২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নওগাঁয় দেনা পরিশোধ না করতে বন্ধুর স্ত্রীকে হত্যা

নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ, ১০ আগস্ট ॥ রবিবার রাতে জেলার আত্রাইয়ে ধারের দুই লাখ টাকা আত্মসাত করতে প্রবাসী বন্ধুর স্ত্রীকে কৌশলে বিষের ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যা করেছে প্রতিবেশী নান্টু নামে পানের দোকানি। সোমবার সকালে পুলিশ প্রবাসীর স্ত্রী হীরা খাতুনের (৩৩) লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। সেই সঙ্গে ঘাতক নান্টুকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভোঁপাড়া গ্রামের দুবাই প্রবাসী জয়বর আলীর বন্ধু আত্রাই স্টেশনের পান দোকানি নান্টু জয়বরের অনুপস্থিতিতে তার পরিবারে অবাধ যাতায়াত শুরু করে। প্রবাসী বন্ধুর স্ত্রী হীরার সঙ্গে গড়ে ওঠে নান্টুর গভীর সম্পর্ক। নান্টু ভোঁপাড়া গ্রামের ওসমান আলীর পুত্র। একপর্যায় জয়বরের স্ত্রী হীরা খাতুনকে পটিয়ে-পাটিয়ে তার কাছ থেকে দুই লাখ টাকা ধার নেয় নান্টু। দীর্ঘদিন হলেও নান্টু সেই টাকা পরিশোধ করে না। অজ্ঞাত কারণে হঠাৎ করেই তাদের সম্পর্কে ফাটল ধরে। এক ছেলে ও দুই মেয়ের জননী হীরা সেই টাকার জন্য সম্প্রতি নান্টুকে চাপ সৃষ্টি করে। এতে নান্টু ধারের টাকা মেরে দিতে কৌশল অবলম্বন করে। রবিবার রাত ৯টার দিকে পানের দোকান বন্ধ করে নান্টু হীরার বাড়িতে যায়। সে হীরাকে বলে, ‘তোমার হাঁপানী রোগ আছে। আমি কবিরাজের কাছ থেকে তোমার জন্য দামী ওষুধ এনেছি।

খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভাল হয়ে যাবে।’ এই বলে নান্টু নিজেই এক গ্লাস পানিতে ট্যাবলেট গুলে নিজ হাতে হীরাকে খাইয়ে দেয়। এরপর হীরাকে ঘুমোতে বলে সেখান থেকে সটকে পড়ে নান্টু। এদিকে নান্টুর ট্যাবলেট খাওয়ানোর ৫/৭ মিনিটের মধ্যে হীরা বমি করতে শুরু করে। রাতেই তাকে আত্রাই হাসপাতালে নেয়া হলে রাত ১১টার দিকে সে মারা যায়। সোমবার নিহত হীরার ভাই জুয়েল মৃধা বাদী হয়ে আত্রাই থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে। আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল লতিফ খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘাতক নান্টুকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ