১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জ্যাম-জেলির কয়েক পদ

  • মেরিনা চৌধুরী

পেয়ারার জেলি

যা লাগবে : পেয়ারা ৪০টি, পানি ৩০ কাপ, চিনি দেড় কেজি বা দুই কেজি, সাইট্রিক এ্যাসিড হলে এক থেকে দেড় চা চামচ বা কাগজিলেবুর রস ৩ টেঃ চামচ, এক লিটার কাঁচের বোতল ২টি।

যেভাবে করবেন : পেয়ারা ধুয়ে টুকরো করে পানি দিতে হবে। ঢাকনা দিয়ে দুই ঘণ্টা সিদ্ধ করতে হবে। কখনও নাড়া যাবে না। পেয়ারা সেদ্ধ হয়ে পানি শুকিয়ে অর্ধেক হলে নামিয়ে নিতে হবে। পাতলা কাপড় ২ ভাঁজ করে একটি হাঁড়ির মুখে কাপড় বেঁধে তার ওপর পেয়ারা ঢেলে দিতে হবে। পেয়ারা নাড়া যাবে না। আলতভাবে চিপে রস নিংড়ে নিতে হবে। পেয়ারার রস মেপে প্রতিকাপ রসের জন্য ১ কাপের তিন ভাগের এক কাপ চিনি দিতে হবে। পেয়ারার রস চিনি দিয়ে উথলে নিতে হবে। হাঁড়ি ফেনায় ভরে গেলে সাইট্রিক এ্যাসিড বা লেবুর রস দিতে হবে। বাটিতে পানি নিয়ে এক ফোঁটা জেলি ফেলতে হবে। পানিতে জেলি জমলে চুলা থেকে নামিয়ে পরিষ্কার বোতলে ভরে ঠা-া হলে মুখ বন্ধ করতে হবে। জেলি বেশি ঘন করে নামালে ঠা-া হবার পর শক্ত হয়ে যাবে।

পাকা আমের স্কোয়াস

যা লাগবে : পাকা আম ৬টি, চিনি ২ কেজি, সাইট্রিক এ্যাসিড ৩ টেঃ চামচ, সোডিয়াম বেনজোয়েট ৫ গ্রাম, লেমন ইয়োলো কালার, স্কোয়াসের বোতল কয়েকটা ।

যেভাবে করবেন : বোতল, বোতলের ঢাকনা ফুটিয়ে নিতে হবে, শুকিয়ে রাখতে হবে।

চিনিতে ৮ কাপ পানি দিয়ে সিরা করতে হবে। সিরা ফুটে উঠলে আধা চা চামচ সাইট্রিক এ্যাসিড দিতে হবে। উপরের ময়লা-ফেনা তুলে সিরা ছেঁকে নিতে হবে। আমরা ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে চালনিতে চেলে নিতে হবে। আমে এক কাপ পানি মিশিয়ে চুলায় দিতে হবে। চারভাগের এক চা চামচ সাইট্রিক এ্যাসিড দিতে হবে, ফুটে ওঠার আগে গরম ফুটানো চিনির সিরা দিতে হবে। সিরা দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়তে হবে, কিন্তু ফুটানো যাবে না। বাকি সাইট্রিক এ্যাসিড গুলে দিতে হবে। প্রয়োজনে সামান্য রং দেয়া যায়। অল্প গরম পানিতে সোডিয়াম বেনজোয়েন্ট গুলে আমে দিতে হবে। খুব ভাল করে নেড়ে চুলা থেকে নামাতে হবে। স্কোয়াস সামান্য ঠা-া হলে বোতলে ভরে বোতল ঠা-া হলে মুখ বন্ধ করে পরিষ্কার শুকনা ঠা-া জায়গা বা ফ্রিজে রাখতে হবে। এখন সারা বছর আম পাওয়া যায়। বাজারে প্রচুর কাঁচা, পাকা আম পাওয়া যাচ্ছে।

লেবুর স্কোয়াস

যা লাগবে : কাগজিলেবুর রস সোয়া এককাপ, পানি সোয়া এককাপ, চিনি আড়াই কাপ, সাইট্রিক এ্যাসিড চারভাগের এক চা চামচ।

যেভাবে করবেন : লেবুর (১২-১৫টি থেকে) রস ছেঁকে ১ কাপ রস হবে।

পানি ও চিনি মিশিয়ে সিরা জ্বাল দিতে হবে। সাইট্রিক এ্যাসিড দিতে হবে। নাড়া যাবে না। উপরে ফেনা ও ময়লা জমলে তুলে ফেলতে হবে। সিরা বেশি ফুটানো যাবে না। পাতলা ছাঁকনা দিয়ে ছেঁকে নিতে হবে। গরম সিরায় লেবুর রস মেশাতে হবে। সামান্য গ্রীন বা লেমন ইয়েলো কালার মেশাতে হবে যেন খুব হাল্কা রং হয়। গরম স্কোয়াস বোতলে ভরতে হবে। হয়ে যাবে লেবুর স্কোয়াস।

আনারসের জ্যাম

যা লাগবে : আনারস ২ কাপ, চিনি দেড় কাপ।

যেভাবে করবেন : আনারস লম্বায় দু’ফালি করে চামচ দিয়ে কুরিয়ে নিতে হবে। আনারস ও চিনি একসঙ্গে জ্বাল দিতে হবে। সিরা ঘন হলে নামিয়ে বোতলে ভরে ঠা-া হলে বোতলের মুখ মোম গলিয়ে জ্যাম ঢেকে দিয়ে মুখবন্ধ করতে হবে। হয়ে যাবে আনারসের জ্যাম।

কাগজিলেবুর আচার

যা লাগবে : কাগজিলেবু ১০টি, সিরকা ১ কাপ, লবণ ১ টেঃ চামচ, পাঁচফোরণ ভেজে গুঁড়া করা ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া তিনভাগের এক চা চামচ, সামান্য হলুদ।

যেভাবে করবেন : লেবুর উপরের খোসা চাকু দিয়ে ছিলে তারপর যদি লেবুর গায়ে সবুজ চোচা থাকে তাহলে নতুন মাটির পাতিল বা খসখসে জায়গায় কাগজিলেবু ঘষে নিতে হবে। ধুয়ে লবণ মেখে দুইদিন রোদে রেখে দিতে হবে। লেবু বয়ামে ভরার আগে সিরকা ও বাকি উপকরণ দিয়ে নেড়েচেড়ে বয়ামে ভরে মুখ বন্ধ করে কয়েকদিন রোদে রাখতে হবে। হয়ে যাবে কাগজিলেবুর আচার।

আম-গাজরের জ্যাম

যা লাগবে : গাজর ১ এক কেজি, চিনি ৬ কাপ, কাঁচা আম (মাঝারি ৬টি), লাল-সবুজ সামান্য রং।

যেভাবে করবেন : গাজর ও কাঁচা আম খোসা ছাড়িয়ে ধুয়ে নিতে হবে। সবজি কুরুনিতে গাজর ও আম আলাদা কুরিয়ে নিতে হবে। ৩ কাপ পানি দিয়ে গাজর ঢেকে ২০-২৫ মিনিট সেদ্ধ করতে হবে। গাজর সেদ্ধ হলে আম দিতে হবে। আরও ১ কাপ পানি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। ৫-৭ মিঃ পরে আম সেদ্ধ হলে চিনি দিতে হবে। মাঝে মাঝে নাড়তে হবে। রং সামান্য দিয়ে নাড়তে হবে। প্রায় ১৫-২০ মিনিট পর সিরা ঘন হলে জ্যাম আঁঠালো অথচ নরম থাকতে নামিয়ে পরিষ্কার বয়ামে ভরতে হবে। ঠা-া হলে মুখ বন্ধ করে পরিষ্ক্রা জায়গায় রাখতে হবে।