২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ধর্মঘটে সিলেট ও হবিগঞ্জ থেকে ঢাকার বাস বন্ধ

অনলাইন রির্পোটার ॥ যাত্রীদের পিটুনিতে চালক নিহত হওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ শ্রমিকদের ডাকা পরিবহন ধর্মঘটের কারণে ঢাকার সঙ্গে সিলেট ও হবিগঞ্জের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। বুধবার এ দুই জেলা থেকে রাজধানীর পথে কোনো বাস না ছাড়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের।

সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেলিম আহমেদ ফলিক বলেন, বুধবার সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া তাদের এ ধর্মঘট সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চলবে।

সিলেটের পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা জানান, পরিবহন ধর্মঘটকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে কোথাও কোনে গোলযোগের খবর পাওয়া যায়নি। ঢাকার পথে বাস বন্ধ থাকলেও অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের ডাকা এ কর্মসূচিতে সমর্থন জানিয়ে হবিগঞ্জেও বাস ধর্মঘট চলছে। বুধবার হবিগঞ্জ থেকে ঢাকা বা সিলেটের পথে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। হবিগঞ্জ মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক শঙ্খ শুভ্র রায় বলেন, “সিলেটের শ্রমিক ইউনিয়নের ডাকা এই কর্মসূচির প্রতি সমর্থন জানিয়ে হবিগঞ্জ মটর মালিক গ্রুপও সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে।”

হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি নাজিম উদ্দিন জানান, ঢাকা ও সিলেটের দিকে দূরপাল্লায় বাস বন্ধ থাকলেও জেলার অভ্যন্তরীণ রুটে বাস চলছে। সকাল থেকে কোথাও বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায়নি।

কোথাও গোলযোগ না হলেও দূর পাল্লার বাস না চলায় ভোগান্তিতে পড়েছেন ঢাকার যাত্রীরা।

ঢাকার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ফয়সল আলম সিলেটে এসছিলেন শাহজালালের (র.) মাজার জিয়ারত করতে। ফেরার জন্য সকালে বাস টার্মিনালে গিয়ে ধর্মঘটের কথা জানতে পারেন। এরপর রেল স্টেশন গিয়েও তিনি টিকেট পাননি। “ধর্মঘটের কথা আগে জানা ছিল না। এখন কীভাবে যাব তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছি।”

সোমবার রাত ১১টার দিকে ঢাকা থেকে সিলেটগামী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস ছাড়তে দেরি হওয়ায় সায়েদাবাদের জনপদ মোড়ে কয়েকজন যাত্রীর কিল-ঘুষিতে সংজ্ঞা হারান চালক বাবুল চন্দ্র দে শিবু (৪০)। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সিলেটের শ্রমিক নেতা সেলিম আহমেদ বুধবার ধর্মঘটের কর্মসূচি দেন। চালককে মারধরের ঘটনায় রাজন মিয়া (৩২), রেজাউল করিম (৩৩), সোহেল আহমেদ (৩০) ও কামরুল ইসলাম শাকিল (২৬) নামে চার যাত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনার পরদিন মঙ্গলবার ওই চার জনকে আসামি করে নিহতের স্ত্রী রীমা দে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন বলে যাত্রাবাড়ী থানার এসআই ইমরানুল ইসলাম জানান।