২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পার্বতীপুরে ১৫ পরিবারকে নির্যাতনের অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, পার্বতীপুর, ৮ আগস্ট ॥ পার্বতীপুরে মোমিনপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুরে নিম্নবর্ণের ১৫ হিন্দু পরিবার স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নামধারী নেতার দাপট, অত্যাচার, নির্যাতনে টিকতে পারছে না। বসতবাড়ি ছেড়ে যাওয়ার জন্য মাস্তান বাহিনীর চাপ ও হুমকিতে তারা ভীতসন্তস্ত্র। তাদের জীবনের নিরাপত্তা নেই । জনপ্রতিনিধিরা তাদের সমস্যার কথা শোনে না। মাস্তানবাহিনীর ভয়ে তারা থানায় যেতে পারে না। এই ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের রামুরানী (৬০), বাসন্তিরানী (৬০), মিনারানী (৩৫), সম্পারানী (৩৫) ও মিনতি রানী (৫০) তাদের সম্প্রদায়ের পক্ষে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় পার্বতীপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন। তারা উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, ৬০Ñ৭০ বছর আগে এলাকার গোবিন্দপুর মৌজার ৪০৪ খতিয়ান ও ৬৩৭ দাগে ৭১ শতক খাস তপসীলবর্ণিত জমিতে তারা বংশপরম্পরায় বসবাস করে আসছেন। সরকারী দলের নামধারী ওই নেতা গায়ের জোরে ইতোমধ্যেই ৪৬ শতক জায়গা দখল করে নিয়েছে। এখন ২৫ শতক জায়গায় কুঁড়েঘরে তারা কোণঠাসা অবস্থায় রয়েছে। এখান থেকেও উচ্ছেদ করতে সন্ত্রাসীবাহিনী লেলিয়ে দেয়া হয়েছে। প্রতিনিয়ত রান্নার চুলা, বাড়ির বেড়া, মুরগি ও ছাগলের খুপড়ি ভেঙে দেয়া হয়। নলকূপ পাড়ে গোসলের সময় চাটির বেড়া ফাঁক করে মহিলাদের অশ্লীল কটূক্তি করা হয়। রাতে বাড়িতে এলোপাতাড়ি ঢিল মেরে আতঙ্ক সৃষ্টি ও বিনা কারণে কোন্দল সৃষ্টি করে মারপিট করা হয়। সম্প্রতি ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে গিয়ে জেলা প্রশাসক স্থানীয় তহশীলদারকে এই ১৫ পরিবারের পুনর্বাসনের স্থায়ী বন্দোবস্তের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। এই কাজের কোনই অগ্রগতি হয়নি বলে তারা জানান।

কলাপাড়ায় চাঁদার দাবিতে শ্রমিককে মারধর ॥ প্রতিবাদে ধর্মঘট

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া, ৮ আগস্ট ॥ চাঁদার দাবিতে কুপিয়ে জখম করার প্রতিবাদে শনিবার বেলা ১১টায় কলাপাড়া প্রেসক্লাবের সামনে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করেছে অটো শ্রমিকরা। মানববন্ধন শেষে বক্তব্য রাখেন আজিজ ফরাজী, ছোবাহান বিশ^াস, আব্দুর রহমান প্রমুখ। এছাড়া শনিবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য অটো শ্রমিকরা ধর্মঘট পালন করছে। পৌরশহরসহ উপজেলার সর্বত্র অটো চলাচল বন্ধ রয়েছে। চাঁদার দাবিতে সবুজ (১৮) নামের শ্রমিককে শুক্রবার রাতে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করার প্রতিবাদে তারা ধর্মঘটের ডাক দেয়। তারা অভিযোগ করে, অটো নিয়ে কলেজ রোড অতিক্রম করতে গেলে সাপ্তাহিক এবং মাসিক চাঁদা দিতে হয়। সমিতির নামে জনৈক রুহুল এ চাঁদা আদায় করে। চাঁদা দেয়া না হলে শ্রমিকদের মারধর করে টাকা-পয়সা ছিনিয়ে নেয়া হয়। এদিকে অটো ধর্মঘটের ফলে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ চরমে। এব্যাপারে কলাপাড়া থানার ওসি আজিজুর রহমান জানান, মামলা দেয়া হলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।