১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মোদির হুশিয়ারি

অনলাইন ডেস্ক ॥ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক ভারতে জাতপাত ও সাম্প্রদায়িকতার কোনো স্থান নেই। তিনি বলেন ভারতের পিছিয়ে পড়া দরিদ্র জনগণের ভাগ্যের উন্নয়নে তার সরকারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ সময় ‘স্টার্ট আপ ইন্ডিয়া, স্টান্ড আপ ইন্ডিয়া’ এই নতুন স্লোগান নিয়ে ভারতের অর্থনৈতিক মানচিত্র বদলে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন মোদি।

সেই সাথে দেশের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর ভেতর থেকে উদ্যোক্তা তৈরির ওপরও গুরুত্বারোপ করেন প্রধান মন্ত্রী। এ জন্য পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী যেন ব্যাংক থেকে সহজে ঋণ পান সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার অঙ্গীকার করে মোদি বলেন, এই আন্দোলন ভারতের অর্থনৈতিক মানচিত্রকে পাল্টে দেবে।

শনিবার ১৫ আগস্ট দিল্লির ঐতিহাসিক লাল কেল্লায় ভারতের ৬৯তম স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ কথা বলেন নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, ভারতে জাতপাত এবং সাম্প্রদায়িকতা সহ্য করা হবে না। এ সময় ঐক্যবদ্ধ ভারতের ওপর গুরুত্ব দিয়ে মোদি বলেন, যদি ভারতের ঐক্য বিনষ্ট হয় তবে ভারতের জনগণের স্বপ্নও ধ্বংস হবে।

বুলেট প্রুফ সুরক্ষা ব্যবস্থা ছাড়াই চিরাচরিত কুর্তা, স্লিভলেস কোটি ও পাগড়ি পড়ে বক্তৃতা দিতে লাল কেল্লার মঞ্চে ওঠেন নরেন্দ্র মোদি।

মোদির দেড় ঘণ্টার ভাষণের প্রায় অধিকাংশ সময় জুড়েই ছিলো গরিব এবং কৃষকদের জন্য তার সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের বিবরণ। এ সময় ‘ভারতের কৃষকরা ভারতের সেনাদের মতই গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন মোদি।

পাশাপাশি দরিদ্রদের অর্থনৈতিক সুরক্ষার প্রদানের ব্যাপারে তার সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের বিবরণ দিয়ে মোদি বলেন, আগে ব্যাংকের দরজা গরিবদের জন্য খোলা ছিলো না। আমরা এর অবসান ঘটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

দিল্লির স্থানীয় সময় সকাল সাতটা ২০ মিনিটে লাল কেল্লা চত্বরে এসে পৌঁছান। এর আগে রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধির প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি। তার সঙ্গে ছিলেন অরুন জেটলি, সুষমা স্বরাজ এবং রবি শঙ্কর প্রসাদ সহ শীর্ষ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতারা।