২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কংগ্রেসের ২৫ এমপির বহিষ্কারকে কেন্দ্র করে বিরোধীরা একজোট

এ যেন উল্টো পুরাণ! ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি ভেবেছিল, কংগ্রেসের ২৫ এমপিকে বহিষ্কার করে তাদের এ যাত্রায় একঘরে করে দেয়া গেল। কিন্তু তা হয়নি। উল্টো এই ঘটনায় গোটা বিরোধী শিবির প্রায় এককাট্টা হয়ে গেছে। বুধবার সকালে পার্লামেন্ট ভবনের সামনে কংগ্রেসের অবস্থান ধর্মঘটে জেডি (ইউ)সহ বাম এমপিদের উপস্থিতি সেটাই প্রমাণ করল। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

আগে থেকেই ঠিক ছিল, মঙ্গলবারের মতো বুধবারও কংগ্রেস পার্লামেন্ট ভবনের সামনে অবস্থান ধর্মঘটে বসবে। সেই মতো এদিন সকাল ১০টা নাগাদ সোনিয়া-রাহুল-মনমোহনসহ কংগ্রেসের লোকসভা এবং রাজ্যসভার এমপিরা গান্ধী মূর্তির পাদদেশে হাজির হয়েছিলেন। এনসিপির এমপিরা প্রথম দিনও কংগ্রেসের পাশে ছিলেন। এদিন কংগ্রেস এমপিদের পাশে দেখা গেল জেডি(ইউ), আরজেডি ও বাম এমপিদের। প্রায় সকলের হাতেই ছিল সরকারবিরোধী প্ল্যাকার্ড। এদিন সকালে স্পীকার সুমিত্রা মহাজনের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখায় যুব কংগ্রেসের কর্মী-সমর্থকরা। যদিও তৃণমূল আগে থেকেই জানিয়েছিল ধর্নায় তারা অংশ নেবে না। কাজেই কংগ্রেস এই বহিষ্কারের ঘটনা থেকে ফায়দা তুলতে শুরু করেছে।

ডিভিসি সøুইসগেট খুলে দেয়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

মমতার অভিযোগ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে দামোদর নদীর ওপর স্থাপিত দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশনের (ডিভিসি) মাইথন বাঁধের সøুইস গেটগুলো খুলে দেয়ার ফলে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে বলে মঙ্গলবার অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও বিভিন্ন জায়গায় বন্যার পানিতে আটকা পড়া মানুষের মধ্যে জ্বর, ডায়রিয়া ও চর্মরোগ ছড়িয়ে পড়ার কথা জানা গেছে। খবর ওয়েবসাইটের।

মমতা ব্যানার্জি বিরোধী দলের নেত্রী থাকাকালীন সময়ে বার বার বন্যাকে ‘ম্যানমেড’ বলে অভিহিত করতেন। তবে ক্ষমতায় আসার পরে চার বছর ‘ম্যানমেড’ বন্যা হতে দেননি বলেও দাবি করেন তিনি। কিন্তু এ বার ভারি বর্ষণ এবং ভরা কটাল একসঙ্গে মিলে বন্যার প্রকোপ বাড়িয়েছে। তবে বন্যার বর্তমান পরিস্থিতিকে ডিভিসির সৃষ্টি বলে দাবি করেন তিনি। রবিবার বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন শেষে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কোথায় কোন বাঁধ থেকে কতটা জল ছাড়া হচ্ছে নিজে তার নজর খবর রেখেছেন। পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি বলেন, আমাদের সরকার বিভিন্ন জলাধার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখে। ফলে জল ছাড়লেও আমরা প্রস্তুত রয়েছি। রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে জরুরী বৈঠক শেষে তিনি অভিযোগ করলেন, ডিভিসি অতিরিক্ত জল ছেড়ে রাজ্যকে ডুবিয়ে দিচ্ছে।