১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৪-১ অ্যাশেজ জয়ের সুযোগ ছাড়তে নারাজ ইংল্যান্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার॥ এক ম্যাচ হাতে রেখেই হাতে রেখেই মর্যাদার এ্যাশেজ পুনরুদ্ধার। ৩-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। আরেকটি ম্যাচ বাকি আছে। দীর্ঘ বিরতি পেয়েছে উভয় দল। পরবর্তী বৃহস্পতিবার দ্য ওভালে এ্যাশেজের পঞ্চম ও শেষ টেস্ট। দারুন কিছু করার মোক্ষম সুযোগ এবার ইংলিশদের জন্য। কারণ ঘরের মাটিতে এর আগে কখনই কোন এ্যাশেজে চার টেস্ট জিততে পারেনি তারা। যদিও অস্ট্রেলিয়া সফরে ৫টিও জয়ের রেকর্ড আছে। এ কারণে এবার কোনঠাসা অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দারুন এ সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইছে না ইংল্যান্ড। দলের অলরাউন্ডার মঈন আলী দীর্ঘ বিরতির কারণে দলের ক্রিকেটাররা তালগোল পাকিয়ে ফেলুক এমনটা চাইছেন না কোনভাবেই। তিনি মনে করেন ৪-১ ব্যবধানেই জেতার সামর্থ্য রাখে ইংল্যান্ড।

২০১৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অনুষ্ঠিত এ্যাশেজে চরম দুর্গতি পোহাতে হয়েছে ইংল্যান্ডকে। ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হয়েই ঘরে ফিরেছিল ইংলিশরা। সে ধাক্কায় জর্জরিত ইংল্যান্ড দল থেকে ছিটকে গেছেন অনেকেই। নড়বড়ে হয়ে পড়েছিল অধিনায়ক এ্যালিস্টার কুকেরও আসন। কিন্তু এবার তিনিই দলকে নেতৃত্ব দিয়ে এ্যাশেজ পুনরুদ্ধার করেছেন। এবার নতুন মাত্রা যোগ করার পালা। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অনুষ্ঠিত এ্যাশেজ সিরিজে ৫ টেস্ট জয়ের রেকর্ডও আছে, কিন্তু ঘরের মাটিতে কখনও তিন টেস্টের বেশি এ্যাশেজে জিততে পারেনি ইংলিশরা। এবার সেই বিরল কাজটা করার মতো অবস্থানেই আছে ইংল্যান্ড। এ বিষয়ে মঈন বলেন,‘এটা দারুন সুযোগ বড় একটি সিরিজে ৪-১ ব্যবধানে জেতার। এখন পর্যন্ত আমরা অনেক ভাল খেলেছি। আর আমরা কোনকিছু তালগোল পাকিয়ে ফেলতে চাইনা। নিজেদের ছন্দ ধরে রাখতে চাই, যেভাবে খেলছি সেটা ধরে রাখতে চাই। নিজেদের দৃঢ়তা রাখতে চাই।’ গত শনিবার ট্রেন্টব্রিজে শেষ হয়েছে চতুর্থ টেস্ট যেখানে ইনিংস ও ৭৮ রানের বিশাল ব্যবধানে অস্ট্রেলিয়াকে বিধ্বস্ত করেছে ইংল্যান্ড। তারপর থেকে এ্যাশেজের বাইরে ক্রিকেটাররা। কিন্তু প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট থেকে দূরে সরে যাননি তাঁরা। মঈন খেলেছেন ঘরোয়া টি২০ আসরেরর কোয়ার্টার ফাইনালে ওরচেস্টারশায়ারের হয়ে। দারুন ফর্মে আছেন দুই পেসার জেমস এ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রড। বেন স্টোকসও গত টেস্টে দারুন বোলিং করেছেন।

গত দুই টেস্টেই মাত্র আড়াই দিনে স্বাগতিকদের কাছে নতি স্বীকার করেছে অস্ট্রেলিয়া। এর পেছনেন বোলারদেরই বড় কৃতিত্ব দিচ্ছেন মঈন। তিনি বলেন,‘গত দুই ম্যাচে মাত্র আড়াই দিনে জিতেছি আমরা। এর পেছনে মূল ভূমিকা ছিল বোলারদের। সবাই এ্যাশেজ দেখাটা উপভোগ করে। আকর্ষণটা ধরে রাখতে হবে। ১৮ মাস আগে ৫-০ ব্যবধানে এ্যাশেজ হারানো এবং এবার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেয়ার পর দারুন বেকায়দায় পড়েছিল ইংল্যান্ড। সেখান থেকে দারুনভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে তারা। এ বিষয়ে মঈন বলেন,‘গত ১৮ মাস অনেক কঠিণ সময় ছিল। সেখান থেকে এখানে আসাটা সত্যিই খুব কঠিণ। এবারও লর্ডসে আমরা ৪০৫ রানের বড় ব্যবধানে হেরে গিয়েছিলাম। কিন্তু তাদেরই আমরা তিনবার হারিয়ে দিয়েছি খুব ভালভাবে। কিন্তু তারা এখনও দারুন দল। আর মাইকেল ক্লার্ক সত্যিকারের একজন কিংবদন্তি। কিন্তু দলের পরাজয়ের কারণে কাউকে অবসর নিতে হলে সেটা সত্যিই খুব হতাশাজনক। সন্দেহ নেই তিনি চমৎকার একজন ক্রিকেটার এবং অধিনায়ক।’