২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঠাকুরগাঁওয়ে পাটজাগে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে

ঠাকুরগাঁওয়ে পাটজাগে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও॥ ঠাকুরগাঁও জেলার নদী, খাল-বিলসহ বিভিন্ন জলাশয়ে যত্রতত্র সনাতন পদ্ধতিতে পাটজাগ দেয়ায় পানি পঁচে তা পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। একদিকে যেমন পানি পঁচে পরিবেশ হচ্ছে মারাত্মক দুর্গন্ধময় তেমনি বিভিন্ন প্রজাতির দেশী মাছেরও নিধন ঘটছে। নদী তীরবর্তী হাজার হাজার মানুষ পঁচা দুর্গন্ধময় পানি ব্যাবহার করে পানিবাহিত নানারোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

কৃষকদের অসচেতনতার কারণে এমনটি ঘটলেও পাট পঁচানোর রিবন রেটিং পদ্ধতি ব্যবহারের ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও কৃষি বিভাগের তেমন প্রচারণা নেই। বিশেষ করে ইউনিয়ন পর্যাযে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের এ ব্যাপারে তেমন ভূমিকা নিতে দেখা যায় না। ফলে শত বছরের সেই সনাতন পদ্ধতিতেই পাটজাগ দিয়ে আসছেন কৃষকরা। আর প্রতিটি পাট মৌসুমে পরিবেশ পড়ছে মারাত্মক বিপর্যয়ে। অথচ কোন মাথা ব্যাথা নেই কর্তৃপক্ষের।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে জেলার ওপর দিয়ে প্রবাহিত টাঙ্গন, শুক, নাগর, সেনুয়া নদীর আনুমানিক ৩০ কিঃ মিঃ নদীর তীর জুড়ে পাট জাগ দেয়া হয়েছে এবং এখনও হচ্ছে। এর ফলে নদীগুলো প্রায় মৎস্যশূণ্য হয়ে পড়েছে। ফলে হাজার হাজার মৎস্যজীবী পরিবার এ পেশা থেকে সরে আসতে বাধ্য হচ্ছে।

এ ব্যাপারে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আরশেদ আলী জানান, নদী ও খাল বিলে পাট জাগ দেয়া কৃষকদের দীর্ঘদিনের একটি অভ্যাস। কিন্তু এটি পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর হওয়ায় কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষকদেরকে রিবন রেটিং পদ্ধতির ব্যাপারে সচেতন করা হচ্ছে। নতুন পদ্ধতিতে কৃষকদের অভ্যাস’ হতে একটু সময় লাগবে।

নির্বাচিত সংবাদ