২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইএসকে রক্ষা করছে তুরস্ক- পিকেকে

অনলাইন ডেস্ক ॥ কুর্দি যোদ্ধাদের উপর হামলা করে তুরস্ক ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গিগোষ্ঠীকে রক্ষার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) শীর্ষ নেতা সেমিল বায়িক।

বিবিসিকে তিনি বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান কুর্দিদের সাফল্যে বাধা দেওয়ার জন্য আইএসের সাফল্য চান।

কুর্দি যোদ্ধারা, যাদের মধ্যে পিকেকেও অন্যতম, সিরিয়া ও ইরাকে আইএসের বিরুদ্ধে উল্লেখযোগ্য সাফল্য দেখিয়েছে।

কিন্তু অনেকগুলো পশ্চিমা দেশের মতো তুরস্কও পিকেকে-কে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে।

তুর্কিরা দাবি করে তারা ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে লড়াই করছে, কিন্তু আসলে তারা পিকেকের সঙ্গে লড়াই করছে,” বলেন বায়িক।

আইএসের বিরুদ্ধে পিকেকের লড়াইকে সীমিত রাখার জন্যই তারা এসব করছে, তারা আইএসকে রক্ষা করছে।

“আইএসের তাণ্ডবের পেছনে আছেন (প্রেসিডেন্ট) এরদোয়ান। তার লক্ষ্য হল তাদের বিরুদ্ধে কুর্দিদের অগ্রযাত্রা রোধ করা। এভাবে তুরস্কে তুর্কি জাতীয়তাবাদকে এগিয়ে নেওয়াই তার লক্ষ্য,” বলেন বায়িক।

জুলাইয়ে একইসঙ্গে উত্তর ইরাকে পিকেকে-র শিবিরগুলোতে ও আইএস জঙ্গিদের অবস্থানগুলোতে বিমান হামলা চালানো শুরু করে তুরস্ক। এর মাধ্যমে পিকেকে-সঙ্গে চলা তুরস্কের অস্ত্রবিরতিও শেষ হয়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাতে এই দুটি পক্ষের দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা লড়াই ফের শুরু হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

পর্যবেক্ষরা বলেছেন, আইএসের তুলনায় অনেক বেশি হামলার মুখে পড়েছে পিকেকে-র যোদ্ধারা।

কুর্দিদের সাফল্য প্রতিরোধের কার্যক্রম আড়াল করার জন্যই তুরস্ক আইএসের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে, এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তুর্কি কর্মকর্তারা।

অপরদিকে আইএসের বিরুদ্ধে ‘সর্বাত্মক লড়াইয়ের’ পরিকল্পনা করছে বলে বুধবার জানিয়েছে তুরস্ক।