২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিশু রাকিব হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে উত্তাল খুলনা

  • বিক্ষোভ মানববন্ধনে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ শিশুশ্রমিক রাকিব হত্যার ঘটনায় উত্তাল খুলনা। প্রতিবাদ বিক্ষোভ ও হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে ফুঁসে উঠেছে সর্বমহল। বুধবার সকাল হতে নগরীতে একাধিক বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন হয়েছে। সমাবেশ থেকে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে খুনীদের বিচারের দাবি জানানো হয়। এদিকে রাকিব হত্যা মামলাটি মনিটরিংয়ের জন্য খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মাহাবুব হাকিমকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি মনিটরিং সেল গঠন করা হয়েছে। রাকিব হত্যা মামলার আসামি বিউটি বেগমের রিমান্ডের শুনানি আজ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে।

নগরীর টুটপাড়া কবরস্থানের নিকটবর্তী গ্যারেজে মোটরসাইকেলে হাওয়া দেয়া পাইপের মুখ মলদ্বারে ঢুকিয়ে পেটে হাওয়া দেয়ায় শিশু রাকিবের মৃত্যু হয়। মঙ্গলবার রাতে গ্যারেজ শ্রমিক রাকিবের মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবকাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। আওয়ামী লীগ, বিএনপি, সিপিবি, ওয়ার্কার্স পার্টি, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে নারকীয় এ ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়েছে। রাকিবের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে বুধবার নগরীতে একাধিক মানববন্ধন, সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। এসব কর্মসূচীতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক, মানবাধিকার ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা-কর্মী, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন। খ- খ- মিছিলের সেøাগানে খুনীদের ফাঁসির দাবি জানানো হয়।

বুধবার বেলা ১১টায় নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে জনউদ্যোগ ও মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা খুলনার উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন সমাবেশে প্রথমে বক্তব্য রাখেন নিহত রাকিবের বাবা নূর আলম হাওলাদার ও মা লাকি বেগম। কথা বলতে গিয়ে তারা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। বাকরুদ্ধ পিতামাতা ছেলের হত্যাকারীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানান।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, আওয়ামী লীগ নেতা শ্যামল সিংহ রায়, সাংবাদিক শেখ আবু হাসান, ওয়ার্কার্স পার্টির মফিদুল ইসলাম, ওয়ার্ল্ড ভিশনের প্রভাস বিশ্বাস, মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার আজিজুর রহমান, এ্যাডভোকেট অশোক কুমার সাহা, পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কৃষ্ণপদ দাস, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির আলহাজ মহিউদ্দিন আহমেদ। এদিকে বিকেলে একই দাবিতে ছাত্র ইউনিয়নের উদ্যোগে নগরীতে মিছিল ও পিকচার প্যালেস মোড়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সকালে রূপসা এলাকায় চাইল্ড ফোরামের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়।

সমাবেশে বক্তারা শিশু শ্রমিক রাকিব হত্যা মামলাটি দ্রুত বিচারের আওতায় নেয়ার দাবি জানিয়ে বলেন, কোনভাবে যেন অপরাধীরা আইনের ফাঁকফোকর থেকে বেরিয়ে আসতে না পারে তার জন্য এখন থেকেই প্রশাসনকে সজাগ থাকতে হবে। শিশু রাকিবের পরিবারের পাশে সরকারকে দাঁড়াতে হবে। পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা পরিচালনা করা যথেষ্ট কষ্টকর। তাই মামলাটি বিশেষ বিবেচনায় এনে জনগুরুত্বপূর্ণ মামলা বিবেচনা করে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

এদিকে শিশু রাকিব হত্যা মামলাটিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে এটি মনিটরিং করার জন্য খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) পক্ষ থেকে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহাবুব হাকিমকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি মনিটরিং সেল গঠন করা হয়েছে। এর অপর দুই সদস্য হলেন অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (নগর গোয়েন্দা) শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু ও সহকারী পুলিশ কমিশনার (সদর) হুমায়ুন কবির।

খুলনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস জানান, শিশু রাকিব হত্যা মামলার তিন আসামির সকলেই আটক আছে। আসামি বিউটি বেগমকে আদালতে সোপর্দ করে ১০ দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার রিমান্ডের শুনানি হবে। অপর দুই আসামি গণপিটুনিতে আহত হওয়ায় তারা পুলিশী প্রহরায় খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে তাদের আদালতে হাজির করে রিমান্ডের জন্য আবেদন জানানো হবে।

উল্লেখ্য, এক কর্মস্থল ছেড়ে অন্যস্থানে যোগ দেয়ায় শিশু রাকিবকে তার আগের মালিক শরীফ ও সহযোগী মিন্টু মোটরসাইকেলে হাওয়া দেয়া পাইপের মুখ মলদ্বারে ঢুকিয়ে পেটে হাওয়া দেয়ায় তার মৃত্যু হয়। সোমবার রাতে সে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যায়। খুলনা মহানগরীর টুটপাড়া কবরস্থানের নিকটবর্তী শরীফ মেটাল সাইকেল গ্যারেজে এই বর্বর ঘটনা ঘটে।

নির্বাচিত সংবাদ