২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রজার্স কাপের শেষ চারে সেরেনা-সিমোনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রজার্স কাপে অজেয় সেরেনা ক্রমেই আরেকটি শিরোপার দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। টরেন্টোয় তিনি এই টুর্নামেন্টের তিনটি শিরোপা এর আগে জিতেছেন। ইতোমধ্যেই পা রেখেছেন সেমিফাইনালে। কোয়ার্টার ফাইনালে তিনি মাত্র ৭৮ মিনিটের স্থায়ী লড়াইয়ে ইতালির রবার্তা ভিঞ্চিকে হারিয়ে দেন। সরাসরি ৬-৪, ৬-৩ সেটে ভিঞ্চিকে হারিয়ে দেয়ার পথে সেরেনা টরেন্টোয় টানা ১৪ ম্যাচ জিতলেন। শেষ চারেও মোটামুুটি সহজ প্রতিপক্ষই পাবেন তিনি। সেমিতে তিনি লড়বেন ১৮ বছর বয়সী সুইস তরুণী বেলিন্ডা বেনকিচের বিরুদ্ধে। তিনি সার্বিয়ান তারকা আনা ইভানোভিচকে ৬-৪, ৬-২ সেটে বিদায় দিয়েছেন। ফাইনালে হয়ত দেখা হয়ে যাবে রোমানিয়ার তারকা সিমোনা হ্যালেপের সঙ্গে। শেষ আটে অবশ্য কঠিন চ্যালেঞ্জেই পড়েছিলেন তিনি। ষষ্ঠ বাছাই পোল্যান্ডের এ্যাগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানাস্কাকে তিনি তীব্র লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত পরাজিত করেছেন ০-৬, ৬-৩ ও ৬-১ সেটে। এটি ছিল তাঁর ক্যারিয়ারের ৩০০তম জয়। সেমিতে হ্যালেপের প্রতিপক্ষ ইতালির তরুণী সারা ইরানি। তিনি ইউক্রেনের কোয়ালিফায়ার লেসিয়া সুরেঙ্কোকে ৬-৪, ৬-৪ সেটে হারিয়েছেন।

অপ্রতিরোধ্য সেরেনা উইলিয়ামসকে থামানো যাচ্ছে না কোনভাবেই। শেষ আটে ওঠার লড়াইয়ে তাঁর বিরুদ্ধে মাত্র ৬২ মিনিট টিকতে পেরেছিলেন আন্দ্রেয়া পেটকোভিচ। নিজের গতি আর শক্তির দাপট দেখিয়েছেন শেষ আটের লড়াইয়েও। এবার তিনি সরাসরি ১২টি সার্ভ পয়েন্ট (এসেস) জিতেছেন। আর এতেই দুর্বল হয়ে গেছেন প্রতিপক্ষ হিসেবে থাকা ভিঞ্চি। সেরেনার এই ভয়ানক গতিময় সার্ভগুলোই যে কোন প্রতিপক্ষের জন্য ভীতিকর। মূলত ইউএস ওপেনের প্রস্তুতিমূলক একটি আসর হিসেবে রজার্স কাপ খেলেন বিশ্বের সেরা টেনিস তারকারা। আর এ হার্ডকোর্ট ইভেন্টে নিজেকে দারুণভাবে ঝালিয়ে নিচ্ছেন বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা মার্কিন কৃষ্ণকন্যা সেরেনা। এবার ফাইনালে ওঠার লড়াই। প্রতিপক্ষ বেনকিচ। ২০০১ সালে প্রথম টরেন্টোর এ আসরে শিরোপা জয়ের পর ২০১১ ও ২০১৩ সালেও রজার্স কাপের ট্রফি নিজের ঘরে নিয়ে গেছেন সেরেনা। এবারও তাঁর দৃষ্টি যে ফাইনালে ওঠা এবং শিরোপা জয় সেটা সেরেনার কণ্ঠেই বোঝা গেল। তিনি বলেন, ‘সার্বিকভাবে এটা খুব ভাল লড়াই ছিল। আমি অবশ্যই অনুভব করছি যে, আমার অভীষ্ট লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাওয়ার পথে একটি অন্যতম পদক্ষেপ।’ আগামী ৩১ আগস্ট বছরের শেষ গ্র্যান্ড সøাম আসর ইউএস ওপেন শুরু হবে।

ইতোমধ্যেই গ্র্যান্ড সøামকে ‘সেরেনা সøামে’ পরিণত করেছেন তিনি। কারণ মর্যাদাপূর্ণ সøাম টানা চারটি জিতেছেন। গত বছর ইউএস ওপেন থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত চলতি বছরের তিনটি গ্র্যান্ড সøাম শিরোপাই ঘরে তুলেছেন তিনি। এবার চক্র পূরণ করে নতুন এক বিস্ময় সৃষ্টির পালা।

সেজন্য ইউএস ওপেন জিততে হবে। সে লক্ষ্যেই নিজেকে প্রস্তুত করছেন সেরেনা। ইউএস ওপেন ধরে রাখতে পারলে ‘ক্যালেন্ডার সøাম’ হয়ে যাবে তাঁর। উন্মুক্ত যুগের বিশ্ব টেনিসে সর্বাধিক ২২ গ্র্যান্ড সøাম জিতেছেন জার্মানির সাবেক তারকা স্টেফি গ্রাফ। তাঁকেও ছোঁয়া হয়ে যাবে বছরের শেষ গ্র্যান্ড সøাম জিততে পারলে। কিন্তু তবু নিজের নৈপুণ্য নিয়ে সন্তুষ্ট হতে পারছেন না এ মার্কিন তারকা। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হচ্ছে না যে, আমি আমার সেরাটা দিতে পারছি কিংবা তার আশপাশে আছি। তবে সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছি এবং আমি আরও ভালভাবে এ পথেই এগিয়ে যেতে চাই।’ সুইজারল্যান্ডের তরুণী বেনকিচ আসরের পঞ্চম বাছাই সার্বিয়ান সুন্দরী আনা ইভানোভিচকে সরাসরি ৬-৪, ৬-২ সেটে হারিয়ে দিয়ে অবশ্য নিজেকে সেমিতে বড় প্রতিপক্ষ হিসেবেই প্রমাণ দিয়ে ফেলেছেন।

সেরেনার চতুর্থ রজার্স কাপ জয়ের ক্ষেত্রে বড় বাধা হতে পারেন হ্যালেপ। আসরের দ্বিতীয় বাছাই হ্যালেপ অবশ্য বেশ ঘামঝরা জয় পেয়েছেন শেষ আটে। কারণ কঠিণ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লড়তে হয়েছে তাঁকে। প্রথম সেটেই ৬-০ ব্যবধানে বিধ্বস্ত হয়েছিলেন পোলিশ সুন্দরী রাদওয়ানাস্কার কাছে। কিন্তু পরে ঘুরে দাঁড়িয়ে দুই সেটে ৬-৩, ৬-১ ব্যবধানে জিতে পা রাখেন সেমিতে। ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট দীর্ঘ এ লড়াইয়ে জেতার পর ক্যারিয়ারের ৩০০তম জয় তুলে নিয়েছেন হ্যালেপ। সেমিতে তাঁর প্রতিপক্ষ হবেন ইরানি। ইতালিয়ান এ তারকা কোয়ার্টারে ৬-৪, ৬-৪ সেটে হারিয়েছেন ইউক্রেনের বাছাই থেকে উঠে আসা তারকা সুরেঙ্কোকে।