২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বেয়ার্নের শিরোপা অক্ষুণ্ণ রিয়ালকে হারিয়ে

বেয়ার্নের শিরোপা অক্ষুণ্ণ রিয়ালকে হারিয়ে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ উৎসব করল জার্মান পরাশক্তি বেয়ার্ন মিউনিখই। বুধবার রাতে অডি কাপ ফুটবলের শিরোপা ধরে রেখেছে বাভারিয়ানরা। ঘরের মাঠ মিউনিখের এ্যালিয়েঞ্জ এ্যারানায় ফাইনাল ম্যাচে স্বাগতিক বেয়ার্ন ১-০ গোলে পরাজিত করে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদকে। ম্যাচ শেষের মাত্র দুই মিনিট আগে বেয়ার্নের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন পোলিশ তারকা রবার্ট লেভানডোস্কি।

গত আসরেও (২০১৩ সাল) ম্যানচেস্টার সিটিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বেয়ার্ন। সেবারও কোচ ছিলেন পেপ গার্ডিওলা। এবারও স্প্যানিশ এই কোচের হাত ধরে সাফল্যের সন্ধ্যান পেয়েছে বাভারিয়ানরা। বেয়ার্ন যেমন সাফল্য উদ্যাপন করছে, তেমনি ব্যর্থতায় ন্যুব্জ হয়ে পড়েছে রিয়াল। নতুন কোচ রাফায়েল বেনিতেজ আরেকবার ব্যর্থ হলেন গ্যালাক্টিকোদের সাফল্যে ভাসাতে। এর দায়টা অবশ্য তার কাঁধেই বর্তাবে। কেননা তিনি এই ম্যাচে খেলাননি দলের সেরা তিন তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, গ্যারেথ বেল, করিম বেনজেমাসহ আরও কয়েকজন। যে কারণে অনেকটা দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে খেলে রিয়াল। এরপরও বেয়ার্নের সঙ্গে সমানতালেই খেলেছিল অতিথিরা। কিন্তু শেষ মুহূর্তের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় রিয়ালকে।

রিয়ালের সেরা তিন তারকার অনুপস্থিতির সুযোগে নিজেদের মাঠে প্রথমার্ধে আধিপত্য ধরে রেখে খেলে বেয়ার্ন। কিন্তু গোলের দেখা পেতে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় পেপ গার্ডিওলার শিষ্যদের। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে বুন্দেসলিগার চ্যাম্পিয়নদের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন দারুণ ফর্মে থাকা লেভানডোস্কি। ডগলাস কোস্তার ফ্রিকিক থেকে পাওয়া বল লক্ষ্যে পৌঁছে দেন এই পোলিশ স্ট্রাইকার। রোনাল্ডো-বেল-বেনজেমাকে ছাড়া খেলতে নামা রিয়াল লড়াই করলেও তাদের আক্রমণে ছিল না তেমন ধার।

ইতালিয়ান ক্লাব এসি মিলানকে ২-০ গোলে হারিয়ে তৃতীয় হয়েছে ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যাম হটস্পার। এ্যালিয়াঞ্জ এ্যারানায় স্পার্সদের হয়ে গোল দুটি করেন নেসার চাডলি ও টম ক্যারোল। এর আগে টটেনহ্যাম আসরের সেমিফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে একই ব্যবধানে হেরেছিল। তবে স্থান নির্ধারণী মাচে মিলানকে পাত্তাই দেয়নি প্রিমিয়ার লীগের মাঝারি মানের দলটি। ম্যাচের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলতে থাকা টটেনহ্যাম অষ্টম মিনিটে এগিয়ে যায়। ট্রিপ্পিয়ারের যোগান দেয়া বল থেকে দলের প্রথম গোল করেন চাডলি। ১-০ গোলের এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় দলটি। বিরতির পরও নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করে খেলতে থাকে টটেনহ্যাম। ম্যাচের ৭১ মিনিটে জয় নিশ্চিত করা গোলটি করেন ক্যারোল। এবারও বলের যোগানদাতা ছিলেন সেই ট্রিপ্পিয়ার।

এই অডি কাপ হচ্ছে দুইদিনের প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতি টুর্নামেন্ট। দুই বছর পর পর এই আসর অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। ২০১৩ সালে সর্বশেষ আসরেও চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বেয়ার্ন। সেবার ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটিকে ফাইনালে ২-১ গোলে হারিয়েছিল বাভারিয়ানরা। ২০০৯ সালে শুরু হওয়া এই আসরে প্রতিবছর চারটি করে দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। সরাসরি সেমিফাইনাল থেকে খেলা শুরু হয়। অর্থাৎ দুই ম্যাচ জিতলেই শিরোপার স্বাদ পায় একটি দল। এবারসহ চারবার অনুষ্ঠিত হলো এই আসর। আগের তিনবারের মধ্যে দুইবার শিরোপা শোকেসে ভরেছে বেয়ার্ন। এবারসহ তিনবার। ২০১১ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বার্সিলোনা।

শিরোপা জয়ের পর বেয়ার্ন কোচ পেপ গার্ডিওলা বলেন, আমি খুশি এই সাফল্যে। মৌসুম শুরুর আগে এই জয় দলকে অনুপ্রাণিত করবে। রিয়ালকে হারানো সহজ কাজ নয়। তিনি আরও বলেন, তবে আমাদের আত্মতৃপ্তিতে ভোগার সুযোগ নেই। আমাদের আরও অনেক জায়গায় উন্নতি করতে হবে। এর আগে সেমিফাইনাল ম্যাচে মিলানের বিপক্ষে মেজাজ হারিয়ে ফেলেছিলেন সাবেক বার্সিলোনা কোচ। ম্যাচের বিরতিতে খেলোয়াড়েরা যখন ড্রেসিংরুমে ফিরছিলেন, তখন দেখা যায় রেগে খিটমিট করছেন গার্ডিওলা। সে সময় তিনি উত্তেজিত হয়ে কিছু একটা বল ছিলেন মিলানের অধিনায়ক নাইজেল ডি জংকে। উত্তর দিতে যাচ্ছিলেন ডি জংও। কিন্তু সতীর্থরা থামিয়ে দেন ডাচ্ মিডফিল্ডারকে। কিন্তু কী করেছেন ডি জং। যে কারণে খেপে গেলেন যান শান্তশিষ্ট হিসেবে পরিচিত গার্ডিওলা?

ডি জং ম্যাচের ২০ মিনিটে কড়া ট্যাকল করেছিলেন মিডফিল্ডার জশুয়া কিমিশকে। এ মৌসুমেই বেয়ার্নে যোগ দেয়া ২০ বছর বয়সী কিমিশের ম্যাচ শেষ হয় ওখানেই। শঙ্কা আছে কিছুদিন মাঠের বাইরে থাকারও। ডি জংকে কি বলেছিলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে গার্ডিওলার ভাষ্য, কিমিশের জন্য উদ্বেগের কথাটাই আমি ডি জংকে বলেছি। সে পরের ম্যাচটা খেলতে পারবে না। সম্ভবত আরও কিছুদিন বাইরে থাকতে হতে পারে তাকে। সে আমার দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। আগামী ১০ বছরের জন্য জার্মানির অন্যতম সেরা খেলোয়াড়ও হবে সে।