২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খালেদাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ষড়যন্ত্রের তথ্য বের করুন

  • স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আওয়ামী লীগ নেতাদের দাবি

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ অবিলম্বে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্রের তথ্য বের করার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তাঁরা বলেছেন, একজন নেত্রী (খালেদা জিয়া) যখন বলেন সরকারের খবর আছে, তার মানে ষড়যন্ত্র চলছে। জিজ্ঞাসাবাদ করে তাঁর কাছ থেকে তথ্য নেয়া প্রয়োজন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেন, তাঁকে অবিলম্বে জিজ্ঞাসাবাদ করুন। আগামী দিনে খালেদা জিয়া আবারও সেই দানবীয় পৈশাচিক রূপে আবির্ভূত হওয়ার ষড়যন্ত্র করছেন কি না, তাও বের করা উচিত। শুক্রবার রাজধানীতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠন আয়োজিত পৃথক পৃথক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে নেতারা এ দাবি জানান। অন্য এক অনুষ্ঠানে সপরিবারে বঙ্গবন্ধু হত্যাকা-ের পেছনে সাজাপ্রাপ্তদের বাইরে আর কেউ জড়িত রয়েছে কি না তা খুঁজে বের করতে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

নির্বাচন নিয়ে আদালতের পর্যবেক্ষণের সমালোচনা সুরঞ্জিতের ॥ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এমপি নির্বাচন নিয়ে আদালতের পর্যালোচনাকে ‘অপ্রাসঙ্গিক’ বলে দাবি করে বলেছেন, সরকারের কাজ সরকার করবে, সুপ্রীমকোর্ট বা হাইকোর্টের কাজ তারাই করবে। তাদের কাজ হচ্ছে যদি কোন আইন আমরা পাস করি তা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কিনা তা নিয়ে কাজ করা।

শুক্রবার রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু একাডেমির আয়োজিত শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি বলেন, আদালত তো আর উপন্যাস লেখার জায়গা না। গল্প লেখারও জায়গা না। তারা ল’পয়েন্ট নির্ধারণ করবেন এটা বৈধ না অবৈধ, সাংবিধানিক না অসাংবিধানিক, গণতান্ত্রিক না অগণতান্ত্রিক। উনারা আবার পর্যালোচনা দেবেন কেন?

‘খবর আছে এই সরকারের পতন হবে’ মর্মে সম্প্রতি খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, উনি কিসের ভিত্তিতে এমন কথা বলেছেন? খালেদা জিয়ার কথা তো আর হালকাভাবে নেয়া যায় না। কারণ উনি অনেকবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তিনি (খালেদা জিয়া) যে বললেন তাঁর কাছে খবর আছে দুই এক মাসের মধ্যে সরকারের পতন হবে! উনি কিসের ভিত্তিতে বললেন? সামনে কি কোন নির্বাচন আছে?

তিনি বলেন, যে কোন সরকার পরিবর্তন হয় একটি নির্বাচিত গণতান্ত্রিক সরকারের নির্বাচনের মাধ্যমে। আর একটি পরিবর্তন হতে পারে বিশাল একটি আন্দোলন বা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে। উনারই (খালেদা) তো কোন আন্দোলনের খবর নেই। তাহলে উনি কি করে বলেন উনার কাছে খবর আছে? তিনি বলেন, সরকারের তো অনেক মন্ত্রী, সংসদ সদস্য আছেন যাদের প্রতিদিনের বক্তব্যে থাকা যায় না। আপনারা তাঁকে (খালেদা) জিজ্ঞাসা করুন যে আপনি খবর কোথা থেকে পেলেন? কিভাবে পেলেন? কি খবর? জিজ্ঞাসাবাদ করে তাঁর কাছ থেকে তথ্য নেয়া প্রয়োজন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলব তাঁকে অবিলম্বে জিজ্ঞাসাবাদ করুন।

আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি চিত্তরঞ্জন দাশের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ সেলিম এমপি, সাম্যবাদী দলের নেতা হারুন চৌধুরী প্রমুখ।

শোকের দিনে কেক কাটলে খবর সমুচিত জবাব- ড. হাছান ॥ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া এবার জাতীয় শোক দিবসে কেক কেটে জন্মদিন পালন করলে জনগণ সমুচিত জবাব দেবে। জাতির পিতার হত্যার দিনে উল্লাস দেশবাসী মেনে নেবে না। শুক্রবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়া এতদিন ধরে শোক দিবসে কেক কাটায় তিনি ক্ষমা চাইবেন এটা জাতির প্রত্যাশা। বিএনপি নেত্রীর উদ্দেশে হাছান মাহমুদ বলেন, দুইবারের প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিয়েছেন, তাঁর চার-পাঁচটা জন্মদিন। তিনি রাজনীতি করেন, তাঁর সঙ্গে অনেকে লাফালাফিও করেন। বাংলাদেশ বাদে বিশ্বের অন্য যে কোন দেশ হলে তিনি রাজনীতিতে অযোগ্য বিবেচিত হতেন।

খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, কয়েকটি খুচরা দল, নাম ও প্যাড সর্বস্ব দল নিয়ে খালেদা জিয়া ২০-দলীয় জোটের বৈঠক করেছেন। বৈঠকে খালেদা জিয়া জানিয়েছেন তাঁরা জামায়াতের সঙ্গে ছাড়বে না। একাত্তরের ঘাতক, পঁচাত্তরের ঘাতক এবং বর্তমানে যারা হত্যাকা- ঘটাচ্ছেন কাউকে বিচ্ছিন্ন করে দেখার সুযোগ নেই। তিনি বলেন, আগামী দিনে খালেদা জিয়া কী করেন, কী রূপে আবির্ভূত হন, সেই দানবীয় পৈশাচিক রূপে নাকি জনগণের নেত্রী হিসেবে মায়ের রূপে আবির্ভূত হন তা দেখার অপেক্ষায় রইলাম।

আয়োজক সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি অভিনেতা সৈয়দ হাসান ইমামের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা প্রমুখ।

বঙ্গবন্ধুর হত্যার পেছনের কুশিলবদের খুঁজতে পৃথক কমিশন করুন- ঢাবি উপাচার্য ॥ সপরিবারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকা-ের পেছনে সাজাপ্রাপ্তদের বাইরে আর কেউ জড়িত রয়েছে কি না তা খুঁজে বের করতে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু পরিষদের আলোচনা সভায় আরেফিন সিদ্দিক বলেন, বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনীদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে এনে সাজা দিতে হবে। একই সঙ্গে এই হত্যাকা-ের পেছনে আর কারা জড়িত ছিলÑ তার রহস্য উদঘাটন করতে হবে। এই রহস্য উদঘাটনে একটি পৃথক কমিশন গঠন করতে হবে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ এস এম মালেক, বুয়েটের সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক হাবিবুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আ ব ম ফারুক, অধ্যাপক আশফাক হোসেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা প্রমুখ।