২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাকিস্তান সফর ॥ তবু থেমে নেই সালমাদের অনুশীলন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ পাকিস্তানে গিয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ওয়ানডে ও ১টি২০ ম্যাচের সিরিজ হবে কিনা তার নিশ্চয়তা নেই। আগে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষন করা হবে। এরপর সরকারের সবুজ সংকেতের বিষয়ও আছে। তবে পাকিস্তান সিরিজ হোক না হোক, অক্টোবরে দক্ষিন আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ ও টি২০ বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব আছে। এজন্য শনিবার থেকে চলছে পুরোদমে অনুশীলন। নিজেদের ফিট রাখতে জিম, রানিং করে চলেছেন সালমা খাতুনরা।

এ বছরের অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে বাংলাদেশ সফরে আসবে দক্ষিণ আফ্রিকা মহিলা ক্রিকেট দল। সফরে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৫টি ওয়ানডে ও ৩টি টি২০ ম্যাচ খেলবে সফরকারীরা। কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম, বিকেএসপি ও সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচগুলো। বাংলাদেশের মাটিতে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা মহিলা দলের। ২০১৪ সালের টি২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিপক্ষেই খেলেছিল প্রোটিয়ারা। এর আগে ২০১৩ সালে সালমা খাতুনের দলের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ খেলেছিল আফ্রিকার মহিলা দলটি। হোম সিরিজের পর নবেম্বরের শেষের দিকে ২০১৬ সালের টি২০ বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব খেলতে ব্যাংকক যাবে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল। আর মাত্র ২দিন পর ১৬ আগস্ট পর্যন্ত চলবে কন্ডিশনিং ক্যাম্প। এরপর ঘোষণা করা হবে মহিলা দলের চূড়ান্ত স্কোয়াড। মূল স্কোয়াড নিয়ে ক্যাম্প শুরু হবে ১৯ আগস্ট।

কন্ডিশনিং ক্যাম্পের জন্য প্রাথমিক স্কোয়াডে ডাকা হয়েছে ২৬ ক্রিকেটারকে। এদের মধ্যে নতুন ক্রিকেটার আছেন ৮ জন। অভিজ্ঞদের সঙ্গে নতুন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে নির্বাচকরা দলে রাখায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন মহিলা দলের কোচ শ্রীলঙ্কান চ্যাম্পিকা গামাগে। গামাগে বলেন, ‘আমরা ধীরে ধীরে প্রস্তুত হচ্ছি। কন্ডিশনিং ক্যাম্পে এখন ক্রিকেটারদের ফিটনেস টেস্ট চলছে। আমি এই দল নিয়ে সন্তুষ্ট। সিনিয়র খেলোয়াড়েদের পাশাপাশি জুনিয়র খেলোয়াড়দের এখানে মূল্যায়ন করা হয়েছে।’ তিনি আরো যোগ করেন, ‘ক্রিকেটাররা অনেক দিন খেলার বাইরে ছিল। তাই এখানে ফিটনেসের ব্যাপারটাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি।’

অবশ্য অনুশীলন ক্যাম্পে ক্রিকেটারদের মাঝে একটি বিষয়ই আলোচনা হচ্ছে। যেটি আগেও হয়েছিল। সেটি কী? পাকিস্তান সফরে যাওয়া, না যাওয়া নিয়ে। আগেও পাকিস্তান সফর নিয়ে ভয়ের কথা জানিয়েছিলেন দলের অধিনায়ক সালমা খাতুন। এবারও তাই বলেছেন, ‘ভয় তো আছেই। সাধারণ মানুষেরও ভয় কাজ করে, আমাদের তো করবেই।’ এরপরও বলছেন, ‘বিসিবি বললে যেতে হবেই।’ বিসিবিও এখন পাকিস্তানে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল পাঠাতে সরকারের সবুজ সংকেতের অপেক্ষা করছে। বিসিবি এদিকদিয়ে অপেক্ষায় আছে। আর বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলের ক্রিকেটাররা অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন।