২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সালমাদের পাকিস্তান সফর ॥ সরকারের গ্রীন সিগনেলের অপেক্ষায় বিসিবি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘পাকিস্তান সফর নিয়ে আমি নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছি না। বিসিবি চাইলে তো আমাদের যেতেই হবে। তবে সেখানকার নিরাপত্তা পরিস্থিতির যে অবনতি ঘটেছে, তা একজন সাধারণ মানুষের মনেও ভীতি জাগাবে। স্বাভাবিক কারণে আমাদের মধ্যেও কিছুটা ভয় কাজ করছে।’ কয়েকদিন আগে কথাগুলো বলেছিলেন বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সালমা খাতুন। তার কথাতেই বোঝা যাচ্ছে, পাকিস্তান সফর নিয়ে কতটা ভয়ে আছেন সালমারা। এরপরও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) চাচ্ছে, বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেটারদের পাকিস্তানে সফর করাতে। তিন ওয়ানডে ও এক টি২০ ম্যাচের সিরিজ খেলাতে।

যে দেশে কিংবদন্তী ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরামের জীবনও ঝুকিতে থাকে। তার উপর হামলা হয়, সেই দেশে অন্য দেশের ক্রিকেটাররা কিভাবে নিরাপদ থাকে? তাইতো সালমা খাতুন বলেছেন, ‘ওয়াসিম আকরামের মতো ক্রিকেটারের ওপর হামলা হয়েছে কিছুদিন আগে। তাতে বোঝাই যাচ্ছে সেখানকার নিরাপত্তার অবস্থা কেমন। আমরা আশা করছি বিসিবিও ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নেবে।’ বিসিবি সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অবশ্য সরকারের গ্রীন সিগনেলের অপেক্ষাতেই আছে।

সালমা খাতুন কেন, দলের কোচ শ্রীলঙ্কান চম্পিকা গামাগেও পাকিস্তান সফর নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তার কথাতেই পরিস্কার, ‘পাকিস্তান সফরে যেতে আমার কোনো আপত্তি নেই। তবে বিসিবি নিশ্চয়ই ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নেবে। কারণ কিছুদিন আগেও ওয়াসিম আকরামের ওপর হামলা হয়েছে।’

ওয়াসিম আকরাম কেন, পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক যে দলই খেলতে যায়, তাদের উপরই হামলা হয়। ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ওপর জঙ্গী হামলা হয়। এরপর প্রায় ৬ বছর টেস্ট খেলুড়ে কোন দলই পাকিস্তানে সিরিজ খেলতে যায়নি। অবশেষে জিম্বাবুইয়ে গিয়েছে। কিন্তু তারাও বিপত্তির মধ্যেই পড়েছিল। জিম্বাবুইয়েকে ‘প্রেসিডেন্সিয়াল’ নিরাপত্তাই দেওয়া হয়েছিল। বুলেট প্রুফ গাড়িতে হোটেল থেকে মাঠ, মাঠ থেকে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। এরপরও যখন সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে চলে, এমন সময় লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের বাইরে আত্মঘাতী বোমা হামলা হয়। ক্রিকেটারদের ওপর কোন আঘাত আসেনি। তবে হামলায় একজন সাব-ইন্সপেক্টরসহ ২ জন নিহত হন। এরপর জিম্বাবুইয়ে ক্রিকেটাররা তৃতীয় ওয়ানডের আগে আর মাঠেই যায়নি। সিরিজ শেষ করেই নিজ দেশ চলে যায়। তবে এ হামলা আবারও বিশ্ব ক্রিকেটকে পাকিস্তানে যাওয়া নিয়ে ভাবিয়ে তোলে।

সেই লাহোরেই বিসিবি চাচ্ছে বাংলাদেশের মহিলা ক্রিকেটাররা পাকিস্তান মহিলা ক্রিকেটারদের সঙ্গে সিরিজ খেলুক। সরকারের গ্রীনসিগনেল পেলেই নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল পাঠানো হবে। বাংলাদেশের একটি ক্রিকেট দলকে পাকিস্তান সফরে নিতে কয়েক বছর ধরেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এক্ষেত্রে বারবারই প্রধান বাধা হয়ে এসেছে দেশটির নিরাপত্তা ইস্যু। যা এখনও বিদ্যমান। যদি নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঠিক থাকে তাহলে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলকে পাকিস্তানে পাঠানোর চেষ্টা করছে বিসিবি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অনুমোদন দিলে পাকিস্তান সফরের আগে সেখানে পর্যবেক্ষক দল পাঠাবে বিসিবি। এমনটিই জানিয়েছেন বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। তিনি জানান, ‘আমরা আমাদের মেয়েদের কোনোভাবেই ঝুঁকির মধ্যে ঠেলে দেব না। নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দলের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সবকিছু চূড়ান্ত করা হবে। এ মাসের মাঝামাঝি সময় নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল আমরা পাঠাব। যদি সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অনুমোদন দেয় তাহলেই পাকিস্তানে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল যাবে।’ এরআগেও ২০১২ সালে একবার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল পাকিস্তানে গেছে। কিন্তু সেবার আর সিরিজটি হয়নি। এবার দেখা যাক, সালমাদের সফর ঝুকিপুর্ন পাকিস্তানে হয় কিনা।