২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আদালতে যাচ্ছেন না খালেদা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার হাজিরা দিতে সোমবার বকশিবাজারের বিশেষ আদালতে যাচ্ছেন না বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। স্বাস্থ্যগত কারণে তিনি দুর্নীতির দুই মামলায় হাজিরা দিতে পারছেন না বলে জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী ও বিএনপির গণশিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া।

খালেদা জিয়ার উপস্থিতিতে ৩ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার বাদী ও প্রথম সাক্ষী দুদকের উপ-পরিচালক হারুন-অর রশিদকে আসামি খালেদা জিয়া ও জিয়াউল হক মুন্নার পক্ষে জেরা করেছেন তাদের আইনজীবীরা। বাকি আসামিদের পক্ষে জেরার দিন ধার্য রয়েছে সোমবার। একইসঙ্গে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলারও বাদী ও প্রথম সাক্ষী হারুন-অর রশিদের জেরাও হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার আসামি ছয়জন। খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য আসামীরা হলেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ও খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান, মাগুরা থেকে নির্বাচিত সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, সাবেক প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মূখ্য সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান। আসামিদের মধ্যে ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান মামলার শুরু থেকেই পলাতক। বাকিরা জামিনে আছেন।

অন্যদিকে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আসামি চারজন। খালেদা জিয়া ছাড়া অভিযুক্ত অপর তিন আসামি হলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছ চৌধুরীর তৎকালীন একান্ত সচিব ও বর্তমানে বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান। এর মধ্যে জিয়াউল ইসলাম মুন্না ও মনিরুল ইসলাম খান জামিনে আছেন। হারিছ চৌধুরী মামলার শুরু থেকেই পলাতক।