২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিষেধাজ্ঞা-জরিমানার বেড়াজালে ক্রুইফ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অন্যায় করলে তার শাস্তি পেতেই হবে। এই যেমন শাস্তি পেলেন লোডভিক ডি ক্রুইফ। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের এই ডাচ্ কোচের শাস্তি হচ্ছে এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা এবং সাড়ে আট হাজার সুইস ফ্রাঙ্ক জারিমানা।

ঘটনাটা গত ১১ জুনের। ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে কিরগিজস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে রেফারির সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েছিলেন ক্রুইফ। এর পরিণাম হয়েছে তার ওপর শাস্তির খ—গ নেমে আসা। ওই খেলায় চলার সময়েই তাকে মাঠ থেকে বের করার নিদের্শ প্রদান করেন সিঙ্গাপুরের রেফারি সুখবীর সিং। এর ফলে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার নিয়ম অনুযায়ী পরবর্তী ম্যাচে তাজিকিস্তানের বিপক্ষে দর্শকের ভূমিকায় থাকতে হয় ডাচ্ম্যান ক্রুইফকে। এখানেই ইতি ঘটতে পারত ঘটনার। কিন্তু তা হয়নি। ওষুধের যেমন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে, তেমনি ক্রুইফের এই শাস্তিরও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়েছে। সেটা হলোÑ সেই ম্যাচের শাস্তির সঙ্গে যোগ হয়েছে আরও এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা। এতে করে ফিফা বিশ্বকাপ ও এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের ম্যাচে আগামী ৩ সেপ্টেম্বর অস্ট্রেলিয়ার পার্থেও তাকে দর্শকের ভূমিকায়ই থাকতে হবে। কোচ হিসেবে দাঁড়াতে পারবেন না ডাগআউটে। এর সঙ্গে আরও সাড়ে ৮ হাজার সুইস ফ্রাঙ্কও জরিমানা দিতে হবে তাকে। মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ। প্রশ্ন উঠেছে কে দেবে এই জরিমানার অর্থ? বাফুফে, না ক্রুইফ? ‘জরিমানার টাকা ক্রুইফকেই নিজের পকেট থেকেই দিতে হবে।’ পরিষ্কার জবাব সোহাগের।

শাস্তি পেলেও ক্রুইফের বাংলাদেশ দলের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া যাওয়া কিন্তু বাতিল হচ্ছে না। এ উপলক্ষে আগামী ১৭ আগস্ট বাংলাদেশ আসছেন ক্রুইফ।

অবশ্য এ ধরনের শাস্তি পাওয়ার অভিজ্ঞতা আগেও ছিল ক্রুইফের। এর আগে ২০১৩ সালে নেপালে অনুষ্ঠিত সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে ডাগআউটে দাঁড়িয়ে রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করায় ‘মার্চিং অর্ডার’ পেয়েছিলেন তিনি। জানা গেছে, ক্রুইফ যেহেতু পার্থের ম্যাচে কোচ হিসেবে ডাগআউটে দাঁড়াতে পারবেন না, তাই বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে তার পরিবর্তে কোচের দায়িত্ব পালন করবেন সহকারী কোচ সাইফুল বারী টিটু।