১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘পিঁপড়ামানব’-এর আগমন

মারভেল কমিকসের ভক্তদের সঙ্গে ‘এ্যান্ট ম্যান’ বা ‘পিঁপড়ামানব’-এর পরিচয় অনেক দিনের। জনপ্রিয় এই সুপার হিরো সম্প্রতি কমিকস বই থেকে বেরিয়ে রুপালি পর্দায় পা রেখেছে। কয়েকদিন আগেই ছবির প্রথম পোস্টার আর ট্রেলার রিলিজ করা হয়েছে। সেই থেকে শুরু হয়েছে অপেক্ষা। কখন পর্দায় দেখা যাবে এ্যান্ট-ম্যানকে। এবার সেই অপেক্ষার অবসান ঘটছে। ১৭ জুলাই আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেয়েছে ‘এ্যান্ট ম্যান’। ঢাকার স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি ৩১ জুলাই।

কমিকবুক লেখক স্ট্যান লির সৃষ্টি ‘এ্যান্ট ম্যান’ সর্বপ্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৬২ সালে। এ্যান্ট ম্যানের সবচেয়ে মজার একটি দিক হলো এই সুপার হিরো পিঁপড়ার সমান ছোট হতে পারে। আর শক্তিও বেড়ে যায় পিঁপড়ার মতই। শুধু তাই নয়, তিনি তার বিশেষ স্যুটের সঙ্গে সঙ্গে একটি হেলমেট বানান, যা তাকে সাহায্য করে পিঁপড়াদের নিয়ন্ত্রণ করতে। শুরু হয় অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে তার সোচ্চার অভিযান। আর এভাবেই একসময় তিনি হয়ে ওঠেন সুপার হিরো। ‘এ্যান্ট ম্যান’-এর ভূমিকায় সিনেমাটিতে অভিনয় করছেন ফিল রুড। আর ড. হেনরি পাইমের চরিত্রে থাকছেন ‘ওয়াল স্ট্রিট’ খ্যাত মাইকেল ডগলাস। এছাড়াও থাকছেন এভানজেলিন লিলি, কোরি স্টোলের মতো তারকারা। প্রয়োজনে পিঁপড়ার মতোই ছোট হয়ে যাওয়ার অসাধারণ এক ক্ষমতা নিয়ে ‘এ্যান্ট ম্যান’-কে লড়তে দেখা যাবে প্রতিপক্ষের সঙ্গে। ছবিটি পরিচালনা করেছেন পেইটন রিড। বায়োফিজিস্ট ও সিকিউরিটি অপারেশনস সেন্টারের হেড ডক্টর হেনরি ‘হ্যাঙ্ক’ পিম আবিষ্কার করেন, ‘পিম পার্টিকলস’ নামের এমন এক রাসায়নিক পদার্থ যা দিয়ে ইচ্ছামতো নিজের সাইজ পরিবর্তন করা যায়। নিজের এই কীর্তিকে কাজে লাগিয়ে সুপার হিরো হতে চান তিনি। অবশেষে তিনি হয়ে যান ‘এ্যান্ট ম্যান’। তবে এ্যান্ট ম্যানের কাজ থেকে অবসর নেয়ার পর তিনি এই দায়িত্ব তুলে দেন স্কট ল্যাং-এর কাঁধে। জেলখানার কয়েদি স্কট ল্যাং অন্যদের তুলনায় বেশ আলাদা। ব্যাপারটা নজরে আসে ড. হেনরি পাইমের। কারাগার থেকে ছাড়িয়ে স্কটকে নিজের তত্ত্বাবধানে নিয়ে আসেন তিনি। স্কটের দায়িত্ব একটাই- সঙ্কটময় পরিস্থিতিকে সামাল দেয়ার জন্য লড়াই করা আর নিজের পরিবারকেও বাঁচানো। স্কটকে তাই বানানো হয় ‘এ্যান্ট ম্যান’।