২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গম বিক্রেতার টাকা তুলে নিলেন গুদাম কর্মকর্তা

স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম ॥ রৌমারী সরকারী খাদ্যগুদাম কর্মকর্তার সঙ্গে গম বিক্রেতার বিলের টাকা নিয়ে তুলকালাম কা- ঘটার খবর পাওয়া গেছে। ১২ টন গমের সরকারী মূল্য তিন লাখ ৩৬ হাজার টাকা নিয়ে বিক্রেতার সঙ্গে গুদাম কর্মকর্তার মারামারি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিক্রেতা আর কর্মকর্তাকে ডেকে নিয়ে মিলমিশের চেষ্টাও করেন। এতে আগামী রবিবারের মধ্যে গুদাম কর্মকর্তাকে বিক্রেতার টাকা পরিশোধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রৌমারী খাদ্যগুদামে ওই ঘটনাটি ঘটে। গম বিক্রেতা পরেশ চন্দ্র সাহা ও আবিদ শাহনেওয়াজ তুহিন অভিযোগ করেন, তারা দু’জনে ১২ টন গম গুদামে বিক্রি করেন। বিলের তিন লাখ ৩৬ হাজার টাকার জন্য গত দুই মাস ধরে তাদের ঘোরানো হচ্ছে। গুদাম কর্মকর্তা আবু বক্কর আজ না, কাল আসেন এভাবে ঘোরাতে থাকে। সর্বশেষ ওই দিন গুদামে বিলের টাকার জন্য গেলে গুদাম কর্মকর্তা বলেন, আপনাদের বিলের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

এ নিয়ে তাদের মাঝে ঝগড়া ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। অভিযোগ পাওয়া গেছে, গুদাম কর্মকর্তা ওই ১২ টনের টাকা ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছে। অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে গুদাম কর্মকর্তা আবু বক্কর বলেন, ‘ওই ১২ টন গমের বিল ভাউচার আমি খোকা নামের এক ব্যবসায়ীর হাতে দিয়েছি ওই দুই বিক্রেতাকে দেয়ার জন্য। এখন শুনছি তা দেয়া হয়নি। আমি তার কাছ থেকে টাকা ওঠানোর ব্যবস্থা করছি।’ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শংকর কুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘গুদাম কর্মকর্তাকে তিন দিনের মধ্যে টাকা দিতে বলা হয়েছে।’জেলা খাদ্য কর্মকর্তা আসাদুজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এ ধরনের কোনো ঘটনা আমার জানা নেই।’

খুলনায় রয়েল বেঙ্গল টাইগারের হাড়সহ আটক ২

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ খুলনায় রয়েল বেঙ্গল টাইগারের ৬৯টি হাড়সহ দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর নতুন বাজার লঞ্চ ঘাট থেকে খুলনা থানা পুলিশ তাদের আটক করে।

আটককৃতরা হলো- খুলনার কয়রা উপজেলার গিলাবাড়ী এলাকার আকরাম সর্দারের ছেলে এনায়েত হোসেন (২২) ও একই এলাকার সালাম সানার ছেলে বাবু হোসেন (১৮)। এ বিষয়ে খুলনা সদর থানার উপ-পরিদর্শক দেবাশীষ বলেন, সুন্দরবন থেকে আসা একট্রলার শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর নতুন বাজার লঞ্চ ঘাট এলাকায় পৌঁছলে গোপন খবরের ভিত্তিতে তাতে অভিযান চালানো হয়। ট্রলারটিতে অভিযান চালিয়ে রয়েল বেঙ্গল টাইগারের ছোট-বড় ৬৯টি হাড় উদ্ধার করা হয়। সুন্দরবন হতে হাড়গুলো পাচারের উদ্দেশে আনা হয়।