১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেকনাফে ইয়াবা বিক্রেতাকে তুলে নেয়ার জেরে তাণ্ডব

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত টেকনাফের শীর্ষ ইয়াবা বিক্রেতা উপজেলা চেয়ারম্যান পুত্র মোস্তাক আহমদকে আটক করা হয়েছে দাবি করে টেকনাফে তা-ব চালিয়েছে তার অনুসারীরা। টেকনাফ বাসস্ট্যান্ডে যানবাহন ও দোকানপাটে হামলা এবং রাস্তায় টায়ার জালিয়ে সড়ক অবরোধ করে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে চোরাচালানিরা। মঙ্গলবার রাত ৯টায় টেকনাফ সদরে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বিজিবি-পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। মঙ্গলবার রাত ৯টার লেঙ্গুরবিল গ্রামের পৈত্রিক নিবাস থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে করে শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মোস্তাককে একটি গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। খবরটি মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়লে তার অনুসারীরা পৌর এলাকা ও টেকনাফ সদর বাস স্টেশনে এ লঙ্কাকা-ের ঘটনা ঘটায়। তবে শীর্ষ ওই ইয়াবা সম্রাটকে গ্রেফতারের বিষয়ে কোন সংস্থার পক্ষ থেকে বক্তব্য পাওয়া যায়নি। মোস্তাকের ছোট ভাই শাহজাহান বলেন, তার ভাইকে সাদা পোশাকধারী কিছু লোক সবার অলক্ষ্যে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। তাদের ধারণা এরা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোক। তারা ছাড়া কেউ তার ভাইকে তুলে নেয়ার সাহস পাবে না।

সূত্রে জানা যায়, রাত নয়টার দিকে পুরান পল্লান পাড়ায় উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আহমদের বাসার আশপাশে দুটি মাইক্রোবাস এসে অবস্থান নেয়। ও সময় মোস্তাক বাসার সামনে আসলে মাইক্রোতে থাকা লোকজন নেমে তাকে দ্রুত মাইক্রোতে তুলে স্থান ত্যাগ করে। এ ঘটনার জের ধরে মোস্তাকের ভাই ও অন্যরা রাস্তায় নেমে এসে স্টেশন এলাকায় অসংখ্য যানবাহন ও দোকানপাটে হামলা এবং ভাংচুর চালায়। সন্ত্রাসী স্টাইলে গাড়ি ও দোকানে হামলা চালানো হচ্ছে দেখে ভয়ে ব্যবসায়ীরা তৎক্ষণাৎ দোকানপাট বন্ধ করে দিগি¦দিক পালাতে থাকে। ও সময় রাস্তার চতুর্পাশে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। এছাড়া লেঙ্গুরবিল, মিঠাপনির ছড়াসহ বিভিন্ন স্থানে দোকানপাট বন্ধ করার ঘোষণা দিয়ে মাইকিং চালায় সন্ত্রাসীরা। টেকনাফ মডেল থানার ওসি মোঃ আতাউর রহমান খন্দকার জানান, উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলে মোস্তাককে কে বা কারা তুলে নিয়েছে খবরে বাস স্টেশন এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। তবে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে। কে বা কারা তুলে নিয়েছে- সে ব্যাপারে কোন সংস্থা কিছুই জানায়নি। টেকনাফ ৪২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন কমান্ডার লে. কর্নেল আবুজার আল জাহিদ জানান, স্টেশন এলাকায় ভাংচুর ও সড়ক অবরোধ হচ্ছে শুনে রাতে বিজিবির একটি টিম ঘটনাস্থল যান। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এবং জনগণের জানমালের নিরাপত্তা বিধানে কাজ করে চলছে বিজিবি সদস্যরা।