২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘আমি নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী’

  • গল টেস্টে লঙ্কান ব্যাটিং লাইন ধসিয়ে দেয়া ভারতীয় স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শ্রীলঙ্কার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জয়ে ভারতের বাইশ বছরের অপেক্ষার অবসান হবে কি না, সময়ই তার জবাব দেবে। তবে শুরুতেই অতিথিদের পালে হাওয়া বইয়ে দিয়েছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকদের ১৮৩ রানে গুটিয়ে দিয়ে গল টেস্টের নিয়ন্ত্রণে ভারত, যেখানে অশ্বিন একাই নিয়েছেন ৬ উইকেট। এ রিপোর্ট লেখার সময় দ্বিতীয় ইনিংসে আরও ৩টি। অথচ দলে আছেন অভিজ্ঞ হরভজন সিং এবং অপর বিশেষজ্ঞ স্পিনার অমিত মিশ্র। তিন স্পিনারের সঙ্গে দুই পেসারÑ পাঁচ বোলার নিয়ে মাঠে নামেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। যেখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতাটা মূলত তিন স্পিনারের মধ্যে। তবে অন্যকে নয়, বরং নিজেকেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী বলে মন্তব্য করেছেন আলো ছাড়ানো অশ্বিন।

‘বার বার হরভজন সিংয়ের দলে ফিরে আসাটা আমার জন্য বাড়তি মোটিভেশন কি না? এমন প্রশ্ন শুনতে হলেও আমার কাছে উত্তরটা সবসময় এক। ভাজ্জি (হরভজন) ভারতীয় ক্রিকেটের একজন চলমান কিংবদন্তি। আমি অনেক পরে শুরু করেছি। তাই আমার প্রতিদ্বন্দ্বিতা আমার নিজের সঙ্গে। নিজের জন্য যে লক্ষ্য ঠিক করি, সেটিই বড় কথা। কখনই কাউকে প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করি না।’ এন শ্রীনিবাসনের জামানায় অশ্বিনের বেড়ে ওঠা, পেয়েছেন ক্যাপ্টেন কুল মহেন্দ্র সিং ধোনির অকৃত্রিম স্নেহ। হয়েছেন আইপিএলে তার দল চেন্নাই সুপার কিংসের ম্যাচউইনার। সুতরাং তার কথায় বাড়তি আত্মবিশ্বাস ফুটে ওঠাটা স্বাভাবিক! নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বীÑ ধারণায় অশ্বিনের আত্মবিশ্বাসটাকে ঔদ্ধত্য মনে হতে পারে। তবে অশ্বিন কিন্তু বিনয়ী।

তিনি আরও যোগ করেন, ‘ভাজ্জি শ্রদ্ধাভাজন, আমি ব্যক্তিগতভাবে ওকে পছন্দ করি। এদিন হয়ত উইকেট পায়নি। একপ্রান্তে আমি নিয়মিত ভাল করায়, তার জন্য সুযোগটাও কম ছিল। এটা মাথায় রাখতে হবে। তাকে তার মতো খেলতে দিতে হবে।’ ১০৩* টেস্টে ৪১৭ উইকেট হরভজনের, ভারতীয় ইতিহাসে তার চেয়ে বেশি উইকট আছে কেবল অনিল কুম্বলে (৬১৯) ও কপিল দেবের (৪৩৬)। দীর্ঘ বিরতির পর বাংলাদেশ সফরে যখন পুনরায় দলে ডাক পান, অনেকেই বিষয়টিকে অশ্বিনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হিসেবে দেখছিলেন। ফতুল্লায় পরিত্যক্ত সেই ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন অশ্বিন। গল টেস্টেও সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখে বিদেশের মাটিতে টানা দুই ম্যাচে পাঁচ বা ততধিক উইকেট তুলে নিলেন ২৮ বছর বয়সী ডানহাতি অফস্পিনার।

২৬* টেস্টে ১৩৩ উইকেট শিকারি অশ্বিন বলেন, ‘এর আগেও পরপর দুই টেস্টে ৫ উইকেট পেয়েছি। ব্যক্তিগত মাইলস্টোনের কথা মাথায় রাখি না। উপমহাদেশে স্পিনারদের জন্য ধারাবাহিকতা রক্ষা করা বড় চ্যালেঞ্জ।’ সাফল্যের পেছনে মেন্টর রবি শাস্ত্রী এবং বোলিং কোচ ভরত অরুনের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতার কথাও বলেন অশ্বিন। তিনি আরও যোগ করেন,‘ মাঠে নতুন কিছু নিয়ে আপনি ভাবতেই পারেন। কিন্তু সেটাকে করে দেখানোর জন্য কারও পাশে থাকাটা জরুরী। এদিক দিয়ে শাস্ত্রী-ভরতের কাছে কৃতজ্ঞ।’ মুখে যাই বলুন, অশ্বিনের ঘূর্ণিজাদুতেই গল টেস্টে জয়ের দ্বারপ্রান্তে ভারত। সাবেক লঙ্কান তারকা মাহেলা জয়বর্ধনে যেমন বলেন, ‘গত ১০ বছরে শ্রীলঙ্কার মাটিতে কোন বিদেশী স্পিনারের সেরা বোলিং। অশ্বিন একাই মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে। যার সৌজন্যে শেষ পর্যন্ত সিরিজও জিততে পারে ভারত!’

নির্বাচিত সংবাদ