২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তবু তৃপ্ত রজার্স, ওয়েঙ্গারের সতর্কবার্তা

  • ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ, কাউটিনহোর গোলে লিভারপুলের শুভসূচনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সৌভাগ্যপ্রসূত জয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলে শুভসূচনা করেছে লিভারপুল। রবিবার রাতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে দ্য রেডসরা ১-০ গোলে পরাজিত করে স্বাগতিক স্টোক সিটিকে। ম্যাচ শেষের চার মিনিট আগে লিভারপুলের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ফিলিপ কোটিনহো।

এই জয়ে মধুর প্রতিশোধও নেয়া হয়েছে লিভারপুলের। কেননা গত মৌসুমে লীগে নিজেদের শেষ ম্যাচে তুলনামূলকভাবে খর্বশক্তির দল এই স্টোক সিটির কাছে ৬-১ গোলে হেরেছিল তারা। যে কারণে পয়েন্ট টেবিলের ষষ্ঠস্থানে থেকে মৌসুম শেষ করতে হয় ব্রেন্ডন রজার্সের দলকে। স্টোক সিটির কাছে পরাজয়ের সেই ক্ষতটা মৌসুমের শেষেও বার বার আঘাত করেছে লিভারপুলকে। দলটির কোচ নিজের মুখেই স্বীকার করেছেন বিষয়টি। সেই স্টোককে তাদেরই মাঠে হারিয়ে এবার মিশন শুরু করতে পারায় বেজায় খুশি লিভারপুল কোচ। ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেডের কাছে ২-০ গোলে হেরে মিশন শুরু করার পর আর্সেনাল কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গার শিষ্যদের সতর্ক করে দিয়েছেন।

স্টোক সিটির মাঠ ব্রিটান্নিয়া স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের সঙ্গে লিভারপুলের লড়াই জমে উঠে। তবে প্রথমার্ধে কোন গোল হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধেও গোলের দেখা মিলছিল না। উপস্থিত ২৮ হাজার দর্শক হয়ত ড্রর ভাবনাই করছিলেন। কিন্তু ম্যাচের ৮৬ মিনিটে দুর্দান্ত গোল করে লিভারপুলকে স্বস্তির জয় পাইয়ে দেন কোটিনহো। ডি বক্সের বাইরে বল পেয়ে বেশ কিছুটা আড়াআড়ি দৌড়ে অনেকখানি দূর থেকে জোরালো শটে গোলটি করেন ব্রাজিলের এই মিডফিল্ডার। ম্যাচ শেষে লিভারপুল কোচ ব্রেন্ডন রজার্স বলেন, স্টোক সিটি বরাবরই শক্ত প্রতিপক্ষ। এগারো সপ্তাহ আগের হারের স্মৃতিটা এখনও তাড়া করে আমাদের। ৬-১ গেলের সেই হারটা ছিল অবিশ্বাস্য। তিনি আরও বলেন, ওই পরিস্থিতির শিকার হওয়াটা ছিল দুর্বিসহ। তবে বার বার এমনটি হয় না। আমি আশা করছি এই জয় গোটা মৌসুমে দলকে অনুপ্রাণিত করবে।

চেলসি থেকে আর্সেনালে নাম লেখানো তারকা গোলরক্ষক পিটার চেকের নৈপুণ্যে রীতিমতো হতাশ দলটির ভক্ত-সমর্থকরা। এবার চড়া দামে স্টামফোর্ড ব্রিজ থেকে গানার্স শিবিরে এসেছেন চেক। কিন্তু ইপিএলের মৌসুম শুরুর ম্যাচে আর্সেনালের হারের জন্য দায়ী অনেকটাই চেক এই গোলরক্ষক। চেকের ওপর অতিরিক্ত ভরসা করার জন্য তোপের মুখে পড়েছেন আর্সেনালের ৬৫ বছর বয়সী কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারও। চলতি মৌসুমের শুরুতে আকাশ ছোঁয়া মূলে দলে ভেড়ানো হয় চেককে। চেলসির সাবেক এই গোলরক্ষক গোলবারে ভরসার প্রতীক হবেন এমনটিই প্রত্যাশা আর্সেনাল কর্তৃপক্ষের। কিন্তু ইপিএলের প্রথম ম্যাচেই তার অমার্জনীয় ভুলের খেসারত দিয়ে হেরে যাওয়ার পর সিদ্ধান্তটা নিয়ে চলছে বিস্তর সমালোচনা। চেককে দলে নেয়া আদৌ ঠিক হয়েছে কিনা, এই প্রশ্ন এখন উত্তর লন্ডনের আনাচে-কানাচে! সমর্থকেরা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রশ্ন তুলেছেন তার অন্তর্ভুক্তি নিয়ে। কেউ কেউ বলছেন, এক কোটি পাউন্ডে একজন বৃদ্ধ গোলরক্ষককে দলে আনার চেয়ে একই দামে কয়েকজন তরুণ উদীয়মান ভাল খেলোয়াড়ের দলভুক্তি কি বেশি প্রয়োজনীয় ছিল না? এই প্রশ্নের উত্তর অবশ্য জানা নেই অগণিত আর্সেনাল সমর্থকদের।

তবে এই দুঃসময়ে চেকের পাশেই আছেন ওয়েঙ্গার। ওয়েস্টহ্যামের কাছে হারের পর তিনি বলেন, চেককে দোষ দিয়ে লাভ নেই। ওকে একা দোষারোপ করাটা খুব অন্যায়। দলের প্রতি খেলোয়াড়ই এই বিপর্যয়ের জন্য দায়ী। সবাই বাজে ফুটবল খেলেছে। ওয়েঙ্গার আরও বলেন, শুরু থেকেই দলের খেলায় অস্বস্তি ছিল। আমরা নিজেরাই নিজেদের সামনে বাধার পাহাড় সৃষ্টি করেছি। এই হারের দায় সবার।