২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বেসামরিক মানুষের জন্য ‘সেফ জোন’ চায় তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্রের ‘না’

অনলাইন ডেস্ক ॥ তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী আহমেত দোভুতোলু বলেছেন সিরিয়ার সংঘাতের ফলে বেসামরিক মানুষদের জন্য নিরাপদ এলাকা প্রস্তুত করতে তার দেশ দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

বিবিসির কাছে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে প্রেসিডেন্ট আসাদের বাহিনী বা আইএস জঙ্গিদের হামলা থেকে তার ভাষায় সিরিয়ার ‘মধ্যপন্থী সশস্ত্র গ্রুপ’ বেসামরিক মানুষকে রক্ষা করবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন ওয়াশিংটন ঐ এলাকা থেকে আইএসকে হটানোর একটা টেকসই পদক্ষেপের কথা বলছে, কোন সেফ জোন বা নিরাপদ এলাকার কথা ভাবছে না।

আহমেত দোভুতোলু বলেছেন সিরিয়ার সংঘাতে যেসব মানুষ বাস্তুহারা হয়েছেন তাদের জন্য নিরাপদ অঞ্চল তৈরি করতে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কাজ করবেন।

তবে ঐ এলাকায় তুরস্কের সেনা পাঠানোর বিষয়টি তিনি একেবারে বাতিল করে দেননি।

তিনি বলছিলেন "সিরিয়াতে যদি মধ্যপন্থী বাহিনীর যথেষ্ট শক্তি থাকে তাহলে অন্যান্য দেশ এমনকি তুরস্কের কোন সৈন্য পাঠানোর দরকার হবে না"।

বিবিসির জেরেমি বোয়েন এর সাথে এক বিস্তারিত সাক্ষাতকারে দোভুতোলু বলেন চার বছর ধরে সিরিয়াতে যে সংঘাত চলছে তা নিরসনে তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান ।

তবে তুরস্কের ওপর ইসলামিক স্টেট ও অন্য জঙ্গি গ্রুপদের সাহায্য করার যে অভিযোগ উঠেছিল তা তিনি অস্বীকার করেন।

তিনি জাতিসংঘের বর্তমান পাঁচটি স্থায়ী সদস্য দেশকে সমালোচনা করে বলেন তারা সিরিয়ার সংকট সমাধান করতে ব্যর্থ হয়েছ।

সিরিয়ার সংঘাতের ফলে তুরস্ক হয়েছে শরণার্থীদের জন্য দ্বিতীয় আবাসস্থল।

জাতিসংঘ বলছে ১৮ মিলিয়ন মানুষ এখন তুরস্ক আশ্রয় নিয়েছে।

সূত্র: বিবিসি বাংলা