২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্লগার নিলয় হত্যার প্রতিবাদে শহীদ মিনারে নাগরিক শোকসভা

  • নয়া মঞ্চ-মুক্তচিন্তা আন্দোলন

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ ব্লগার হত্যার যে সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে তার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায় নিলয়ের নাগরিক শোকসভায় বক্তারা বলেছেন, ব্লগাররা যদি নাস্তিক হয়, তাহলে যারা সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে ব্লগিং করছে তাদের হত্যা করা হচ্ছে না কেন? মুক্তমনা ব্লগারদের হত্যা করার জন্যই তাদেরকে নাস্তিক ও ধর্মবিরোধী লেখক হিসেবে অপবাদ দেয়া হচ্ছে। এটি হত্যাকা-কে জায়েজ করার অজুহাত মাত্র। শুক্রবার বিকেলে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গণজাগরণ মঞ্চ আয়োজিত ওই শোকসভায় মুক্তমনা মানুষদের হত্যার প্রতিবাদে ‘মুক্তচিন্তা আন্দোলন’ নামে নতুন মঞ্চ গঠনের ঘোষণাও দেয়া হয়। বিকেল সাড়ে চারটায় জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে নাগরিক শোকসভার সূচনা হয়। সবশেষে নিলয়সহ নিহত ব্লগারদের স্মরণে আলোক প্রজ্বালনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় অনুষ্ঠান।

উদীচীর সাংগঠনিক সম্পাদক ও গণজাগরণ মঞ্চের অন্যতম সংগঠক সঙ্গীতা ইমামের সঞ্চালনায় নাগরিক শোকসভায় বক্তব্য দেন ডাকসুর সাবেক জিএস ডা. মুশতাক হোসেন, ভাস্কর রাশা, যুব ইউনিয়নের সভাপতি আবদুল্লাহ আল কাফি রতন, ছাত্র ফ্রন্ট (খালেকুজ্জামান) সভাপতি জনার্দন দত্ত নান্টু, ছাত্র ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক লাকী আক্তার, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী শম্পা বসু, ব্লগার বাকী বিল্লাহ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউজিসি অধ্যাপক শিক্ষাবিদ অজয় রায় বলেন, নীলাদ্রিকে হত্যা প্রমাণ করে হত্যাকারীরা ক্রমশ সাহসী হয়ে উঠছে। আগে তারা রাজপথে-ফুটপাথে হত্যা করত। এবার তারা সংঘবদ্ধভাবে বাসায় ঢুকে, বাসায় নীলাদ্রির স্ত্রীসহ যারা ছিল তাদের অন্য কক্ষে আটকে রেখে হত্যা করেছে। এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ গণআন্দোলন গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে অজয় রায় আরও বলেন, এর পেছনে রাজনৈতিক দলগুলোকে মূল ভূমিকা পালন করতে হবে। নিজেদের আদর্শিক দ্বিধাদ্বন্দ্বকে পাশ কাটিয়ে এক মঞ্চে এসে তাদের দাঁড়াতেই হবে। ৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানের অভিজ্ঞতাকে ঐক্য হওয়ার জন্য কাজে লাগাতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। যাতে আর কোন নীলাদ্রি, ওয়াশিকুর, অনন্ত ও অভিজিতকে হারাতে না হয়।

সাংবাদিক-কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, গত কয়েকমাসে যে কয়জন মুক্তচিন্তার মানুষকে হত্যা করা হয়েছে, তার পূর্ণ তদন্ত আমরা চাই।

সিপিবির সভাপতিম-লীর সদস্য হায়দার আকবর খান রনো বলেন, যাদের হত্যা করা হয়েছে তারা কোন অপরাধ করেননি, তারা শুধু ব্লগে লেখেন। আমরা অবাক হই, যখন দেখি এত সময় পার হয়ে গেলেও বিচার হয় না, তদন্ত শেষ হয় না।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম বলেন, আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষের ধর্মের প্রতি অনুরাগ আছে, কিন্তু তারা কোনভাবে সাম্প্রদায়িক নন। আবার ধর্মকে যারা নিজেদের স্বার্থ উদ্ধার ও সাম্প্রদায়িক রাজনীতির জন্য ব্যবহার করে, জনগণ তাদের বিষয়ে সচেতন না; এই সুযোগে মৌলবাদী গোষ্ঠী তাদের কার্যক্রম চালাতে পারছে।

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার বলেন, যে অপবাদ দিয়েই হত্যাকা- ঘটানো হোক না কেন, এর আড়ালে যে যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষার ষড়যন্ত্র রয়েছে তা বুঝবার বাকি নেই। উগ্রপন্থীদের মূলোৎপাটনের জন্য জামায়াতের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে।

গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন চলাকালে হত্যাকা-ের শিকার ব্লগার আহমেদ রাজীব হায়দারের বাবা চিকিৎসক নাজিম উদ্দিন বলেন, যারা এসব হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত তাদেরকে খুঁজে বের করে গ্রেফতার করে বিচার নিশ্চিত করতে হবে এবং এই দেশ থেকে তাদের নাগরিকত্ব বাতিল করতে হবে।

নিলয়ের কর্মস্থল রিসার্চ এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কালেকটিভের (আরডিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক মেসবাহ কামাল বলেন, ব্লগাররা যদি নাস্তিক হয়, তাহলে যারা সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে ব্লগিং করছে তাদের হত্যা করা হচ্ছে না কেন? ব্লগারদের হত্যাকা- জায়েজ করার জন্যই অপশক্তিরা নাস্তিক ও ধর্মবিরোধী লেখক হিসেবে তাদের অপবাদ দিচ্ছে।

নতুন মঞ্চ ‘মুক্তচিন্তা আন্দোলন’ ॥ নাগরিক শোকসভায় ইমরান এইচ সরকার ব্লগার ও মুক্তচিন্তার মানুষদের হত্যার প্রতিবাদ জানাতে এবং হত্যাকা-ের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী জনমত গড়ে তুলতে সকল প্রগতিশীল সংগঠনকে একই ছাতার নিচে নিয়ে আসতে ‘মুক্তচিন্তা আন্দোলন’ নামে নতুন মঞ্চ গঠনের ঘোষণা দেন।

বিজ্ঞানমনস্ক লেখক অভিজিত রায়ের বাবা শিক্ষাবিদ অধ্যাপক অজয় রায়কে প্রধান উপদেষ্টা করে ১০১ সদস্যের জাতীয় উপদেষ্টা কমিটি আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এই মঞ্চের কর্মপন্থা ঠিক করবে বলে জানান ইমরান।

নিলয়কে হত্যার পর বিভিন্ন প্রগতিশীল সংগঠনের সঙ্গে মতবিনিময় করে নতুন এই মঞ্চ গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ২১ সদস্যের স্টিয়ারিং কমিটি ও ৭১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটি ‘মুক্তচিন্তা আন্দোলন’ পরিচালনা করবে। আগামী ২৮ আগস্ট বিকেল চারটায় শাহবাগে মুক্তচিন্তা আন্দোলন ব্যানারে ‘জনসমাবেশ’ অনুষ্ঠিত হবে বলে ইমরান জানান।

নির্বাচিত সংবাদ