২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদায়ে বিধ্বস্ত বাউচার্ড, তৃতীয় পর্বে সেরেনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গত সপ্তাহে স্ট্যানফোর্ড ওপেন থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। মূলত ডান কনুইয়ের চোটের কারণেই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছিলেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের নাম্বার ওয়ান এই তারকা। যে কারণে ইউএস ওপেনের আগে রজার্স কাপই তার শেষ প্রস্তুতি মঞ্চ। আর কানাডার টরেন্টোর এই টুর্নামেন্টে জয় দিয়েই যাত্রা শুরু করেছেন সেরেনা উইলিয়ামস। মঙ্গলবার তিনি দ্বিতীয় পর্বে ইতালির ফ্লাভিয়া পেনেত্তার মুখোমুখি হয়েছিলেন। টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই সেরেনা এদিন ২-৬, ৬-৩ এবং ৬-০ গেমে পরাজিত করেন ফ্লাভিয়া পেনেত্তাকে। ইনজুরির চোট কাটিয়ে এই জয়ের পর কিছুটা হলেও স্বস্তিতে সেরেনা। তার লক্ষ্য এখন ফাইনাল জিতে ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মেখেই ফ্ল্যাশিং মিডোজে যাওয়া।

হার্ডকোর্টে সর্বশেষ এপ্রিলে খেলতে নেমেছিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। মাঝের চার মাসের বিরতি শেষে আবার হার্ডকোর্টে নামেন তিনি। দীর্ঘদিন পর এই জয়ে উচ্ছ্বাস ঝরছে সেরেনার কণ্ঠে। এ বিষয়ে আমেরিকান টেনিসের এই জীবন্ত কিংবদন্তি সেরেনা বলেন, ‘আমার জন্য এটা দারুণ এক সুযোগ। কেননা হার্ডকোর্টে এপ্রিলের পর থেকে আর খেলা হয়নি আমার। মিয়ামিই ছিল আমার শেষ লড়াই। তাই এটা অনেক দিন পরের জয়।’ তবে কনুইর চোট নিয়ে এখনও পুরোপুরি সংশয় কাটেনি তার। তবে এ নিয়ে কোর্টে খেলতে তেমন কোন সমস্যা হচ্ছে না সেরেনার। ধারণা করছেন তা দ্রুতই সেরে যাবে। ‘কনুইর চোট এখন কিছুটা ঠিক আছে-তবে পুরোপুরি বলা যাচ্ছে না। তবে আমি দেখি কালকে পর্যন্ত কী হয়।’

ইতালিয়ান টেনিসের প্রতিভাবান তারকা ফ্লাভিয়া পেনেত্তা। যে কারণে তার বিপক্ষে ম্যাচটি কঠিন হবে বলেই ধারণা করেছিল টেনিসবোদ্ধারা। শুরুতে যেন সেই ধারণাই বাস্তবে রূপ হওয়ার উপক্রম হয়েছিল। কেননা প্রথম সেটেই যে পেনেত্তা ৬-২ গেমে হারিয়ে দেন আমেরিকান টেনিসের সেরা তারকা সেরেনাকে। তবে জাত চ্যাম্পিয়ন বলে কথা। পরের দুটি সেটেই পেনেত্তাকে উড়িয়ে দেন টেনিসের কৃষ্ণকলি। শেষ পর্যন্ত ৯৮ মিনিট লড়াই করে জয় তুলে নেন সেরেনা উইলিয়ামস। টেনিসের সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে সেরেনার এটা ৭২৫তম জয়। অবিশ্বাস্য এই কীর্তি গড়েও সেরেনার দৃষ্টি শুধুই সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া।

গত মাসে উইম্বল্ডন জিতে ‘সেরেনা সøাম’ পূর্ণ করেছেন তিনি। আগামী ৩১ আগস্ট শুরু হবে ইউএস ওপেন। মৌসুমের প্রথম তিন মেজর টুর্নামেন্টেই চ্যাম্পিয়ন হওয়া এই আমেরিকান তারকার সামনে এখন নতুন মাইলফলকের হাতছানি। একই বছরে সব গ্র্যান্ডসøাম জয়ের বিস্ময়কর কীর্তি। সেই পথেই ছুটছেন টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। এবার শিরোপা নিজের করে রাখতে ২০০ ভাগ ঢেলে দেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি। এ বিষয়ে তেত্রিশ বছর বয়সী সেরেনা বলেন, ‘এখন আমি ভাবছি। কারণ গত মৌসুমে এই ইভেন্টে শিরোপা জিতেছিলাম। এবারও সেই শিরোপা ধরে রাখার লক্ষ্য নিয়েই আমার চেষ্টা করে যাওয়া উচিত। আমি চাইব দুই শ’ ভাগ ঢেলে দিতে।’ উইম্বল্ডনে সবচেয়ে বেশি বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়ন হওয়া সেরেনার সামনে হাতছানি দিচ্ছে আরেকটি রেকর্ড গড়ারও। তা হলো টেনিসের উন্মুক্ত যুগে স্টেফিগ্রাফের সমান ২২ গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট জেতা।

রজার্স কাপে সেরেনা উইলিয়ামস জিতলেও হেরে গেছেন ইউজেনি বাউচার্ড, সামান্থা স্টোসার এবং কার্লা সুয়ারেজ নাভারো। গত মৌসুমটা অসাধারণ কেটেছে কানাডিয়ান তারকা বাউচার্ডের। অথচ চলতি মৌসুমেই নিষ্প্রভ এই তরুণ প্রতিভাবান খেলোয়াড়। মঙ্গলবার রজার্স কাপের প্রথম পর্বে সুইজারল্যান্ডের বেলিন্ডা বেনসিচের কাছে ৬-০, ৫-৭ এবং ৬-২ গেমে হার মানেন তিনি। তবে কানাডার বাউচার্ড হেরে গেলেও রজার্স কাপে জয় পেয়েছেন সার্বিয়ার জেলেনা জাঙ্কোভিচ, জার্মানির এ্যাঞ্জেলিক কারবার, বেলারুশের ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কা এবং রাশিয়ার একাটেরিনা মাকারোভার মতো তারকারা।