১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র নিয়ে টিআইবির অজ্ঞতায় শিক্ষামন্ত্রীর বিস্ময়

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রণয়ন ও সরবরাহের বিষয়ে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, তারা যে কত বড় অজ্ঞ, প্রশ্ন প্রণয়নের বিষয়টি জানে না, সেটি না জেনেই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রশ্ন যে বিজিপ্রেসে ছাপার পর মন্ত্রণালয় ও বোর্ডে আসেই না তা জানা নেই টিআইবির। বিজিপ্রেস থেকে ডিসিরা নিরাপত্তা দিয়ে স্ব স্ব এলাকায় প্রশ্ন নেন সে সম্পর্কেও ধারণা নেই। অথচ তারা বলে বসলেন, বিজিপ্রেস থেকে প্রশ্ন বোর্ডে আসার পর নাকি ফাঁস হয়।

রবিবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ উপলক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। সাংবাদিকদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, না জেনে তারা (টিআইবি) কথা বলেন, সংবাদমাধ্যমেও সেগুলো ফলাও করে প্রচার করা হয়। প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি যখন ঘটেছে, আমি নিজেও আপনাদের ফোন করে জানিয়েছি। অথচ তারা বলেছে, আমি নাকি বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চেয়েছি। প্রশ্ন প্রণয়ন থেকে শুরু করে যে ৪০টি ধাপের কথা তারা বলেছে, সেটা ঠিক নয়। বিজিপ্রেস থেকে প্রশ্ন নিয়ে যান জেলা প্রশাসক। অত্যন্ত নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে প্রশ্ন নিয়ে যাওয়ার কাজ করা হয়। পরে সেসব প্রশ্ন সরাসরি পরীক্ষার হলে পৌঁছে দেয়া হয়। অথচ টিআইবি তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, বিজিপ্রেস থেকে প্রশ্ন বোর্ডে আসে। কত বড় অজ্ঞ হলে এ ধরনের কথা বলা যায়। টিআইবির প্রতিবেদন বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা প্রশ্ন ফাঁসের সম্ভাব্য ক্ষেত্র হিসেবে বিজিপ্রেসকে চিহ্নিত করি। তদন্ত করে আমরা সেটা চিহ্নিত করেছি। এ ঘটনা থেকেই তারা এ কথা বলেছে। আসলে জানে না কিছুই। টিআইবি যেসব সুপারিশ করেছে সেগুলো আমাদেরই পরামর্শ ছিল প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর জন্য। তারা সেগুলো নিজেদের সুপারিশ হিসেবে উল্লেখ করেছে বলেও দাবি করেন শিক্ষামন্ত্রী।