মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়ে ওই মামলার আসামিদের গ্রেফতার করার আবেদন করি।

নৌকাডুবিতে স্কুল ছাত্র নিখোঁজ ॥ উদ্ধার ১৭

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ রামু বাঁকখালী নদীতে শিশু বোঝাই একটি নৌকাডুবি ঘটনায় এক স্কুলছাত্র নিখোঁজ রয়েছে। জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ১৭ জনকে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নদীর কচ্ছপিয়া ডাকভাঙ্গা পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, ডাকভাঙ্গা বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ছুটি শেষে ১৮ জন শিশু শিক্ষার্থী একই নৌকাযোগে নদীর উত্তরকূলে নিজ নিজ বাড়িঘরে ফিরছিল। নদীর মাঝখানে গেলে জোয়ারের পানিতে ডুবে যায় নৌকাটি। ঘটনার পর পর স্থানীয়রা ১৭ শিশু শিক্ষার্থীকে ভেসে যাওয়ার সময় উদ্ধার করেছে।

তবে কচ্ছপিয়া ফকিরনিরচর গ্রামের মাওলানা আব্দুর শুক্কুরের দ্বিতীয় শ্রেণী পড়–য়া পুত্র ওসমান গনি এখনও নিখোঁজ রয়েছে। কচ্ছপিয়া নাপিতের চর প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম ও ডাকভাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা সেলিম উদ্দিন জানিয়েছেন, জীবিত উদ্ধার হওয়া শিশুদের মধ্যে ছয়জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বাউফলে শ্রেণীকক্ষে শিক্ষার্থীদের পিটিয়েছে সন্ত্রাসীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাউফল, ৫ আগস্ট ॥ বাউফলের মাদবপুরা নিশিকান্ত (এনকে) মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বুধবার ১১টার দিকে ক্লাস চলাকালে ৫-৬ সন্ত্রাসী শ্রেণীকক্ষে ঢুুকে শিক্ষকের সামনে শিক্ষার্থীদের পিটিয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিলন মিয়া জানান, তিন দিন আগে বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র রাহাত উল্লাহর সঙ্গে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আশরাফুুলের ঝগড়া হয়। ঘটনার দিন উভয়ের মধ্যে মীমাংসা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই দশম শ্রেণীর কতিপয় ছাত্র তার কক্ষে তালা লাগিয়ে দেয়। এর প্রায় এক ঘণ্টা তারা আবার তালা খুলে দেয়। এরপর বেলা ১১টার দিকে স্থানীয় শাহজাদা হাওলাদারের পুত্র রেজা ও আমানের নেতৃতে ৫-৬ সন্ত্রাসী দশম শ্রেণীর কক্ষে প্রবেশ করে শিক্ষক বঙ্কিম চন্দ্র হালদারের সামনে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে শিক্ষার্থীদের পিটিয়েছে।