২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গান ও কবিতায় ছায়ানটের রবীন্দ্রনাথ স্মরণ

  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাঙালীর মননের দিশারী বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রয়াণবার্ষিকী ছিল বৃহস্পতিবার। এ উপলক্ষে শুক্রবার কবিগুরুকে স্মরণ করলো ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন ছায়ানট। শ্রাবণের সন্ধ্যায় তাঁর রচিত গানের সুরে এবং তাঁর সৃষ্ট কবিতার শিল্পিত উচ্চারণে কবিকে নিবেদন করা হলো অঞ্জলি। জানানো হয় তাঁর প্রতি হৃদয় উৎসারিত শ্রদ্ধা-ভালবাসা। অনুষ্ঠানের শুরুতেই সুরকে সঙ্গী করে মঞ্চে আসে ছায়ানটের একঝাঁক শিল্পী। অনেকগুলো কণ্ঠ এক সুরে কবির প্রতি কৃতজ্ঞতা ও প্রণতি জানিয়ে গেয়ে যায়- তোমারেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারা, এ সমুদ্রে আর কভু হবো নাকো পথহারা/যেথা আমি যাই নাকো তুমি প্রকাশিত থাকো, আকুল নয়নজলে ঢালো গো কিরণ ধারা...। সম্মেলক গান শেষে মিলনায়তনভর্তি শ্রোতাকে মুগ্ধ করে একক কণ্ঠের সুরেলা নির্যাস ছড়িয়ে দেন লাইসা আহমদ লিসা। গেয়ে শোনান রবিঠাকুরের প্রকৃতি পর্যায়ের গানÑ অশ্রু ভরা বেদনা দিকে দিকে জাগে...। কবিগুরুর প্রত্যাবর্তনের আকুলতা ব্যক্ত করে পূজা পর্বের গান পরিবেশন করেন সুশান্ত রায়। তাঁর কণ্ঠে গীত হয়Ñ আবার যদি ইচ্ছা কর/আবার আসি ফিরে/দুঃখসুখের ঢেউ খেলানো/এই সাগরের তীরে...। আজ শ্রাবণের পূর্ণিমাতে কী এনেছিস বল/হাসির কানায় কানায় ভরা নয়নের জল শীর্ষক গানটি পরিবেশন করেন ঐশী রুবানা। আর ততক্ষণে রবীন্দ্র সুরের মোহজালে আচ্ছন্ন ছায়ানট সংস্কৃতি ভবনের মিলনায়তন। সেই মায়াবিস্তারী সুরে সিক্ত শ্রোতার অন্তর। এরপর বয়ে যায় শুধুই সুরের মূর্ছনা আর শিল্পিত উচ্চারণে কবিতার শব্দমালা। পার্থ প্রতীম রায় গেয়ে শোনান ‘তুমি রবে নীরবে’, সেমন্তী মঞ্জরী ‘তোমায় নতুন করে পাব বলে’, সুদীপ সরকার ‘আমার প্রাণে গভীর গোপন’, মারুফা মঞ্জরী সৌমী ‘গহন রাতের শ্রাবণ ধারা’, দীপাঞ্জন মুখার্জী ‘যতক্ষণ তুমি আমার’, মাখছুরা আখতার ‘তোরা শুনিস নি কি’, বিক্রম দাস ‘হৃদয় আমার প্রকাশ হল’, দীপ্তি দাস ‘কে দিল আবার আঘাত’ এবং ইফ্ফাত আরা দেওয়ানের কণ্ঠে গীত হয় ‘আজি ঝড়ের রাতে’। এছাড়াও একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন মোস্তাফিজুর রহমান তূর‌্য। গানের মাঝে দোলায়িত ছন্দে কবিতাপাঠ করেন জয়ন্ত রায় ও সুমনা বিশ্বাস। সব শেষে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় অনুষ্ঠান। এর আগে সম্মেলক কণ্ঠে গাওয়া হয় ‘যায় দিন শ্রাবণ দিন যায়’।

বেঙ্গলে প্রিয়ভাষিণীর ভাস্কর্য প্রদর্শনী ॥ প্রকৃতি পূজারী এক ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী। পতিত বৃক্ষের ডাল, কা-, শেকড় কিংবা গুঁড়ি থেকে সংগ্রহ করেন শিল্প সৃজনের রসদ। সেগুলোর ওপর হাতুড়ি-বাটালির ছোঁয়া আর মননের মিশেলে শিল্পী গড়ে তোলেন নান্দনিক সব ভাস্কর্য। তেমন কিছু শিল্পকর্ম নিয়ে শুক্রবার থেকে ধানম-ির বেঙ্গল শিল্পালয়ে শুরু হলো প্রিয়ভাষিণীর ভাস্কর্য প্রদর্শনী। শিরোনাম ‘নামিল শ্রাবণ সন্ধ্যা’। দেশের অগ্রণী শিল্প-প্রদর্শনালয় বেঙ্গল গ্যালারি অব্ ফাইন আর্টস পনেরো বছর পূর্তি উপলক্ষে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।

আইজিসিসির আলোচনা সভায় মমতা শংকর ॥ বিশ্বখ্যাত ভারতীয় নৃত্যশিল্পী উদয় শংকর। কিংবদন্তি এই নৃত্যাচার্য শাস্ত্রীয় নৃত্য আঙ্গিকের প্রথা ভেঙে সৃষ্টি করেছিলেন সৃজনশীল স্বতন্ত্র নৃত্যধারা। আর তাঁরই সুযোগ্য মেয়ে ভারতের প্রখ্যাত নৃত্য ও অভিনয়শিল্পী মমতা শংকর। নৃত্য সংগঠন সাধনা আয়োজিত একটি কর্মশালা পরিচালনার সুবাদে তিনি এখন অবস্থান করছেন ঢাকায়। শুক্রবার সন্ধ্যায় মমতা শংকরকে মুখ্য করে আলোচনা সভার আয়োজন করে ভারতীয় হাইকমিশনের ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র (আইজিসিসি)।

খেলাঘরের স্মরণে এপিজে আবদুল কালাম ॥ স্মরণ করা হলো ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিশিষ্ট বিজ্ঞানী এ পি জে আবদুল কালামকে। সদ্য প্রয়াত বিশ্ববরেণ্য এই ব্যক্তিত্বকে নিবেদিত আলোচনার মাধ্যমে এ স্মরণানুষ্ঠানের আয়োজন করে কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর। শুক্রবার বিকেলে শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্রের মহড়া কক্ষে এ স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়।

স্মরণসভায় অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও পদার্থবিজ্ঞানী অজয় রায় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. ইসতিয়াক এম সৈয়দ। সভাপতিত্ব করেন খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতিম-লীর চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা পান্না কায়সার।

শিল্পাঙ্গনে প্রশান্ত কর্মকারের চিত্রপ্রদর্শনী ॥ প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ চিত্রশিল্পী প্রশান্ত কর্মকার বুদ্ধ। শুক্রবার থেকে ধানম-ির শিল্পাঙ্গন গ্যালারিতে শুরু হলো এই শিল্পীর চিত্রকর্ম প্রদর্শনী। সন্ধ্যায় ‘রেমিনিসেন্স’ শিরোনামের এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন শিল্প-সমালোচক রুবানা হক।

ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠান ॥ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সহযোগিতায় বঙ্গমাতা পরিষদের আয়োজনে শুক্রবার সন্ধ্যায় একাডেমির জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

দৃকে প্রতিবন্ধী শিশুদের চিত্রপ্রদর্শনী ॥ ‘রঙ তুলিতে অজানা কথা’ সেøাগানে শুক্রবার রাজধানীর ধানম-ির দৃক গ্যালারিতে শুরু হয়েছে প্রতিবন্ধী শিশুদের আঁকা চিত্রকর্ম নিয়ে বিশেষ প্রদর্শনী। অটিস্টিক শিশুদের মেধা ও মননের সঙ্গে সকল মানুষকে পরিচয় করিয়ে দেয়া এবং সর্ব সাধারণের মাঝে অটিজম বিষয়ে সচেতনতা বিস্তারের লক্ষ্যে ছাত্রসংগঠন হ্যান্স সার্ফ এক্সেলের তত্ত্বাবধানে সপ্তাহব্যাপী চিত্রপ্রদর্শনীটি সাজানো হয়েছে। এতে অংশ নিয়েছে ঢাকার ১০টি বিশেষ স্কুলের প্রতিবন্ধী শিশুরা। ১২০টি চিত্রকর্ম দিয়ে সাজানো প্রদর্শনী উ™ে^াধন করেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অধ্যাপক আবুল র্বাক আলভী ও ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্র্যান্ড বিল্ডিং ডিরেক্টর জাভেদ আখতার। এ সময় আয়োজক সংস্থা হান্সের চেয়ারম্যান মীর সোহরাবুল হোসেন উপস্থিত ছিলেন। বেশ কয়েক জন অটিস্টিক শিশুরাও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

জাদুঘরে আজ নৃত্যানুষ্ঠান ‘নূপুর বেজে যায়’ ॥ সাধনা উপমহাদেশীয় সংস্কৃতি প্রসার কেন্দ্র। এ কেন্দ্র উপমহাদেশের বরেণ্য শিল্পীদের নিয়ে বিভিন্ন কর্মশালার আয়োজন করে এবং এর অংশ হিসেবে কলকতার বরেণ্য নৃত্যশিল্পী উদয় শঙ্করের কন্যা মমতা শঙ্করের সহায়তায় নৃত্য কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশের নৃত্যশিল্পীদের নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে নৃত্যানুষ্ঠান ‘নূপুর বেজে যায়’। আজ শনিবার সন্ধ্যা ৭ টায় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়েছে। ভতরনাট্যম, কত্থক নৃত্য এবং সমসাময়িক নৃত্যকলার ব্যঞ্জনায় পরিবেশিত হবে ‘নূপুর বেজে যায়’ শীর্ষক নৃত্যানুষ্ঠান।

আবদুল্লাহ আল-মামুনের জন্মবার্ষিকী উদ্যাপিত ॥ বাংলাদেশে নাট্য ইতিহাসের অনন্য এক নাম আবদুল্লাহ আল-মামুন। নাটক রচনা, প্রযোজনা, নির্দেশনা, পরিচালনা এবং সর্বোপরি অভিনয় সর্বক্ষেত্রেই তিনি ছিলেন অনন্য। গত ১২ জুলাই ছিল এ নাট্যব্যক্তিত্বের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী। এ উপলক্ষে শুক্রবার আয়োজন করা হয় ‘আবদুল্লাহ আল-মামুন ও আমাদের সময়ের নাটক’ শীর্ষক সেমিনার ও বিশেষ নাট্য প্রদর্শনীর। বিকেলে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার সেমিনার হলে আয়োজিত সেমিনারে স্মারক বক্তৃতা দেন সাহিত্যিক অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম।