২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিল পাসে সমর্থন পেতে জয়ললিতার বাড়িতে মোদি

তিন সপ্তাহ ধরে অচল ভারতের পার্লামেন্ট। সামনের সপ্তাহে হাতে রয়েছে মাত্র চার দিন। এই অবস্থায় সরকার চাইছে, পণ্য ও পরিষেবার মতো গুরুত্বপূর্ণ সংস্কারের বিলটি অন্তত যেন পাস করিয়ে নেয়া যায়। আর তার সমর্থন যোগাড় করতে শুক্রবার চেন্নাইয়ে তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার বাড়িতে গিয়ে মধ্যাহ্নভোজ সারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই সঙ্গেই দিল্লীতে অরুণ জেটলি বৈঠক করেন এনসিপি প্রধান শারদ পাওয়ারের সঙ্গে। সমাজবাদী পার্টির নেতা নরেশ অগ্রবালসহ অন্য বিরোধী দলের নেতাদের সঙ্গেও আলোচনা করেছেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা অনলাইনের।

চলতি অধিবেশনের গোড়া থেকেই কংগ্রেস আক্রমণাত্মক। তবু সরকার একটি বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী ছিল। শেষ লগ্নে হলেও পণ্য ও পরিষেবা বিল অন্তত পাস করিয়ে নেয়া যাবে। কিন্তু গত তিন সপ্তাহ ধরে যেভাবে কংগ্রেসের এককাট্টা মনোভাবের জন্য সংসদ স্তব্ধ হয়ে গেছে, শেষ সপ্তাহেও তা বহাল থাকার আশঙ্কা করছে কেন্দ্র। শনিবার শেষ হয় কংগ্রেসের এমপিদের বরখাস্তের মেয়াদ। সোমবার থেকে আরও জোরালো আক্রমণে নামার ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছে কংগ্রেস। এই অবস্থায় রাজ্যসভায় অর্থ বিলগুলো পাস করানোর পাশাপাশি পণ্য ও পরিষেবা কর বিলটিও পাস করাতে চাইছে সরকার। এই বিল পাস করানোয় আপত্তি ছিল জয়ললিতার। তাই তামিলনাড়ুতে শুক্রবার সরকারী অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার ফাঁকে জয়ললিতার সঙ্গে পুরনো সম্পর্ক একবার ঝালাই করে নিলেন মোদি। অসুস্থতার কারণে জয়ললিতা দীর্ঘদিন বাড়ির বাইরে বেরোচ্ছেন না। প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালামের শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানেও যাননি তিনি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে চলে গিয়েছিলেন জয়ললিতা। তিনিই নিজের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন মোদিকে। মোদিও সেটি গ্রহণ করে বন্ধুত্বের বার্তা দেন। সেই সঙ্গে পণ্য ও পরিষেবা কর এবং জমি বিল নিয়ে জয়ললিতার আশঙ্কা মেটানোর চেষ্টাও করেন।