২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্প্যানিশ না জার্মানদের উৎসব?

  • অডি কাপ ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সেমিফাইনালে নিজ নিজ ম্যাচ জিতে অডি কাপ ফুটবলের ফাইনালে নাম লিখিয়েছে স্বাগতিক জার্মান ক্লাব বেয়ার্ন মিউনিখ ও স্প্যানিশ পরাশক্তি রিয়াল মাদ্রিদ। মঙ্গলবার রাতে আসরের প্রথম সেমিফাইনালে রিয়াল ২-০ গোলে পরাজিত করে ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যাম হটস্পারকে। গ্যালাক্টিকোদের হয়ে গোল করেন ব্রাজিল বিশ্বকাপের গোল্ডেন বুটজয়ী কলম্বিয়ান তারকা জেমস রড্রিগুয়েজ ও ওয়েলস তারকা গ্যারেথ বেল। এই ম্যাচে সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে খেলেন ওয়েলস অধিনায়ক।

দ্বিতীয় সেমিফাইনালে স্বাগতিক বেয়ার্ন ৩-০ গোলে হারায় ইতালিয়ান ক্লাব এসি মিলানকে। বাভারিয়ানদের হয়ে গোল করেন জোয়ান বার্নেট, ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে একমাত্র গোলদাতা মারিও গোয়েটজে ও পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানডোস্কি। দুটি ম্যাচেই অনুষ্ঠিত হয় মিউনিখের এ্যালিয়েঞ্জ এ্যারানায়। শেষ চারের ম্যাচ জয়ী দু’দল বেয়ার্ন ও রিয়াল বুধবার মধ্যরাতেই শিরোপা নির্ধারণী ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে। আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বেয়ার্ন শিরোপা ধরে রেখেছে না প্রথমবারের মতো শিরোপা জয়ের উৎসব করেছে রিয়াল তা ইতোমধ্যে নিশ্চিত হয়ে গেছে।

অডি কাপ দুইদিনের প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতি টুর্নামেন্ট। দুই বছর পর পর এই আসর অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। ২০১৩ সালে সর্বশেষ আসরে চ্যাম্পিয়ন হয় বেয়ার্ন মিউনিখ। সেবার ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটিকে ফাইনালে ২-১ গোলে হারিয়েছিল বাভারিয়ানরা। ২০০৯ সালে শুরু হওয়া এই আসরে প্রতিবছর চারটি করে দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। সরাসরি সেমিফাইনাল থেকে খেলা শুরু হয়। অর্থাৎ দুই ম্যাচ জিতলেই শিরোপার স্বাদ পায় একটি দল। এ পর্যন্ত তিনবার অনুষ্ঠিত হয়েছে এই আসর। এবার হলো চতুর্থ আসর। আগের তিনবারের মধ্যে দুইবার শিরোপা শোকেসে ভরেছে বেয়ার্ন। ২০১১ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বার্সিলোনা।

টটেনহ্যামের বিপক্ষে ম্যাচের দুই অর্ধে দুই গোল পায় রিয়াল। প্রথমার্ধের ৩৬ মিনিটে রড্রিগুয়েজের গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। ইস্কোর ক্রসে হেড করে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন কলম্বিয়ার এই সুপারস্টার। বিরতির পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বেল। ৭৯ মিনিটে কুড়ি গজ দূর থেকে বাঁ পায়ের শটে নিজের সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে গোল করেন ওয়েলসের এই ফরোয়ার্ড। ম্যাচ শেষে রিয়ালের নতুন কোচ রাফায়েল বেনিতেজ দলের পারফর্মেন্সে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তবে তিনি তৃপ্ত নন বলে জানান। শিরোপা জিতেই দেশে ফেরার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সাবেক নেপোলি কোচ।

শেষ চারের আরেক ম্যাচে মিলানের বিপক্ষে শুরু থেকেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় আয়োজক বেয়ার্ন। সাফল্য পেতেও খুব একটা বিলম্ব হয়নি। ম্যাচের ২৩ মিনিটে প্রথম গোল পায় পেপ গার্ডিওলার দল। স্প্যানিশ ডিফেন্ডার জোয়ান বার্নেটের শট মিলানের ডিফেন্ডার ক্রিশ্চিয়ান সাপাটার গায়ে লেগে জালে জড়ায়। মধ্যবর্তী দল বদলে কিছুদিন আগে বেয়ার্নে নাম লেখানো আর্টুরো ভিদাল ও ডগলাস কোস্তা মিলানের রক্ষণে বেশ আতঙ্ক ছড়ান। তবে দ্বিতীয় গোল পেতে ৭৪ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় স্বাগতিকদের। এ সময় জার্মান তারকা মারিও গোয়েটজে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। ৮৫ মিনিটে দলের তৃতীয় গোল করেন পোলিশ ফরোয়ার্ড লেভানডোস্কি।

ম্যাচ শেষে বেয়ার্ন কোচ পেপ গার্ডিওলা বলেন, মিলানের বিপক্ষে এই জয়টা গুরুত্বপূর্ণ। তারা অত্যন্ত শক্তিশালী দল। তবে আমাদের আরও বড় পরীক্ষা অপেক্ষা করছে। ফাইনালে রিয়ালকে হারানো সহজ হবে না। এই ম্যাচটির পরে বোঝা যাবে আমাদের দলের অবস্থান। দুই বছর আগে বার্সিলোনার স্বর্ণ সাফল্য বেয়ার্ন মিউনিখে অব্যাহত রাখার মিশন দুর্দান্তভাবে শুরু করেছিলেন পেপ গার্ডিওলা। সেবার শুরুতেই জিতেছিলেন প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতি টুর্নামেন্ট টেলিকম কাপ। তারপর জয় করেন আরও একটি প্রস্তুতি টুর্নামেন্টে অডি কাপ। এক বছর পর আবারও সেই অডি কাপে লড়েছে গার্ডিওলার বেয়ার্ন।