১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বর্ষায় গাছ ও মাছ

ষড়ঋতুর মধ্যে বর্ষাকাল এক ভিন্ন দ্যোতনা নিয়ে আসে। মানব মনে তো বটেই প্রকৃতিতেও এর সুস্পষ্ট ছাপ পরিলক্ষিত হয়। প্রকৃতি সজীব হয়ে ওঠে, সতেজতায় ফিরে পায় নতুন প্রাণ। বৃষ্টির অঝোর ধারায় নদী-নালা, খাল-বিল ফিরে পায় পূর্ণতা, মনে হয় এসেছে নতুন যৌবন। মাটিও ফিরে পায় পুনরায় উর্বরা শক্তি। জলাধারের পরিবেশ যেমন সৃষ্টি হয় নতুন মৎস্য চাষের তেমনি মাটিও নব প্রাণের উদ্ভিদ জন্ম ও সমৃদ্ধ করতে হয় প্রস্তুত।

বাংলাদেশের সমভূমি বিশ্বের অন্য সব ভূমির তুলনায় উর্বর এ কথা সর্বজনবিদিত। কোন বীজ রোপণ করলে তা অনেকটা বিনা যতেœই বেড়ে ওঠে। যদি প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা গবাদিপশুর দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত না হয় তবে তা এক সময় সম্পদে পরিণত হতে খুব একটা বেগ পেতে হয় না। পাশাপাশি নদীমাতৃক দেশ হওয়ায় অজস্র খাল-বিল নদী নালা, পুকুর-ডোবায়ও মাছ চাষে বেশি ঝক্কি পোহাতে এবং অর্থ ব্যয়ও করতে হয় না। এক্ষেত্রে শুধু প্রয়োজন সদিচ্ছা ও উদ্যোগ।

এক সময় প্রবাদ ছিল ‘মাছে ভাতে বাঙালী।’ এখন তা অতীত। আমিষের চাহিদা পূর্ণ না হলে আগামী দিনে সুস্থ ও স্বাস্থ্যবান জাতি নিশ্চিত হবে না তা বলাই বাহুল্য। এই বাস্তবতায় মাছের মাধ্যমে অনেকাংশেই আমিষের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। এর জন্য প্রয়োজন ব্যাপক হারে মাছ চাষ। যার অত্যন্ত অনুকূল পরিবেশ এ দেশে বিরাজ করছে। এ ক্ষেত্রেও প্রয়োজন সদিচ্ছা আর উদ্যোগ।

সরকার বৃক্ষরোপণ অভিযান ও মাছ চাষে যথেষ্ট আন্তরিক। এ জন্য চলছে সামাজিক আন্দোলন। বনজ, ফলদ ও ঔষধি বৃক্ষের আবাদ এগিয়ে চলছে। সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানও এ কার্যক্রমে শরিক রয়েছে। এ কথা অনস্বীকার্য যে, কোন উদ্যোগই সরকারের একার পক্ষে সফল করা সম্ভব নয়। এখানে প্রয়োজন বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর সম্পৃক্ততা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের এক্ষেত্রে ভূমিকা ও দায়িত্ব অনেক বেশি। তাদের এলাকায় তারাই ভাল জানেন কোন্্ জায়গা বৃক্ষরোপণ ও মাছ চাষের উপযোগী। এই বর্ষা মৌসুমই মাছের পোনা ছাড়া ও বেড়ে ওঠার সময়। পাশাপাশি গাছের বীজ অঙ্কুরোদগম ও চারা দ্রুত বড় হওয়ারও কাল।

এ উদ্যোগে দেশের দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান, প্রাকৃতিক ভারসাম্য বজায়, খাদ্যে আমিষের যোগান, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে তা নিঃসন্দেহে বলা যায়। শস্য-শ্যামলা, প্রাকৃতিক বৃক্ষে ভরপুর, ছায়া সুনিবিড় সেই অপরূপ বাংলাদেশ আর মাছে ভাতে সুস্থ ও সুস্বাস্থ্যের বাঙালীÑ এই অবস্থা ফিরিয়ে আনতে কোন বড় পরিকল্পনার দরকার হয় না। এই বৃক্ষরোপণ ও মাছ চাষের মতো সামাজিক আন্দোলনে সম্পৃক্ত হওয়াই যথেষ্ট; আর এই বর্ষা মৌসুমই এ কাজ শুরুর উত্তম সময়।