১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এবার হত্যার হুমকি ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীকে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের বীরাঙ্গনা, খ্যাতনামা ভাস্কর্যশিল্পী, মৌলবাদী অপশক্তির বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠ ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী ও তার পুত্র কারু তিতাসকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়েছে। শনিবার বিকেলে তাদের মোবাইল ফোনে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি হুমকির পাশাপাশি অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। ব্লগার নিলয় হত্যাকা-ের পরদিন এ ধরনের হুমকি দেয়ায় তারা মনে করছেন এটা উগ্র গোষ্ঠীরই কাজ। এ বিষয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে রাতে ধানমন্ডি থানায় জিডি করেন তাঁরা।

জানা যায়, ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী বিকেল সোয়া পাঁচটায় ধানমন্ডির বেঙ্গল গ্যালারীতে একটি চিত্র প্রদর্শনীতে ভক্ত দর্শকদের যখন অট্রোগ্রাফ দিচ্ছিলেন, ঠিক তখনই তার মোবাইল ফোন বেজে ওঠে। তিনি কলটি রিসিভ করার সঙ্গে সঙ্গেই অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ আসতে থাকে তার কানে।

প্রিয়ভাষিণী বলেন, এমন নোংরা ভাষা মোবাইলে কেউ বলতে পারে সেটা আমার বিশ্বাস করতেও কষ্ট হচ্ছে। যে কারণে আমি তাড়াতাড়ি কলটা কেটে দেই। এবং নাম্বারটাও ডিলিট করে ফেলি।

ফেরদৌশী প্রিয় ভাষিনী জানান, পরে বাসা থেকে তার ছেলে কারু তিতাস তাকে ফোন করে জানান তাকে একই কায়দায় হুমকি দেয়া হয়েছে। তার আগে ছেলের ফোনেই হুমকিটা প্রথম আসে। এ দুটো হুমকিই একই ব্যক্তি এবং একই টার্গেট নিয়ে করা হয়েছে।

জানতে চাইলে কারু তিতাস জনকণ্ঠকে বলেন,“বিকেল পাঁচটা ৭ মিনিটে আমার মোবাইল ফোনে একটা কল আসে ০১৭৩৯৩০১১২৯ নাম্বার থেকে। আমি কলটা রিসিভ করতেই শুনি বিশ্রী ভাষায় সব গালিগালাজ। এক পর্যায়ে বলতে থাকে তোর মাকে সতর্ক করে দিবি যেন বেশী বাড়াবাড়ি না করে। তাহলে লাশ ফেলে দেয়া হবে।”

তিতাস জানান, এ ধরণের হুমকিতে আমি আতংকিত নই। ভয় হচ্ছে মাকে নিয়ে। কারণ ওদের টার্গেট মা। যিনি একাত্তরের পরাজিত শক্তি ও জঙ্গী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সারাজীবনই সোচ্চার। এ জন্যই তাকে হুমকি দেয়া হয়েছে।

থানায় জিডি বা আইনী আশ্রয় নেয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিতাস বলেন, কি হবে এসব করে। জিডি কি কারোর নিরাপত্তা দিতে পারে। দুর্ভাগ্য নিলয়ের, যিনি থানা পুলিশের কাছে নিরাপত্তা চেয়েও পাননি। ঘাতকরা তাকে মেরেই ছেড়েছে। এরা তো এখনো তৎপর। মায়ের ক্ষতি তো তারাই করবে।

কেন এই হুমকি জানতে চাইলে ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী জনকণ্ঠকে বলেন, আগের দিন একটা প্রাইভেট টেলিভিশনের টক শো’তে ব্লগার নিলয় হত্যাকান্ডের বিষয়ে আমি খুব কড়া কথা বলেছি। ব্লগারদের ওপর কারা বার বার একই কায়দায় শনিবার এ ধরনের হামলা চালায় সে প্রশ্ন রেখেছিলাম। বিস্ময় প্রকাশ করেছিলাম। পরদিন আজই হুমকি পেলাম। এটা কারা করেছে তা বুঝতেই পারছেন।

্এ বিষয়ে ধানম-ি থানার ওসি মো. নূরে আজম মিয়া জনকণ্ঠকে বলেন, “এ ঘটনা শোনার পর থেকেই হুমকিদাতাদেরকে সনাক্ত করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে। হুমকির বিষয়ে থানায় জিডি করার প্রস্তুুতি চলছে । এ ছাড়া ফেরদৌসী পরিবারের নিরাপত্তার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। কোন সমস্যা হবে না ইনশাল্লাহ।”

নির্বাচিত সংবাদ