২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিলয় হত্যার বিচারের দাবিতে শাহবাগে দিনভর প্রতিবাদ

নিলয় হত্যার বিচারের দাবিতে শাহবাগে দিনভর প্রতিবাদ

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ একের পর এক ব্লগার হত্যার মধ্য দিয়ে দেশে মুক্তচিন্তার টুঁটি চেপে ধরা হয়েছে। বিচারহীনতার সংস্কৃতির জন্যই এ হত্যাকা- বন্ধ হচ্ছে না। আর প্রতিবাদের সময় এখন নেই, এখন প্রতিরোধ গড়ে তোলার সময়। মুক্তমনা লেখক ও ব্লগার নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায় নিলয় হত্যাকা-ের প্রতিবাদ ও নিহত সকল ব্লগারদের খুনীদের বিচারের দাবিতে রবিবার দিনভর কর্মসূচী পালন করেছে বিভিন্ন সংগঠন। বিকেল সাড়ে চারটায় রাজধানীর শাহবাগ প্রজন্ম চত্বরে রাস্তায় কালো কাপড়ে জড়ানো ব্যানার দিয়ে বানানো ছোট্ট মঞ্চে ব্লগার নিলয়ের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাতে ভিড় জমায় সর্বস্তরের জনগণ। ব্লগার নিলয় ছিল গণজাগরণ মঞ্চের একজন সক্রিয় কর্মী। গত শুক্রবার গোড়ানে নিজ বাসভবনে তিনি উগ্রবাদীদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হন। আর এ খুনের মধ্য দিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে গড়ে ওঠা গণজাগরণ মঞ্চ তাদের গত সাড়ে তিন বছরের আন্দোলনে ২২ জন কর্মীকে হারালো। এর মধ্যে এ বছরের বিগত পাঁচ মাসে চারজন খুন হয়েছেন।

বিকেল ৪টা ৩৭ মিনিটে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডাঃ ইমরান এইচ সরকারের নেতৃত্বে গণজাগরণ মঞ্চের নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এরপর নিহত নিলয়ের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপরই শুরু হয় নিহত নিলয় শ্রদ্ধা জানানো। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। শ্রদ্ধা জানায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম, বাংলাদেশ উদীচি শিল্পীগোষ্ঠী, জনউদ্যোগ, যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, বিপ্লবী ছাত্র সংহতি, নিজেরা করি, মুক্তিযোদ্ধা যুব কমা-, জাগো নারী ডটকম প্রমুখ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

শ্রদ্ধা নিবেদন করে মঞ্চের মুখপাত্র ডাঃ ইমরান এইচ সরকার বলেন, এটা খুব মারত্মক ব্যাপার কোন সহযোদ্ধার লাশ কাঁধে বয়ে নিয়ে যাওয়া। এটা খুব কষ্টের ব্যাপার।

সম্মিলিত সাংস্কৃতি জোটের সাধারণ সম্পাদক হাসান আরিফ বলেন, বাসায় ঢুকে মানুষ হত্যা আমাদের জন্য একটা অশনি সঙ্কেত। তাই এখনি সতর্ক হয়ে এ উগ্রবাদী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ নয় প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

বাসদ সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান বলেন, এটা শুধু ব্লগার হত্যা করা নয়, এটা হলো মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, গণতন্ত্র ও সভ্যতাকে হত্যা করা।

শ্রদ্ধা নিবেদন পর্ব শেষে সন্ধ্যায় একটি শোক মিছিল বের করে মঞ্চের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি শাহবাগ থেকে শুরু হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা ঘুরে আবার শাহবাগে গিয়ে শেষ হয়।

সম্মিলিত সাংস্কৃতি জোটের সমাবেশ ॥ নীলাদ্রি হত্যার বিচার চেয়ে রবিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে সমাবেশ করেছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট। সমাবেশ থেকে তারা প্রতিবাদ নয় এখন থেকে তারা উগ্রপন্থীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তোলার আহ্বান জানান। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, সাধারণ সম্পাদক হাসান আরিফ, গণসঙ্গীত শিল্পী ফকির আলমগীর প্রমুখ।

ছাত্রজোটের বিক্ষোভ ॥ ব্লগার নীলাদ্রি চট্টোপ্যাধায় নিলয় হত্যার বিচার দাবিতে রবিবার দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে প্রগতিশীল ছাত্র জোট। মিছিলটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে সামানে সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। সমাবশে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি স্নেহার্দ্রি চক্রবর্তী রিন্টু বলেন, হত্যাকারী অবিলম্বে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনা না হলে এই মৌলবাদী শক্তি যেভাবে বিস্তার লাভ করছে, ভবিষ্যতে এর পরিণতি আরও ভয়াবহ রুপ নেবে।

নিলয় হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার দাবি করে সংগঠনের ঢাবি শাখার সভাপতি রাশেদ শাহরিয়ার বলেন, একের পর এক ব্লগারকে হত্যা করা হচ্ছে কিন্তু আমরা হত্যাকরীদের এখন পর্যন্ত গ্রেফতার বা বিচার করতে পারিনি। এই বিচারহীনতার কারণে মৌলবাদীরা ব্লগার হত্যায় উৎসাহ জোগাচ্ছে। এই হত্যাকা-ের দায়ভার সম্পূর্ণ সরকারকে নিতে হবে বলেও জানান তিনি।

সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম জিলানী শুভ, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম সোহেল প্রমুখ। এছাড়া এইদিন দুপুরে একই দাবিতে পৃথক বিক্ষোভ মিছিল করেছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট।