১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সূচকের পতনে পুঁজিবাজারে লেনদেন শেষ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে দেশের উভয় পুঁজিবাজারে সূচকের পতনে শেষ হয় লেনদেন। এদিন শুরুতে সূচকের উর্ধগতি দিয়ে লেনদেন শুরু হলেও প্রথম ঘন্টা শেষেই সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতা দেখা দেয়। বিনিয়োগকারীদের মুনাফা তোলার কারণে কমেছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকেও উভয় বাজারে কিছুটা কমেছে লেনদেন। তবে রবিবারের পতনে খুব একটা হতাশ নয় বিনিয়োগকারীরা। কারণ তাদের মতে, পুঁজিবাজারে সূচকের ওঠানামা স্বাভাবিক। একদিন সূচক বাড়বে অন্যদিন কমবে এটাই পুঁজিবাজারে পরিপক্কতার লক্ষণ।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, রবিবারে সকালে ইতিবাচক প্রবণতা দিয়ে শুরুর পরে দিনশেষে ডিএসইর সার্বিক সূচকটি আগের দিনের চেয়ে ২৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৭৮৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ১৮৪ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১ হাজার ৮৪৫ পয়েন্টে। দিনভর ডিএসইতে হাতবদল হওয়া ৩২০টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮০টির, কমেছে ২০২টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টি কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকায় লেনদেন হয়েছে ৫৩৩ কোটি ৪০ লাখ ৪৬ হাজার টাকা।

এর আগে বৃহস্পতিবার ডিএসইর সার্বিক সূচকটি আগের দিনের চেয়ে ১২ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৪ হাজার ৮০৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১১৯১ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১ হাজার ৮৫৯ পয়েন্টে। ওইদিন লেনদেন হয় ৬০৩ কোটি ২৪ লাখ ৪৯ হাজার টাকা। সে হিসেবে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৬৯ কোটি ৮৪ লাখ ৩ হাজার টাকা ১১.৫৮ শতাংশ।

ডিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : শাহজিবাজার পাওয়ার, স্কয়ার ফার্মা, আরএসআরএম স্টিল, ইসলামী ব্যাংক, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি, সেন্ট্রাল ফার্মা, বিএসআরএম স্টিল, আলহাজ্ব টেক্সটাইল, ফার কেমিক্যাল ও এমারেল্ড ওয়েল।

দরবৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলো : এ´িম ব্যাংক ১ম মিউচুয়াল ফান্ড, বিচ হ্যাচারী, অ্যাপেক্স ফুডস, নদার্ন জুটস, বিডি ওয়েল্ডিং, আরএসআরএম স্টিল, আলহাজ্ব টেক্সটাইল, সেন্ট্রাল ফার্মা, শাহজিবাজার পাওয়ার ও মুন্নু সিরামিক।

এদিকে দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক ৫৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৮ হাজার ৯৪৩ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৪৯টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৫৫টির, কমেছে ১৬১টির ও দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৩টির। যা টাকায় লেনদেন হয়েছে ৩৮ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

এর আগে বৃহস্পতিবার সিএসইর সাধারণ মূল্যসূচক ১৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৮ হাজার ৯৯৯ পয়েন্টে। ওইদিন লেনদেন হয়েছে ৪৮ কোটি ৮৩ লাখ ৫২ হাজার টাকা। সে হিসেবে সিএসইতে লেনদেন কমেছে ১০ কোটি ১৩ লাখ ৫২ হাজার টাকা বা ২০.৭৫ শতাংশ।