২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে আগুনে পুড়ে গেছে ৭ ঘর

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ টঙ্গীবাড়ি উপজেলার হাটকান গ্রামে দূর্বৃত্তের আগুনে ছয় বসতঘরসহ সাত ঘর পুড়ে গেছে। পুলিশের হিসাবে ক্ষতির পরিমান ২৫ লাখ টাকা। শনিবার গভীর রাতে (পৌনে ২টায়) আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পরে। পরে স্থানীয় লোকজনের সাথে আগুন নেভানোর চেষ্টায় যোগ দেয় পুলিশ। রাত আড়াইটায় মুন্সীগঞ্জ থেকে ফায়ার সাভির্স ঘটনাস্থলে পৌছায়। তবে এর আগেই আগুন অনেকা নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় কোন ফায়ার স্টেশন নেই।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ক্ষতিগ্রস্ত নওশাদ শিকদার জানান, গভীর ঘুমে ছিলেন তারা। কোনভাবে টের পেয়ে ঘর থেকে বেড়িয়ে প্রাণে রক্ষা পান। একই অবস্থা তার ভাই আব্বাস আলী শিকদারের। স্ত্রী ও দু’ শিশু সন্তান নিয়ে কোনক্রমে বেরিয়ে আসেন। তবে তার বসত ঘর ও ছাপরা ঘরের সম্পদ রক্ষা করতে পারেননি সবই ছাই হয়ে গেছে। এছাড়া মামলার কারণে বাড়ি ছাড়া পাশের বাচ্চু শিকদার, রিপন শিকদার, মাসুম শিকদার ও মকবুল শিকদারের চারটি বসত ঘর পুড়ে যায়। নওশাদ শিকদার জানান, “দুর্বৃত্তরা যে আগুন দিয়েছে এতো কোন ভুল নেই। তবে অন্ধকারে কারা আগুন দিয়েছে সেটাতো দেখার সুযোগ ছিল না।”

গ্রামবাসী ও পুলিশ জানায়, গত ১৬ জুলাই স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কয়েক মামলার আসামী দুর্ধর্ষ মো. লিটন মাদবরের এক হাতের কব্জি বিচ্ছিন্ন করে দেয় এবং কেটে দেয় পায়ের রগ। এই মামলার আসামী হয়ে বাচ্চু শিকদার, রিপন শিকদার, মাসুম শিকদার ও মকবুল শিকদারের পরিবার গ্রাম ছাড়া। এই রিবোধের কারণেই আগুনের ঘটনা ঘটতে পারে বলে গ্রামবাসীরা মনে করছে। সেই প্রতি সিংসার আগুনে প্রতিপক্ষ ছাড়াও নিরীহ মানুষের সম্পদও পুড়ে যায়।

টঙ্গীবাড়ি থানার ওসি আলমগীর হোসেন রবিবার জানান, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। এই আগুনের ঘটনায় এখনও কোন মামলা হয়নি। তবে আগুনের সঠিক কারণ এখনও জানা যায়নি। এদিকে লিটনের হাত কাটা মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফিরোজ আলী মোল্লা জানান, এই এজাহারভূক্ত আসামী গ্রেফতার করা যায়ানি। তবে সন্দেজনকভাবে জনি নামের একজনকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হলেও এখন জামিনে মুক্ত রয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের ইনচার্য ইন্সপেক্টর মন্টু বিশ্বাস জানান, তারা রাত ১টা ৫৫ মিনিটের পুলিশ কন্টোল রুম থেকে খববর পেয়ে আড়াই টার দিকে পৌছান। তবে আগুনের সঠিক কারণ এখনও নিশ্চিত করা যায়নি।