১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চতুর্থ দফায় ফিরেছেন ১৫৯ বাংলাদেশী

নিজস্ব সংবাদদাতা, উখিয়া॥ মিয়ানমারের জলসীমা থেকে উদ্ধার চতুর্থ দফায় আরো ১৫৯ বাংলাদেশীকে হস্তান্তর করেছে মিয়ানমার ইমিগ্রেশন বিভাগ। সোমবার বেলা একটার দিকে হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে বলে জানান বিজিবি’র ১৭ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. রবিউল ইসলাম।

বিজিবি টিমটি আজ সকাল সাড়ে ১০টায় বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ঘুমধুম জিরো পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমারের অভ্যন্তর প্রবেশ করে।

এরপর ঢেকিবনিয়া বিজিপি ক্যাম্পে মিয়ানমার ইমিগ্রেশন বিভাগের সাথে পতাকা বৈঠকে মিলিত হয় বিজিবি। এর আগেও মিয়ানমার ইমিগ্রেশন ন্যাশনাল রেজিষ্ট্রেশন ডিপার্টমেন্ট ও বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড বিজিবির মধ্যে একাধিক বার পতাকা বৈঠক অনুষ্টিত হয়। পতাকা বৈঠকে মিয়ানমারের পক্ষে ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টের উপ-পরিচালক সো-নাইন ও বাংলাদেশের পক্ষে ১৭ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মো: রবিউল ইসলাম নেতৃত্ব দেন।

ফেরতের তালিকায় ১৫৯ জনের মধ্যে ১০ জেলার বাসিন্দা রয়েছে। তৎ মধ্যে ১৬ কিশোর রয়েছে বলে আর্ন্তজাতিক অভিবাসন সংস্থার ন্যাশনাল প্রোগ্রাম অফিসার আসিফ মুনির জানিয়েছেন। উদ্ধার হওয়া এসব বাংলাদেশী নাগরিক মধ্যে নরসিংদী জেলার ৮০ জন, নারায়নগঞ্জ ১২ জন, কিশোরগঞ্জ ১৩ জন, ফরিদপুর ১২ জন, হবিগঞ্জ ১৭ জন, নওগাঁ ২ জন, নাটোর ১ জন, শরিয়তপুর ১ জন, বরিশালের ১ জনসহ চট্টগ্রামের ১৮ জন বিভিন্ন বয়সের অভিবাসী রয়েছে। বিজিবি জানায়, ফেরতকৃত নাগরিকদের কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে নিয়ে আসা হচ্ছে। সেখান থেকে যাচাই বাচাই করে যার যার গন্তব্যে পাঠানো হবে।