২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিশুদের ভারি স্কুলব্যাগ বহন কেন নিষিদ্ধ করা হবে না?

  • হাইকোর্টের রুল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জ্ঞান যখন ধারণ করার বিষয়, তখন জ্ঞানের ‘বহর’ সামলাতে গিয়ে নাকাল শিশুরা। এ যেন জ্ঞানের বাহ্যিক ভা-ার টানার ব্যাপার, যা টানতে গিয়ে বোঝা টানার মত নুইয়ে পড়ছে শিশুরা। প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার নামে শহরের স্কুলগুলোতে অতিরিক্ত বই পড়ানোর মতো অসুস্থ প্রতিযোগিতা এখন চোখ সওয়া হয়ে গেছে নগরবাসীর। আর প্রতিযোগিতার শিকার কোমলমতি শিশুরা প্রতিদিনের ‘হোমওয়ার্ক‘ তৈরির চাপ সামলে ব্যাগে করে অতিরিক্ত বইয়ের বোঝা টেনে স্কুল যেতে বাধ্য হচ্ছে। তবে শিশুদের এভাবে গাদা গাদা বই খাতা টেনে বেড়ানো থেকে মুক্তি দিতে মঙ্গলবার রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

গত মাসে ভারতের মহারাষ্ট্রে ১০ শতাংশের বেশি ওজনের স্কুলব্যাগ শিশুদের দিয়ে না টানতে দেয়ার আদেশ দিয়ে রেজ্যুলেশন পাস করা হয়েছে। সেই উদাহরণ টেনে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করা হয়। সেই প্রেক্ষিতে শিশুদের দেহের ওজনের ১০ শতাংশের বেশি ভারি স্কুলব্যাগ নিষিদ্ধ ও প্রি-প্রাইমারি শিশুদের স্কুলব্যাগ বহন না করতে আইন প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে এ রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার জনস্বার্থে সুপ্রীমকোর্টের তিন আইনজীবীর দায়ের করা এক আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মোঃ আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। দুই সপ্তাহের মধ্যে আইন সচিব, শিক্ষা সচিব, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

গত রবিবার রিট আবেদন করেন তিন আইনজীবী এসএম মাসুদ হোসেন দোলন, জিয়াউল হক ও নোয়ারুল করিম।

জানা গেছে, জ্ঞানকে বোঝা হিসেবে শিশুদের পিঠে চাপিয়ে না দিতে গত মাসে ব্যতিক্রমী এক নির্দেশনা জারি করেন ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার। শিশুদের স্কুলব্যাগে অতিরিক্ত বইয়ের বোঝা না চাপাতেও অভিভাবকদের আদেশ দেন মহারাষ্ট্র আদালত। মহারাষ্ট্র সরকার তাদের রাজ্যসভায় জুলাই মাসে এ সংক্রান্ত একটি রেজ্যুলেশন পাস করেছে। তাতে বলা হয়েছে, প্রতিটি স্কুলগামী শিশুকে তার দেহের ওজনের ১০ শতাংশের বেশি ভার স্কুলব্যাগে দেয়া যাবে না। অভিভাবকরা এই নির্দেশ মেনে চলছেন কিনা তা শিশুরা ক্লাসে আসার পর পরীক্ষা করবেন শিক্ষকরা। এর মধ্যে ৫ বছর বয়সী গ্রেড ওয়ানের কোন শিশুরই স্কুলব্যাগে আড়াই কেজির বেশি ওজন চাপানো যাবে না। ১২ বছর বয়সী গ্রেড আটের শিশুদের স্কুলব্যাগের ওজন ৪ কেজি ২০০ গ্রামের বেশি হতে পারবে না।

এদিক বিশেষজ্ঞদের মতে, স্কুলের ভারি ব্যাগ টানার জন্য শিশুদের মধ্যে ক্লান্তি ও অবসাদ দেখা দেয়। বিশেষ করে স্কুল ছুটির পর সারাদিন ক্লাসের ধকল সামলানো শিশুদের জন্য ভারি ব্যাগটি বহন করে বাসায় ফেরা রীতিমতো কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। এছাড়া অতিরিক্ত বইয়ের ভার টানার কারণে শিশুদের শারীরিক কাঠামোতেও ত্রুটি দেখা দেয়। অনেক শিশু সাময়িকভাবে পিঠ ব্যথা বা কোমর ব্যথায় আক্রান্ত হলেও কোন কোন শিশুর মেরুদ-ে স্থায়ী ত্রুটি দেখা দেয়।