২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনি ॥ শিক্ষক সাসপেন্ড

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী ছাত্রকে তুচ্ছ ঘটনায় বেত্রাঘাত করে গুরুতর আহত করার অভিযোগে শনিবার সকালে অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। ঘটনাটি জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের।

চিকিৎসাধীন ছাত্র শুভ পাল জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলা ক্লাস চলাকালীন সহপাঠীকে খাতা দেয়ার অজুহাতে তাকে বেধড়ক বেত্রাঘাত করেন শিক্ষক কাওসার হোসেন। ঘটনার পর তার সহপাঠীরা প্রধান শিক্ষকের কাছে ঘটনা জানিয়ে তাকে ছুটি দেয়ার অনুরোধ করে। প্রধান শিক্ষক তাকে ছুটি না দিয়ে বেত্রাঘাতের ঘটনা কাউকে না বলার জন্য শাসিয়ে দেন। বাড়িতে গিয়ে শুভ অসুস্থ হয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। পরবর্তীতে অভিভাবকরা আহত শুভকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক জহিরুল ইসলাম বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শনিবার সকালে অভিযুক্ত শিক্ষক কাওসার হোসেনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

হবিগঞ্জে শচীন্দ্র কলেজে সংঘর্ষ ॥ ছুরিকাঘাতে ছাত্র নিহত

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ৮আগস্ট ॥ তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে জ্যেষ্ঠ সহপাঠীর সাথে তর্কের জের ধরে শনিবার দুপুরে শহরতলী সংলগ্ন বানিয়াচঙ্গ উপজেলাধীন শ্রী শচীন্দ্র কলেজে দু’দল ছাত্রের মধ্যে তুমুল সংর্ঘষ এবং পরবর্তীতে সুমন মিয়া (১৮) নামে এক ছাত্রকে ছুরিকাঘাতে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। আহত হয়েছে অন্তত ১০ জন। নিহত সুমন সংশ্লিষ্ট কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্র এবং একই উপজেলাধীন ইসলামপুর গ্রামের মুখলেছুর রহমানের পুত্র। পুলিশ ও নানা সূত্র জানায়, তুচ্ছ বিষয় নিয়ে নিহত সুমনের সঙ্গে একই কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র শিহাবের কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে ওই দিন দুপুর সোয়া ১২ টার দিকে দু’দল ছাত্রের মধ্যে অর্ধঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষ হয়। আর এই সংঘর্ষ শেষে সংশ্লিষ্ট কলেজ গেটে সুমনকে নাভির নিচে দুর্বৃত্তরা ছুরিকাঘাত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। রক্তাক্ত অবস্থায় সহপাঠীরা সুমনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হবিগঞ্জ কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ৮ আগস্ট ॥ হবিগঞ্জ জেলা কারাগারে আটক নুর আলম (৪১) নামে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এক কয়েদির মৃত্যু হয়েছে। সে জেলার মাধবপুর উপজেলার জয়নগর গ্রামের আব্দুল হকের পুত্র। জেলার জানান, শনিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে কারাগারের অভ্যন্তরে কাজ করার সময় নূর আলম তার বুকে ব্যথা অনুভব করেন।