২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কবিতা

যুদ্ধ করার ইচ্ছা

প্রজ্ঞা পারমিতা

সবার মুখে শুনি আমি স্বাধীনতার কথা।

সব বইতে পড়ি আমি স্বাধীনতার কথা।

মুক্তিযুদ্ধ দেখব আমি, দেখব মুক্তিযুদ্ধ।

স্বাধীনতার কথা শুনে আমরা সবাই মুগ্ধ।

জন্ম আমার এত পরে দেখব কি করে।

যুদ্ধ যদি শুরু হতো আরেকটু পরে।

বইখাতা সব ফেলে রেখে যুদ্ধ যে করতাম,

দেশের জন্য সবাই মিলে একসাথে লড়তাম।

জন্ম আমার এত পরে যুদ্ধ করব কি করে,

মনের ভেতর যুদ্ধ করার ইচ্ছা যে করে।

ম্যারি কুরি স্কুল

৫ম শ্রেণী, ধানম-ি

বাংলার খোকা

দেওয়ান ফাহিম ফয়সাল

মধুমতি নদীর তীরে

টুঙ্গীপাড়া গ্রাম

সেখানেই মিলে

বাংলার আরেক নাম।

খোকা বলে ডাকতো মায়ে

নয়তো মায়ের একা

সেই খোকা আজ বাংলা মায়ের

সর্বশ্রেষ্ঠ পিতা।

দুরন্ত দামাল সেই ছেলেটি

খেলাধূলায়ও ছিল সেরা

পরবর্তীতে সেই হয়

সারা বাংলার নেতা।

আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ

ঢাকা

সেই খোকাটি

মীম নোশিন নাওয়াল খান

টুঙ্গিপাড়ার ছোট্ট খোকা, নরম ভীষণ মন,

শহর-গ্রামে ধনী-গরিব সবাই আপনজন।

সেই খোকাটা কে ভেবেছে আনবে একটা দেশ,

তার জন্য পাকিস্তানীর শোষণ হল শেষ।

স্বাধীন করতে দেশটাকে সে ধরল দেশের হাল,

তৈরি হল মানচিত্র, পতাকা সবুজ-লাল।

বাবা-মায়ের সেই খোকাটি দেশের জনক আজ,

তার কীর্তি ভাঙবে আছে কোন সে মহারাজ?

স্বাধীন দেশে হাসছি আমি, লিখছি গান আর ছড়া,

এই দেশটা শেখ মুজিবের তোমার হাতেই গড়া।

তোমার জন্য ফুল ফুটছে, গাইছে পাখি গান,

মুজিব তুমি সত্যিই এই বাংলাদেশের প্রাণ।

ভিকারুননিসা নূন স্কুল

৯ম শ্রেণী (ইংরেজী ভার্সন)

নির্বাচিত সংবাদ