১৫ আগস্ট ২০১৫

জনগণকে নিয়ে পুরো দেশের উন্নয়নের অঙ্গীকার মোদির

ভারতের ৬৯তম স্বাধীনতা দিবস ১৫ আগস্ট শনিবার। এদিন সকালেই টুইটারে দেশের মানুষকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সকাল সোয়া ৭টা নাগাদ রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধীর সমাধিস্থলে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান তিনি। এরপর সকাল ৮টায় লালকেল্লায় পতাকা উত্তোলনের পর নিজের বক্তব্যে সরকারের সাফল্য এবং বিগত ইউপিএ সরকারের সমালোচনা করেন তিনি। অঙ্গীকার করেন জনগণকে সঙ্গে নিয়ে পুরো দেশের উন্নয়নের। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা ও জি নিউজের।

ভাষণে দেশের প্রতিটি মানুষকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, এ কোন সাধারণ সকাল নয়। এই সকাল স্বপ্ন, আশা এবং ১২৫ কোটি ভারতবাসীর আকাক্সক্ষার সকাল। এই দিনে সেই সমস্ত স্বাধীনতা সংগ্রামীকে আমি স্যালুট করি যারা দেশের জন্য লড়াই করেছেন, প্রাণ দিয়েছেন। তিনি ভাষণে দাবি করেন, তার ১৫ মাসের সরকারে কোন রকম দুর্নীতি হয়নি। দুর্নীতি রুখতে আমি বদ্ধপরিকর। দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে হবে এবং এজন্য একেবারে উপর মহল থেকে কাজ করা প্রয়োজন। আগের সরকার শুধু আইন করে গেছে। আমাদের সরকার আইনও করেছে, তার সঠিক প্রয়োগ করেছে। স্বাধীনতা দিবসের সকালে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন, জাতপাত ও সাম্প্রদায়িকতার কোন জায়গা নেই এ দেশে। সমাজের এই সমস্যাগুলো দূর করতে হবে। সাম্প্রদায়িকতা কোনভাবেই সহ্য করা হবে না। সাম্প্রদায়িকতা উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। ঐক্য, সারল্য আর সম্প্রীতিই একটা দেশের সম্পদ। এগুলো কখনই শেষ হতে দেয়া উচিত নয়। এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মোদি আরও বলেন, ঐক্য শেষ হয়ে গেলে দেশের সব স্বপ্ন মিথ্যা হয়ে যাবে। সাম্প্রদায়িকতার বীজ কখনই একটা দেশের মধ্যে বপন হতে দেয়া উচিত নয়। দেশবাসীকে ‘টিম ইন্ডিয়া’ বলে উল্লেখ করেন তিনি। এই ‘টিম ইন্ডিয়া’ই ভারতকে ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে বলেও বার্তা দেন মোদি। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, গোটা দেশের উন্নয়নের পথে জনগণের সঙ্গ, জনগণের পরিপূর্ণ সহযোগিতা প্রয়োজন। প্রত্যেক সরকারই প্রতিশ্রুতি দেয়, কিন্তু পালন করে কিনা প্রশ্ন সেটাই। আমরা দেশকে অর্থনৈতিক দিক থেকে শক্তিশালী করে তুলতে চাই। উন্নয়নের পিরামিড সুদৃঢ় হলে লাভবান হবেন দরিদ্ররাই। আমি এদেশের গরিবদের স্যালুট জানাচ্ছি। শূন্য ব্যালেন্স থেকে শুরু করে তারা ব্যাংকে ইতোমধ্যেই ২০ হাজার কোটি রুপী জমা করেছেন। তাদের জন্যই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

সৌহার্দ্যরে বার্তা নওয়াজের

ভারতের স্বাধীনতা দিবসে শুভেচ্ছাবার্তা দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। ভাল প্রতিবেশীসুলভ সম্পর্ক রাখার আহ্বান জানান তিনি। তিনি তার বার্তায় বলেন, ‘আমি দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ, সহযোগিতার সম্পর্কেই উৎসাহ দিই। তার আশা দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক ইস্যুগুলো একটা স্থিতিশীল অবস্থায় আসবে। বিশ্বাস ও সহযোগিতার মাধ্যমে একটা নতুন সম্পর্ক তথা নতুন যুগ শুরু হোক বলেও উল্লেখ করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। এই সুসম্পর্কে দুই দেশের মানুষই উপকৃত হবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।