২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্ব সাঁতারে লিডেকি-ফিমোভার চমক

বিশ্ব সাঁতারে লিডেকি-ফিমোভার চমক

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে চমক দেখালেন আমেরিকার কেটি লিডেকি এবং রাশিয়ার ইউলিয়া ফিমোভা। ভিন্ন ভিন্ন ইভেন্টে দুজনই স্বর্ণ পদক জয়ের স্বাদ পেয়েছেন। বুধবার ১০০ মিটার ফ্রি স্টাইলের ফাইনালে রেকর্ড গড়ে স্বর্ণ পদক জিতেন তিনি। শুধু তাই নয়। পদক জয়ের তিন শ’ মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইলের ফাইনালে খেলারও যোগ্যতা অর্জন করেছেন। গত সোমবার ১৫০০ মিটার ফ্রিস্টাইলের হিটেই নিজের রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। যে কারণে ফাইনালে স্বর্ণ জেতাটা তার জন্য স্বাভাবিকই ছিল। শেষ পর্যন্ত নিজেকে প্রমাণও করলেন দারুণভাবে। তবে তিন শ’ মিনিটের ব্যবধানেই দুটি ইভেন্টে অংশগ্রহণ করাটা যে কঠিন ছিল সেটা অনুমিতই। কিন্তু ১৮ বছর বয়সী এই আমেরিকান বিস্ময় সেটা জেনেই নিজেকে প্রস্তুত করেছেন। এ বিষয়ে স্বর্ণপদক জিতে লিডেকি বলেন, ‘আমার জন্য আজকের (মঙ্গলবার) দিনটা খুবই কঠিন ছিল। কেননা আগে থেকেই জানা ছিল যে দুটি ইভেন্টে অংশগ্রহণ করতে হবে আমাকে। তবে সেভাবে প্রস্তুতি নিতে পারায় আমার জন্য খুব একটা সমস্যা হয়নি। অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হলেও শেষ পর্যন্ত নিজের সেরাটা দিতে পারায় আমি খুবই উচ্ছ্বসিত। আসলে এর অনুভূতিটাই আমার কাছে অন্যরকম এক আনন্দের-উল্লাসের।’

লিডেকির বর্তমান বয়স ১৮। সম্প্রতি ম্যারিল্যান্ড থেকে উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের গ-ি পেরিয়েছেন তিনি। আর এই বয়সেই আমেরিকাকে দারুণভাবে প্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি। বিশ্বের বড় বড় আসরগুলোতে নিজেকে মেলে ধরছেন আশ্চার্যভাবে। মঙ্গলবার স্বর্ণপদক জয়ের মাধ্যমে খুব অল্প সময়েই নবমবারের মতো বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন আমেরিকান এই সাঁতারু। ১৫০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে এটা তার পঞ্চমবারের মতো রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়ার কীর্তি। আর বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে এটা তার তৃতীয় বিশ্বরেকর্ড। এদিন ফিনিশিং লাইন স্পর্শ করতে তার সময় লাগে ১৫ মিনিট ২৫.৪৮ সেকেন্ড।

রাশিয়ায় চলমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মাখানো ছিল চীনের তারকা সাঁতারু সান ইয়াংয়ের। সোমবার ২০০ মিটার ফ্রি স্টাইলের সেমিতে তিনি সবচেয়ে দ্রুততম কোয়ালিফায়ার হন তিনি। আগের দিন সান ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইলের শিরোপা নিজের করে রেখেছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য সান ইয়াংয়ের। খুব বেশিদূর এগিয়ে যেতে পারেননি তিনি। ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে সানকে পরাজিত করে স্বর্ণপদক জিতেছেন জেমস গাই। যে কারণে ১৯ বছর বয়সী সানকে রৌপ্যপদক নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। সানের চেয়ে ০.০৬ সময় আগে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে যায় জেমস গাই এবং স্বর্ণপদক জয়ের আনন্দে উল্লাসে মাতেন তিনি। আর জার্মানির বিশ্বরেকর্ডধারী পাউলে বাইডারম্যান ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে ব্রোঞ্জ জিতেন। তবে আশ্চার্যজনক হলেও সত্য যে এই ইভেন্টে ফেবারিট হিসেবে পুলে নামলেও নিষ্প্রভ রায়ান লোকটি। আমেরিকান এই তারকা সাঁতারু এদিন চার নাম্বারে থেকে প্রতিযোগিতা শেষ করেন। অথচ লোকটি জেমস গাইয়ের আদর্শ, অনুপ্রেরণার নায়ক। আর তারই সঙ্গে খেলবেন তিনি। এ যেন আশ্চর্য এক বিষয়। এ বিষয়ে প্রতিযোগিতার শেষে সংবাদ সম্মেলনে জেমস গাইস বলেন, ‘আমি আসলে কখনই চিন্তা করিনি যে রায়ান লোকটির সঙ্গে একত্রে কোন ইভেন্টে প্রতিযোগিতায় লড়াইয়ে নামব। কেননা সে আমার নায়ক। কাজানে তাকে হারাতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত।’ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা জিততে পেরে আমি খুবই রোমাঞ্চিত।

স্বাগতিক রাশিয়াকে স্বর্ণপদক উপহার দিলেন ইউলিয়া ফিমোভা। নিষেধাজ্ঞার কারণে দীর্ঘ ষোলো মাস পুলের বাইরে ছিলেন তিনি। অথচ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আসার মাত্র পাঁচ মাস পরই দেশকে স্বর্ণ জেতালেন তিনি। বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের ১০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোকে লিথুনিয়ার রুটা মিলুটেইটকে পরাজিত করে স্বর্ণপদক জিতেন তিনি। প্রতিযোগিতায় ১ মিনিট ০৫.৬৬ সেকেন্ডে ফিনিশিং লাইন স্পর্শ করে প্রথম হন তিনি। আর ০.৭০ সেকেন্ড পেছনে থেকে রৌপ্যপদক নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় মিলুটেইটকে। গত লন্ডন অলিম্পিকে তরুণ প্রতিভাবান খেলোয়াড় হিসেবে অসাধারণ পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে নজর কুড়িয়েছিলেন তিনি। কিন্তু লন্ডনের সেই পারফর্মেন্স আর বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে ধরে রাখতে পারেননি রুটা মিলুটেইট।