১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নানা আয়োজনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ প্রতিকৃতি ও মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন, আলোচনাসভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলসহ নানা আয়োজনে বুধবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ কামালের ৬৬তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। সকাল ৮টায় ধানম-ি আবাহনী ক্লাব প্রাঙ্গণে শহীদ শেখ কামালের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচী শুরু হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য সতীশ চন্দ্র রায়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি, জাহাঙ্গীর কবীর নানক এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ও আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম প্রমুখ। আওয়ামী লীগ ছাড়াও মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগ, ঢাকা জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ, আবাহনী পরিচালকবৃন্দ, আবাহনী সমর্থক গোষ্ঠী, আবাহনী কর্মকর্তা ও খেলোয়াড়বৃন্দসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন শেখ কামালের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

পরে সকাল ৯টায় বনানী গোরস্তানে চিরনিদ্রায় শায়িত শহীদ শেখ কামালের সমাধিতে নেতৃবৃন্দ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সেখানে কোরানখানি, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে আবাহনী ক্লাব প্রাঙ্গণে স্মৃতিচারণ সভার আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে গুরুত্বপূর্ণ ভাষণ দেন। অনুষ্ঠানে ক্রীড়াঙ্গনে বিশেষ অবদানের জন্য ৬ জনকে ‘শেখ কামাল স্বর্ণপদক’ প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ সাংবাদিকদের বলেন, দেশে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে। একটি শান্তিপূর্ণ দেশে মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবি চক্রান্তেরই অংশ। মধ্যবর্তী নির্বাচনের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে তিনি বলেন, দেশ যখন উন্নয়ন, প্রগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে, মধ্য আয়ের দেশে পৌঁছে যাচ্ছে, তখন নতুন করে নির্বাচনের দাবি ক্ষতির কারণ। এটাকে আওয়ামী লীগ চক্রান্ত হিসেবেই দেখছে।

সুযোগসন্ধানীদের দলে প্রয়োজন নেই- নাসিম ॥ আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, সুযোগসন্ধানীদের জায়গা দিয়ে দলকে বড় করার কোন প্রয়োজন নেই। কারণ দলের দুঃসময়ে এসব সুযোগসন্ধ্যানীদের খুঁজে পাওয়া যাবে না। দক্ষ ও সাহসী কর্মীরাই আওয়ামী লীগের জন্য যথেষ্ট। আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, রাজনীতিতে টিকে থাকতে হলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা ছাড়া বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সামনে বিকল্প কিছু নেই। জ্বালাও-পোড়াও কিংবা হুমকি দিয়ে যে কোন লাভ হবে না তা তারা ইতোমধ্যে বুঝতে সক্ষম হয়েছে।

বুধবার দুপুরে ধানম-ি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত শেখ কামালের ৬৬তম জন্মবার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখতে গিয়ে তিনি আরও বলেন, সামনে আরও কঠিন ও চ্যালেঞ্জিং সময় অসছে। সুখের দিন নেই, আত্মতৃপ্তিরও কোন সুযোগ নেই। যদিও আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় আছি। কিন্তু আগামী দিনগুলোতে আরও কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। তাই মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল শক্তিকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। নইলে আবারও ১৫ আগস্টের মতো পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।

তিনি বলেন, আমাদের সামনে কোন প্রতিপক্ষ নেই। প্রতিপক্ষ খুব দুর্বল হয়ে গেছে। আর প্রতিপক্ষ না থাকলে নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব, সংঘাত ও যুদ্ধ শুরু হয়ে যায়। ১৯৭৫ সালেও এমন হয়েছিল। আর সেই সুযোগ পেয়ে বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল মোশতাক ও জিয়ার মতো বেইমান। তাই প্রতিপক্ষকে দুর্বল মনে করে আমরা যদি নিজেদের মধ্যে যুদ্ধ শুরু করি তাহলে আমাদের সামনে বিপদ আসবে। এ কারণে সুযোগসন্ধানীদের দল থেকে বের করে দিতে হবে। ত্যাগী-পরীক্ষিত সাহসী কর্মীদের রাখতে হবে। মনে রাখতে হবে দেশকে এগিয়ে নিতে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। তাই শেখ হাসিনার দুর্নাম হয় এমন কোন কাজ করা যাবে না।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মোঃ আবু কাওছারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, সাবেক সংসদ সদস্য ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, র আ ম ওবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ এমপি, নির্মল রঞ্জনগুহ প্রমুখ।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বিচ্যুত হলে পরাজয়- সংস্কৃতিমন্ত্রী ॥ রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির যুবলীগ আয়োজিত চিত্রশালায় আয়োজিত শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভায় সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বিচ্যুত হলে আওয়ামী লীগের পরাজয় হবে। বঙ্গবন্ধুর চোখের দিকে তাকালে কোন কর্মীর পক্ষে অপরাধ করা সম্ভব নয়। এই বিশ্বাস আমাদের ধারণ করতে হবে। এই বিশ্বাস থেকে যদি আমরা বিচ্যুত হই, চোখ সরিয়ে নেই ওই (বঙ্গবন্ধু) চোখ থেকে, আমাদের পরাজয় অবশ্যম্ভাবী।

যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, শেখ কামাল মানুষের কথা শুনতেন, মর্যাদা দিতেন। সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে কাজ করতেন। এখন তাঁর মতো রাজনীতিকের অনেক অভাব। আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, ফারুক হোসেন প্রমুখ।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক সমাবেশের আয়োজন করে। জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম এ জলিলের সভাপতিত্বে সভায় ইতিহাসবিদ সিরাজ উদ্দীন আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক এম রশিদ চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া বিকেলে বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগও আয়োজন করে পৃথক আলোচনা সভার।