২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সুযোগ সন্ধানীরা দলে ঢুকে যেতে পারে, সচেতন থাকতে হবে ॥ নাসিম

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়ামের অন্যতম সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, রাজনীতির মাঠে আমাদের কোন প্রতিপক্ষ নেই, এমনটি ভাবলে ভুল হবে। প্রতিপক্ষ তাদের ভুলের কারণে দুর্বল হয়ে গেছে। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আবারও দলে সুযোগ সন্ধানী, অনুপ্রবেশকারী ও মতলববাজরা ঢুকে যেতে পারে। এদের দলে কোন প্রয়োজন নেই। এদের সুযোগ দিয়ে দলের কলেবর বৃদ্ধি করা যাবে না। এ ব্যাপারে আমাদের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। সামনে কঠিন সময়, আত্মতৃপ্ত হওয়ার সুযোগ নেই। শেখ হাসিনার হাতকে কখনও দুর্বল করা যাবে না। শনিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন। হল শাখা ছাত্রলীগ জাতীয় শোক দিবস এবং বঙ্গমাতা বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব স্মরণে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি দারুস সালাম শাকিলের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ইয়াজ আল রিয়াদের উপস্থাপনায় আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, হলের ভারপ্রাপ্ত প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক আবদুস সবুর খান, আওয়ামী উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক রাশেক রহমান, ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেইন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শাখার সভাপতি আবিদ আল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স প্রমুখ।

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া চুপ করে বসে নেই উল্লেখ করে এ সময় মোহাম্মদ নাসিম আরও বলেন, তিনি সময় নিয়ে অপেক্ষা করছেন। সময় হলেই দেখা যাবে তিনি আবার নতুন চক্রান্ত নিয়ে মাঠে নেমে গেছে। চক্রান্ত সে করবেই। চক্রান্তের মধ্যেই তার জন্ম হয়েছে। যিনি পনেরোই আগস্ট নিজের জন্মদিন পালন করেন, তাকে দুনিয়ার কেউ বিশ্বাস করতে পারে না। এই বয়সে কেউ জন্মদিনের কেক কাটতে পারে? প্রশ্ন করেন তিনি।

দলে অনুপ্রবেশকারী ঢোকা অসম্ভব নয় উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, এখন সবাই আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগ করে। পনেরো আগস্টের আগে এ অবস্থা হয়েছিলো। সবাই বাকশাল, আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ হয়ে গিয়েছিলো। ফলে কি হলো? আমাদের মহামানবকে আমরা রক্ষা করতে পারলাম না আমাদের দুর্বলতার কারণে। মোশতাক, জিয়ার মতো বিশ্বাসঘাতক সুযোগ নিয়েছিলো এবং আঘাত করেছিলো রাতের অন্ধকারে। এদের সম্পর্কে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। বিশ্বাসঘাতকদের কোন সুযোগ দেয়া চলবে না।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়েছে শেখ হাসিনার হাত ধরে। যেদিন শেখ হাসিনা ফিরে এসেছিলেন দেশে আমরা তখন স্লোগান দিতাম শোককে শক্তিতে পরিণত করতে হবে। সেই স্লোগানটি বাস্তবায়ন করেছেন শেখ হাসিনা। শোককে শক্তিতে পরিণত করে অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন। ১৫ আগস্টের হত্যাকারীদের বিচার সম্পন্ন করেছেন। অনেকের বিচার কার্যকর করেছেন। আমরা যা বিশ বা ত্রিশ বছর আগে চিন্তা করতে পারিনি। শেখ হাসিনার সমুদ্রের মতো শোক ছিল, তাকে শক্তিতে পরিণত করে বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার খুনীদের বিচার করেছেন। বাংলাদেশকে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে উন্নত ও শক্তিশালী দেশ হিসেবে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। সর্বসাধারণের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। এ শক্তিকে কোনভাবেই দুর্বল করা যাবে না। আমাদের একটা ভুল শেখ হাসিনার শক্তিকে দুর্বল করে দিতে পারে। যা আরও একটি পনেরোই আগস্ট সৃষ্টি করার জন্য পথ তৈরি করে দিতে পারে।

দেশে ব্লগারদের হত্যা করা হচ্ছে, শিশুদের হত্যা করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা কোথায় চলে যাচ্ছি, আমাদের মানসিকতা কোথায় চলে যাচ্ছে? সামাজিক অবক্ষয় এর পিছনে চক্রান্ত হলে লক্ষ্য রাখতে হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের আরও শক্ত মানসিকতা ধারণ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আপনার নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন, এখনও করবেন। এ দুস্কৃতকারীদের সবাইকে গ্রেফতার করতে হবে। আমি আর্জেন্টিনার সমর্থক কারণ দলটির শুরুতে ’আ’ আছে। আর আ মানেই আওয়ামী লীগ। ২০১৯ সালে নির্বাচন হবে। খালেদা জিয়াকে অনুরোধ করবো আপনি নির্বাচনে আসেন। ২০১৯ সালে যখন খেলা হবে তখনও আওয়ামী লীগ আবারও জয়যুক্ত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

বঙ্গমাতার ৮৫তম জন্মবার্ষিকীতে ছাত্রলীগের শ্রদ্ধা নিবেদন ॥ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে শনিবার সকালে রাজধানীর বনানীর কবরস্থানে তাঁর সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।